Header Ads

'মোদীর উত্থান রাহুলের জন্য হয়েছে' ! বেঙ্গালুরুতে রামচন্দ্র গুহ সরব !!


বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায়ঃ নাগরিকত্ব ইস্যুতে এদিল উত্তর থেকে দক্ষিণ ভারত কার্যত উত্তাল হয়ে ওঠে। একাধিক জায়গায় পরিস্থিতি ক্রমাগত সরগরম হতে থাকে। দিল্লিতে মান্ডি বাজার থেকে মিছিলের অনুমতি না মেলা সত্ত্বেও তাতে যোগ দেন বিশিষ্ট বাম নেতারা।
অন্যদিকে, একই পরিস্থিতি দেখা যায় বেঙ্গালুরুতে। সেখানে বামেদের মিছিল থেকে একাধিক বিশিষ্ট জনকে আটক করেছে কর্ণাটক পুলিশ। এদিন বেঙ্গালুরুর টাউন হল-এর সামনে একটি বিক্ষোভকে ঘিরে রীতিমতো তপ্ত হয়ে ওঠে পরিস্থিতি। 'দিল্লিতে অমিত শাহের সাহস নেই একটা শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদকে অনুমতি দেওয়ার', সিএএ ইস্যুতে উত্তাল বেঙ্গালুরুতে আটক হওয়ার পর এভাবেই নিজের প্রতিক্রিয়া জানান রামচন্দ্র গুহ। এদিন বেঙ্গালুরু টাউন হল-এর সামনে বামপন্থী সংগঠন ও আরও একটি সংগঠনের ডাকে সিএএ নিয়ে প্রতিবাদ জানানো হচ্ছিল। তখনই এমন উত্তেজনার পরিস্থিতি তৈরি হয় ভারতের সিলিকন ভ্যালি বেঙ্গালুরুতে।

এক ভাইরাল ভিডিওতে দেখা যায় ইতিহাসবিদ তথা বিশিষ্ট সাংবাদিক রামচন্দ্র গুহকে টেনে হিঁচড়ে আটক করেছে পুলিশ। তাঁকে রীতিমতো হাত ধরে ভ্যানের দিকে যাওয়ার কথা বলতে থাকে বিজেপি শাসিত কর্ণাটকের পুলিশ।
বেঙ্গালুরুর মাটিতে বিশিষ্ট বুদ্ধিজীবীকে ঘিরে এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াতে থাকে বাগিচা শহরে। এদিকে, ঘটনার পর ক্ষোভে ফেটে পড়েন রামচন্দ্র গুহ। তিনি বলেন, পুলিশের জন্য খারাপ লাগছে। পুলিশকে সরকার যা নির্দেশ দিচ্ছে তাই করছে। গোটা দেশের এতে গর্জে ওঠা উচিত। এমনকি বেঙ্গালুরু শহরের উদ্যোগপতিদেরও তিনি আহ্বান জানিয়েছেন এমন 'স্বৈরতন্ত্র' এর বিরুদ্ধে গর্জে ওঠার জন্য।
রামচন্দ্র গুহকে আটক করার পর , প্রখ্যাাত ইতিহাসবিদ ক্ষোভ উগড়ে দেন মোদী সরকারের বিরুদ্ধে। তিনি বলেন, 'আজ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যেখানে যেতে পেরেছেন, সেখানে যেতে পারতেন না যদি রাহুল গান্ধী তাঁর বিপক্ষে না থাকতেন।' এরপরই তিনি দিল্লির সরকারের দিকে স্বৈরতন্ত্রের অভিযোগ তোলেন।
তিনি ক্ষোভের সুরে বলেন, হিন্দুত্ব কখনওই দেশভক্তি হতে পারেনা। রামচন্দ্র গুহ বলেন, 'একজন সত্যিকারের দেশভক্ত তিনিই যিনি নিজের দেশের অবনতি দেখে চুপ থাকতে পারেন না। ' তিনি বলেন দেশের ভুল শুধরে দেওয়ার মধ্যেই নিহিত থাকে দেশভক্তির বীজ। তিনি দাবি করেন বর্তমান পরিস্থিতিতে শুধুমাত্র স্বৈরতন্ত্র চলছে দেশে।


No comments

Powered by Blogger.