Header Ads

কাল বিকাল ৬ টা থেকে ৩১ মার্চ রাত ১২ পৰ্যন্ত লক ডাউন ঘোষণা, আইন ভঙ্গকারিদের ৬ মাস থেকে ২ বছর জেল ঘোষণা অর্থমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মার, ত্ৰিপুরাতেও ৩১ মার্চ পর্যন্ত লকডাউন থাকবে



অমল গুপ্ত, গুয়াহাটি : করোনা ভাইরাসের মতো মারাত্মক অদৃশ্য শত্রুর বিরুদ্ধে অসম সরকার শেষ পৰ্যন্ত ৩১ মার্চ রাত ১২টা পৰ্যন্ত সমগ্র রাজ্যে লকডাউন ঘোষণা করল। এই দিন কোনো মানুষ পথে নামতে পারবে না, ঘরবন্দী হয়ে থাকতে হবে,  একমাত্র মুদি দোকান ও ফার্মেসি খোলা থাকবে, এছাড়া, হাসপাতাল ও জরুরি ছাড়া মানুষ পথে বেরোলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করবে। ভারতীয় দণ্ডবিধির সেকশন টু অনুযায়ী লকডাউন আইন লঙ্ঘনকারীকে মাস থেকে বছর পৰ্যন্ত কারাদণ্ড দেওয়া হবে, মুখ্যমন্ত্রী আজ জেলার ডেপুটি কমিশনার এবং পুলিশ সুপারদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্স করে আইন ভঙ্গকারীদের কঠোর শাস্তি দেওয়ার কড়া নির্দেশ দিয়েছেন। কোভিড ১৯ এক বিপদজ্জনক জীবাণু, মানুষের জীবন মরণ সম্পর্ক,  তার সঙ্গে আপোষ করার প্রশ্নই উঠতে পারে না। আজ জনতা ভবনে সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মা বিশ্বব্যাপী মারাত্মক ভাইরাস না সম্পর্কে রাজ্যবাসীকে হুঁশিয়ারি করে দিয়ে বলেন, এই কয়েকটি দিন ঘরে বসে ঘর বন্দি থেকে নিজের পরিবারকে বাঁচান এবং সমগ্র জাতিকে বাঁচান, বৃদ্ধ মা-বাবাকে অতি স্পর্শকাতর এই মারণ রোগ থেকে রক্ষা করুন, আনন্দ ফুর্তি করার সময় নয় বলে মন্তব্য করেন। আজ বিকাল ৪.৩০ৰ্যন্ত অসম তথা উত্তর পূর্বাঞ্চল একটিও পজিটিভ কেস ধরা পড়েনি, অসমে ১৬৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়, ১৪৮টি ক্ষেত্রে নেগেটিভ, ২৮টি পরীক্ষার ফল পাওয়া যায়নি, নেগেটিভ হবে বলেই পূর্বাভাস পাওয়া গেছে। লাহোয়াল আঞ্চলিক গবেষণা কেন্দ্রে ৮৩টি, গুয়াহাটি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৬৪টি, যোরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ১০ এবং শিলচর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ১০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর পর বরপেটা এবং তেজপুর মেডিকেল কলেজে করোনা ভাইরাস পরীক্ষার ব্যাবস্থা হবে। জানান, এই কদিন ট্রেন, বাস সহ অন্যান্য যানবাহন বন্ধ থাকবে আর্ন্তজাতিক বিমান সেবা বন্ধ, ঔষধপত্র বা জরুরি সামগ্রী আমদানির জন্য ডোমেস্টিক বিমান সেবা চালু থাকবে, অ্যাম্বুলেন্স ছাড়া কোনো যানবাহন চলবে না। অসমের সঙ্গে আন্তরাষ্ট্র,  আন্তরাজ্যের সীমানা সিল করে দেওয়া হয়েছে। প্রাইভেট গাড়ি নিয়ে অন্য রাজ্যে সফর ও করা যাবে না। সরকারি কার্যালয়ে বন্ধ কেবল অর্থবিভাগের মত জরুরি বিভাগে কাজ করেন সেই রকম মাত্র ১০ জন কর্মী কাজ করবে। ব্যাংক,  ট্রেজারি, এটিএম খোলা থাকবে। মন্দির মসজিদ,  নামঘর, গির্জা প্রভৃতি ধর্মস্থানে তিন জনের বেশি যেতে পারবে না। করোনা ভাইরাস রোগ প্রতিরোধ সম্পর্কে বলেন, রাজ্যে জরুরি চিকিৎসার জন্য ভেন্টিলেশন সহ ১৬০টি আই সি ইউ-র বাবস্থা হয়েছে। গুয়াহাটি মেডিক্যাল কলেজের ডেন্টাল হাসপাতাল খালি করে করোনা ভাইরাস চিকিৎসার জন্য রাখা হবে, সোনাপুর হাসপাতালকে এই রোগ নিরাময়ের জন্যে প্রস্তুত করা হয়েছে। গুয়াহাটি ডেন্টাল হাসপাতালের রুগীদের শ্রীমন্ত শংকরদেব হাসপাতালে পাঠানো হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের হোস্টেল, রাজ্যের বিভিন্ন হোটেলকেও এই রোগ নিরাময়ের জন্য বেড প্রস্তুত করা হচ্ছে। গুয়াহাটি মহেন্দ্র মোহন হাসপাতালকে কাজে লাগানো হবে। কেরল মহারাষ্ট্র, কর্নাটক প্রভৃতি রাজ্যে এই রোগের প্রাদুর্ভাব বেশি, সেখান থেকে আসা ব্যক্তিদের ১৪ দিন হোম কযারেন্টিন থাকতে হবে। তাদের কারও কাশি, হাঁচি, ফ্লু, নিউমিনিয়া জাতীয় রোগ দেখা দিলে হেল্প লাইন ১০৪ ফোন করার আর্জি জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী। বিভিন্ন হোয়াটস আপ-এর ভিত্তিহীন খবর এড়িয়ে চলা অনুরোধ জানিয়ে বলেন,  ফেক, ক্ষতিকর খবর পরিবেশন করা হলে পুলিশ বাবস্থা নেবে। জানান আজ তিনটি ট্রেন এসেছে, কাল টি আসবে,  সবকে স্টাম্পিং করার ব্যবস্থা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর আহবান করা জনতা কারফিউ চলার সময় একাংশ জনতা হাততালি দিয়ে ঘন্টা বাজিয়ে পথের মাঝে এসে আনন্দ-ফুর্তি করল, একবারও করোনা ভাইরাসের মত রোগের কথা চিন্তা করলো না।
এপ্রিল থেকে জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা অনুযায়ী রেশনের দোকানগুলো থেকে গরিব মানুষদের বিনামূল্যে চাল বন্টন করা হবে বলে মন্ত্রী জানান।
ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব আজ ত্রিপুরা সচিবালয়ে এক সাংবাদিক সন্মেলনে সারা রাজ্যে লকডাউন ঘোষণা করেন। কাল বেলা টা থেকে ৩১ মার্চ বেলা টা পৰ্যন্ত লকডাউন আইন জারি থাকবে। আইন ভঙ্গকারিদের মাস থেকে বছর জেল হবে।

No comments

Powered by Blogger.