Header Ads

মহিলা যাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য ২৮টি স্পর্শকাতর স্টেশনকে সিসিটিভির আওতাভুক্ত করল উত্তর পূর্ব সীমান্ত রেল


দেবযানী, গুয়াহাটি
  মহিলাযাত্রীদের সুরক্ষা ও নিরাপত্তার জন্য ২৮টি স্পর্শ কাতর রেলওয়ে স্টেশনকে সিসিটিভির আওতাভুক্ত করলো উত্তর পূর্ব সীমান্ত রেল। এই ব্যবস্থা ইতিমধ্যে ১৩ টি স্টেশন স্থাপন করা হয়েছে। এই স্পর্শকাতর' স্টেশনগুলোতে লাগানো উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন সিসিটিভি ক্যামেরা প্ল্যাটফর্ম ,ও  চারপাশের এলাকা ,যাত্রীদের অপেক্ষাকরার স্থানে বসানো হয়েছে এবং এই ক্যামেরার মাধ্যমে যাত্রীর গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করা যাবে। রেল মন্ত্রকের পক্ষ থেকে দিন রাত ২৪ ঘণ্টা যাত্রীদের বিশেষত মহিলা যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নির্ভায়া ফান্ডের অধীনে দেশের ৯৮৩ রেলস্টেশনে ১৯০০০ ক্ষমতাসম্পন্ন সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলওয়ের অধীনে ২৮ টি স্টেশনে সিসিটিভি লাগানোর ব্যবস্থা চালু করা হবে যারমধ্যে উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলওয়ে দ্বারা আইএসএস (ইন্টার ইন্ট্রাগ্রেটেড সিকিউরিটি সিস্টেম) এর  অধীনে ১৬টি স্টেশনে এই ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে এবং নির্ভায়া ফান্ডের অধীনে রেলটেল  দ্বারা ১২টি স্টেশনে এই কাজ করা হচ্ছে ।সমগ্র কাজ দুই পর্যায় করা হবে। ১৬ টি স্টেশনের মধ্যে ইতিমধ্যে ৮ টি তে( গুয়াহাটি, লামডিং, ডিব্রুগড় ডিমাপুর, নিউ জলপাইগুড়ি, শিলিগুড়ি জংশন, কাটিহার, কিশানন্গঞ্জ) স্টেশনে ২০১৬-২০১৯ সালে চালু করা হয়েছে ।বাকি থাকা৮টি স্টেশনেএখন চালু করা হচ্ছে ।এই ৮টা স্টেশনের মধ্যে রয়েছে( কামাখ্যা জংশন,রাঙিয়া, ডিফু, শিলচর নিউ ,বঙ্গাইগাও)এই কয়েকটি  ,স্টেশনে চালু হয়েছে। এবং অবশিষ্ট তিনটি( কোকরাঝাড় ,মরিয়ানি, নিউ তিনসুকিয়া)। স্টেশনে কাজ চলছে যা  সম্ভবত ২০২০ এর মার্চের মাঝেই শেষ হয়ে যাবে। এর পাশাপাশি বাকী ১২টি (আলিপুরদুয়ার জংশন, নিউ আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, নিউ কোচবিহার, রায়গঞ্জ, বরপেটা রোড  সামনি তিনসুকিয়া পূর্ণিয়া জংশন  রেলের দ্বারা সম্পন্ন করা হবে সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ প্রশিক্ষিত আরপিএফ এর কর্মীরা পর্যবেক্ষণ করবে এবং প্রয়োজনে সেই সিসিটিভি ফুটেজ সংশ্লিষ্ট স্টেশন ম্যানেজারকে দেখানো হবে । ভারতীয় রেলওয়ে স্টেশনের মধ্যে ৩৪৪টিি সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপনেের কাজ সম্পূর্ণ হয়ে গেছে । হামসফার এক্সপ্রেসে ও তেজসের পরিষেবা  সিসিটিভি ক্যামেরার অধীনে পর্যবেক্ষণ করা হয়।এই দুটি ছাড়াও  শান এ পাঞ্জাব এক্সপ্রেস পূর্ণাঙ্গরূপে সিসিটিভি ক্যামেরার আওতাভুক্ত করা হয়েছে। 
 উল্লেখনীয় যে ২০১২ সালের ১৬ ই ডিসেম্বর দিল্লির ঘটনার পর ভারতের মহিলাদের সুরক্ষা অক্ষুন্ন রাখতে ও সুরক্ষা নিশ্চিত করতে ভারত সরকার ও এনজিও কাজে সাহায্যের জন্য ২০১৩ সালের কেন্দ্রীয় বাজেটের ১ হাজার কোটি টাকা নির্ভয়া কান্ডের কথা ঘোষণা করা হয়েছিল । বৃত্ত মন্ত্রকের অর্থনৈতিক বিষয়ক বিভাগের দ্বারা এই এই ফান্ড পরিচালিত  করা হবে ।

No comments

Powered by Blogger.