Header Ads

বামেদের নেতা এখন কানাইয়া আর ঐশী, বাম-কংগ্রেসকে আক্রমণ দিলীপের !!

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায়ঃ

দ্বিতীয়বার সভাপতি নির্বাচিত হয়েই বিরোধীদের বিরুদ্ধে গর্জে উঠলেন দিলীপ ঘোষ। নতুন উদ্যোমে বাম-কংগ্রেসের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিয়েছেন বিজেপির নব নির্বাচিত রাজ্য সভাপতি। তিনি অভিযোগ করেছেন রাজ্যে বাম-কংগ্রেস অস্তিত্বহীন হয়ে পড়েছে। আসন কমতে কমতে শূন্যতে এসে দাঁড়িেয়ছে বামেরা। কানাইয়া আর ঐশী এখন বামেদের নেতা। 

দিলীপ ঘোষ সরাসরি বলেছেন এখন এই ধরনের বিতর্কিত মন্তব্য তিনি করবেন। এটা শোনার অভ্যাস করে নিতে হবে বিরোধীদের। কারণ এখন তাঁদেরই বলার সময়। দিলীপের এই বক্তব্য বুঝিয়ে দিয়েছে আগামিদিনে আরও আগ্রাসী হতে চলেছেন তিনি। নিজের গুলি মারার মন্তব্যে অনড় থেকে দিলীপ বামেদের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিয়ে বলেছেন তারা রাজ্য থেকে নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছে। তাদের নেতা এখন কানাইয়া, ঐশী। ঐশীর নাক টিপলে সর্দি বেরোয়। এমনই অবস্থা বামেদের নেতানেত্রীদের। কংগ্রেসের বিরুদ্ধেও একইভাবে আক্রমণ শানিয়েছেন দিলীপ।
রানাঘাটে সিএএ-প্রচারে গিয়ে দিলীপ বলেছিলেন সিএএ বিরোধী আন্দোলনকারীদের গুলি করে মারা উচিত। এই মন্তব্যের পর দলের অন্দরেই সমালোচিত হয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। প্রশ্ন উঠেছিল তাঁর সভাপতির পদ থাকা নিয়ে। শেষে ফের সেই সভাপতি পদে নির্বাচিত হয়ে দিলীপ নিজের মন্তব্য অনড় থাকার কথা জানিয়েছেন এবং এর পর আরও বেশি করে এই ধরনের মন্তব্য শুনতে হবে বলে বিরোধীদের জানিয়েছেন দিলীপ!
আরএসএসের উগ্রতা ধরা পড়ে দিলীপের আচরণে। অমিত শাহের বক্তব্যেও সেই আরএসের উগ্রতাই ধরা পড়ে। সেকারণেই হয়তো বিধানসভা ভোটে দলের কর্মীদের চাঙ্গা রাখতে দিলীপেই ভরসা রেখেছে দল। যদিও সভাপতি পদের ভোটে আর কেউ মনোনয়ন দেননি। আপাতত তিন বছরের জন্য দিলীপের আগ্রাসী আন্দোলনকেই হাতিয়ার করতে চাইছে বিজেপি।

No comments

Powered by Blogger.