Header Ads

নরেন্দ্র মোদি প্রধানমন্ত্রী থাকা কালীন বাংলাদেশে হিন্দুদের ওপর অত্যাচার হবে না, একজনও অসমে আসবে নাঃ হিমন্ত বিশ্ব শর্মা


বরপেটায় হিমন্ত বিশ্ব শর্মা বলেন, সেঞ্চুরি করে বিজেপি ২০২১ সালে ক্ষমতা দখল করবে


অমল গুপ্ত, গুয়াহাটীঃ বুধবার বড়দিনে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর জন্মদিন দেশ জুড়ে সুশাসন দিবস হিসেবে পালন করা হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনওয়াল, বন ও পরিবেশ মন্ত্রী পরিমল শুক্ল বৈদ্য এক অনুষ্ঠানে   প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর জীবনাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। অর্থ মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা সুশাসন দিবস উপলক্ষ্যে বরপেটা তে এক বিশাল জনসভায় অঙ্গীকার করেন আগামী ২০২১ সালে বিধানসভা নির্বাচনে সেঞ্চুরি করে বিজেপি পুনরায় ক্ষমতা দখল করবে, কেউ আটকাতে পারবে না। ‘কা’ নিয়ে আসু সহ অন্যান্য সংগঠনের গণতান্ত্রিক আন্দোলন নিয়ে তার বলার কিছু নেই, কিন্তু কংগ্রেস দল মিথ্যা নানা অভিযোগ করে  রাজ্যের সার্বিক উন্নয়নে প্রতিবন্ধিকতার সৃষ্টি করেছে বলে অভিযোগ করে হিমন্ত বলেন, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী এবং রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী প্রফুল্ল কুমার মহন্ত নাগরিকত্ব নির্ণয় এর এক চুক্তি সম্পাদন করেছিল, সেই চুক্তি অনুযায়ী ১৯৮৭ সালে বাংলাদেশ থেকে অসমে আসা ব্যক্তিদের সন্তান সন্ততিদের নাগরিকত্ব দিয়ে ভারতের নাগরিক করা হবে, আবার নরসিংহ রাও কংগ্রেস প্রধানমন্ত্রী থাকাকালেও বাংলাদেশি দের মধ্যে একজন ভারতীয় হলে পরিবারের সবকে ভারতীয়  নাগরিকত্ব দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল তখন তো কেউ আন্দোলন করে নি প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগই ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর পযন্ত অসমে আসা হিন্দু-মুসলিম উভয়কে নাগরিকত্ব দেওয়ার প্রস্তাব গ্রহণ করে ছিলেন । অথচ আজ সেই তরুণ গগই নিজের গৃহীত প্রস্তাবের বিরোধিতা করছেন। দলের প্রাক্তন সাংসদ পৃথিবী মাঝি এক সভায় চাবাগানগুলিতে পাহাড়া দিতে বলছেন নইলে ১ কোটি বাংলাদেশি এসে দখল করে নেবে। সম্পুর্ন মিথ্যা কথা বলছেন। হিমন্ত বলেন কেন্দ্রে কংগ্রেস দল থাকার সময় বাংলাদেশের হিন্দুরা নিরাপদ ছিলেন না, তাদের উপর অত্যাচার হতো, এখন কেন্দ্রে নরেন্দ্র মোদি সরকার এসেছেন, বাংলাদেশের  হিন্দুরা এখন অনেক নিরাপদ, তাদের ওপর অত্যাচার হচ্ছে না। তাই নরেন্দ্র মোদি যত দিন প্রধানমন্ত্রীর পদে থাকবেন ততদিন একজন বাঙালি হিন্দুও অসমে আসবে না। বিজেপি সভাপতি রঞ্জিত দাস ও বহু বিজেপি নেতার উপস্থিতিতে অর্থ মন্ত্রী বলেন, ‘কা’ অনুযায়ী অসমে ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর আগে যারা এসেছে, বহুবছর থেকে অসমে বসবাস করছেন। আর এক জনও আসবে না। এন আর সি ছুট মাত্র ৫ লাখ ৪০ হাজার আবেদন করবে নাগরিকত্বের জন্যে, চার লাখের বেশি হবে না। অথচ কংগ্রেস বলছে ১ কোটি ৩০ লাখ বাঙলি হিন্দু অসমে আসবে, সম্পুর্ণ ভুয়ো গুজব ছড়াচ্ছে কংগ্রেস। প্রসঙ্গত কৃষক মুক্তি সংগ্রাম সমিতির নেতা অখিল গগই  গ্রেফতার হওয়ার আগে জোরহাট এ শান্তি পূর্ণ ভাবে আন্দোলন চালিয়ে যাবার আহবান জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশ থেকে ১ কোটি ৩০ লাখ বাংলাদেশি এসে অসমের চা বাগানের সব জমি দ খল করে নেবে। ‘কা’ বিরোধী আন্দোলন কারীদের নানা অবাস্তব গুজব, অসমের পরিস্থিতি কে অগ্নিগর্ভ করে তুলেছে বলে অসম পুলিশ সোশ্যাল মিডিয়া র উপর কড়া নজর রেখেছে।

No comments

Powered by Blogger.