Header Ads

কমিউনিস্ট আদর্শ মেনে না চলায় এবার ইচ্ছেমত কোরআন আর বাইবেল লেখার সিদ্ধান্ত নিল চীন !!

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায়ঃ

গোটা বিশ্বে শান্তির বার্তা দেওয়া চীনের আসল রূপ অনেকের কাছেই স্পষ্ট নয়। চীনে লাগাতার উইঘুর মুসলিমদের উপর অত্যাচার হয়েই চলেছে। আর এরই মধ্যে চীন তাদের দেশে থাকা মুসলিমদের কণ্ঠ রোধ করার জন্য আরও একটি কঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছে। এবার চীন নিজেদের তাত্ত্বিক মতাদর্শের ভিত্তিতে কোরআন আর বাইবেল লিখতে চলেছে !


ডেইলি মেইল-এর একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, চীনের কমিউনিস্ট পার্টির এক বরিষ্ঠ নেতা বলেছেন যে, কোরআন আর বাইবেলের নতুন সংস্করণে কমিউনিস্ট পার্টির আদর্শ বিরোধী কোন কথা লেখা থাকবেনা। উনি বলেন যে, যে প্যারাগ্রাফে ভুল বোঝানো হয়েছে, সেগুলো হয় মুছে ফেলা হবে, নাহলে নতুন করে লেখা হবে।
এর মানে এই যে, কোরআন আর বাইবেলের নতুন সংস্করণে এমন কোন প্যারাগ্রাফ থাকবে না, যেটা কমিউনিস্ট পার্টির বিচারধারার সাথে মিলছে না। যদি কন্টেন্ট আর প্যারাগ্রাফে কোন ভুল লেখা হয়, তবে হয় সেটিতে সংশোধন করা হবে, নাহলে সেটিকে বদলে ফেলা হবে !
বিস্ময়ের ব্যাপার হল, এই আদেশ ন্যাশানাল কমিটি অফ দ্য চাইনা পলিটিক্যাল কন্সাল্টিভ কনফারেন্সের জাতীয় আর ধার্মিক সমিতির একটি বৈঠকে পাস করানো হয়েছে। এই সমিতি চীনে জাতীয় আর ধার্মিক মামলা গুলো বিচার বিবেচনা করে।
যদিও যে আদেশ জারি করা হয়েছে, সেটাতে বিশেষ করে বাইবেল আর কোরআনের উল্লেখ স্পষ্ট ভাবে নেই। কিন্তু এটা সম্পূর্ণ ভাবে ইঙ্গিত করছে যে, চীনের কমিউনিস্ট পার্টি এই ধরণের ধর্ম গ্রন্থ গুলোকে নতুন করে মুল্যায়ন করার কথা বলছে।
চীনে উইঘুর মুসলিমদের উপর অত্যাচারের সীমা পার করে দেওয়ার খবরের মধ্যেই এই খবর উঠে আসছে। একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, মুসলিমদের জোর করে জেল খানায় বন্দি করা হচ্ছে, তাদের পরিবারকে আলাদা করে দেওয়া হচ্ছে। এমনকি কয়েক জায়গায় তাদের জোর করে ধর্ম পরিবর্তন করার রিপোর্টও উঠে আসছে।
উইঘুর মুসলিমদের উপর চীনের অত্যাচার গোটা দুনিয়ার সামনে এসেছে। সম্প্রতি আমেরিকার সংসদে উইঘুর মানবাধিকার নীতি বিল পাস করা হয়েছে। ওই বিলে চীনে নজরবন্দি থাকা ১০ লক্ষ উইঘুর মুসলিম আর অন্যান্য মুসলিমদের কাছে যথা সম্ভব সাহায্য পৌঁছে দেওয়ার কথাও বলা হয়েছে।

No comments

Powered by Blogger.