Header Ads

কোভিড-১৯ সংক্ৰমণ ঠেকাতে ২৪ মাৰ্চ থেকে ৩১ মাৰ্চ পৰ্যন্ত অসম লকডাউন করার ঘোষণা স্বাস্থ্যমন্ত্ৰীর

নয়া ঠাহর ওয়েব ডেস্ক, ২৩ মাৰ্চঃ 
সারা দেশে কোভিড-১৯ সংক্ৰমণের সংখ্যা ক্ৰমশ বাড়ছে। সারা দেশে এখন পৰ্যন্ত ৪২৮ জন মানুষ এই ভাইরাসে আক্ৰান্ত হয়েছে। সেই দিকে লক্ষ্য রেখে মহামারী নোভেল করোনাভাইরাসের সংক্ৰমণ ঠেকাতে ২৪ মাৰ্চ অৰ্থাৎ মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে ৩১ মাৰ্চ পৰ্যন্ত অসম লকডাউন ঘোষণা করল রাজ্য সরকার। সোমবার বিকেল ৫ টায় সাংবাদিক সম্মেলন করে একথা জানান রাজ্যের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্ৰী হিমন্ত বিশ্ব শৰ্মা।
ছবি, সৌঃ আন্তৰ্জাল
প্ৰয়োজনীয় পরিষেবা অ্যাম্বুলেন্স ছাড়া সমস্ত ধরনের ব্যক্তিগত যানবাহন বন্ধ থাকবে। বন্ধ থাকবে সরকারী এবং বেসরকারী সমস্ত অফিস। বন্ধ থাকবে স্কুটার, মোটর সাইকেল চলাচল। রাস্তাঘাটে কোনও সাধারণ মানুষ বেরতে পারবেন না। নিয়ম অমান্য করলে প্ৰথম ধাপে ৬ মাসের জেল এবং দ্বিতীয় ধাপে দু বছর পৰ্যন্ত জেল হতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

 মুদি দোকান, ফাৰ্মাসি, পেট্ৰল পাম্প, এলপিজি পরিষেবা খোলা থাকবে। ব্যাঙ্ক পরিষেবা চালু থাকবে। নামঘর, মন্দির, মসজিদে তিনজনের বেশি মানুষ থাকতে পারবে না।
 প্ৰয়োজন হলে মহেন্দ্ৰমোহন হাসপাতালে করোনাভাইরাসে আক্ৰান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্ৰী। গুয়াহাটিতে করোনা মোকাবিলায় তিনটি সেট আপ তৈরি করে রাখার চিন্তা ভাবনা করা হয়েছে। প্ৰয়োজন হলে হোস্টেল, রেস্টুরেন্টকেও হাসপাতাল বানানো হবে।
কেরল, ব্যাঙ্গালুরু এবং মহারাষ্ট্ৰ থেকে যারা অসমে এসেছে তাদের ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা বাধ্যতামূলক বলে জানানো হয়েছে। তিনি আরও জানান- সোমবার মোট ১৬৯ জনের স্যাম্পল পরীক্ষা করা হয়েছে। তার মধ্যে ১৪৮ জনের নেগেটিভ এসেছে। ২১ জনের পরীক্ষার ফলাফল বাকি রয়েছে।

১ এপ্ৰিল থেকে রেশন কাৰ্ডে বিনামূল্যে চাল দেওয়ার কথাও জানিয়েছেন রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্ৰী। 

 করোনা সংক্ৰমণ ঠেকাতে সরকারের তরফে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

No comments

Powered by Blogger.