Header Ads

প্রধানমন্ত্রী মোদী দেখলেন সূর্যগ্রহণের দৃশ্য ! বললেন আমিও সমস্ত ভারতীয়দের মত উৎসাহিত !!

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায়ঃ

ভারতের মানুষ মহাকাশ বিদ্যায় অন্যান্য দেশের মানুষের থেকে অনেক অনেক এগিয়ে। কারণ এক সময় ভারত জ্ঞান-বিজ্ঞানে পুরো বিশ্বকে নেতৃত্ব দিত। তবে সময়ের কালখণ্ডে বহুকিছু তথ্য হারিয়ে গেছে। আজও যখন অন্যান্য দেশ গ্রহণ এর সময়সীমা দেখার জন্য NASA এর দিকে তাকিয়ে থাকে, তখন ভারতীয়রা পঞ্জিকা দেখেই তারিখ সময় নির্ঘন্ট বলে দিতে পারে। 

যখন ইউরোপ সমাজে বিজ্ঞানের আবিষ্কার হয়নি তারও আগে থেকে ভারতীয়রা গ্রহণ সম্পর্কে জানতো। কিন্তু ভারতীয়দের গ্রহণ বিশ্বাসকে কে ইউরোপের লোকজন কু-সংস্কার বলে আখ্যা দিত। বছরের সর্বশেষ সূর্যগ্রহণ আজ দেশে দেখা গেল। দেশের অনেক জায়গায় সাধারণ মানুষ এই অপূর্ব দৃশ্যটি দেখলেন। অন্যান্য দেশবাসীর মতো প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও সূর্যগ্রহণ দেখে তার ছবি টুইট করেছেন।
ছবিগুলিতে দেখা যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কয়েকজন বিশেষজ্ঞের সাথে কথা বলছেন, পাশাপাশি তাঁর কাছে বিশেষ গ্রহন দেখার চশমাও রয়েছে। তবে দিল্লিতে মেঘের কারণে সূর্যগ্রহণের
দৃশ্য দৃশ্যমান ছিল না। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী তার বিশেষ চশমার সাহায্যে এই দৃশ্য দেখেছেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী টুইট করেছেন, ‘অন্যান্য ভারতীয়দের মতো আমিও # সোলারাইক্লিপস ২০১৯-এর জন্য উচ্ছ্বসিত ছিলাম। তবে এখানে পুরোপুরি মেঘাচ্ছন্ন থাকায় আমি সূর্যকে দেখতে পেলাম না। তবে লাইভ স্ট্রিমের মাধ্যমে কোজিকোডে সূর্যগ্রহণ দেখতে পেলাম। এর পাশাপাশি আমি বিশেষজ্ঞদের সাথে কথা বলেছি এবং এটি নিয়ে আলোচনা
করেছি।
বৃহস্পতিবার রাত আটটা থেকে নানান প্রান্তে সূর্যগ্রহণ  দৃশ্যমান ছিল। তবে এটি উত্তর ভারতে দিনের বেলায় আংশিকভাবে দৃশ্যমান এবং দক্ষিণ ভারতে সম্পূর্ণ দৃশ্যমান ছিল। ভারতে সামগ্রিকভাবে সূর্যগ্রহণ চলবে বেলা ১ টা অবধি। গ্রহণের প্রভাব এতটাই তীব্র হয় যে সমুদ্রে জোয়ার ভাটা পর্যন্ত শুরু করে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। যেহেতু মানুষের দেহের ৭০% জল। তাই দেহের উপরেও গ্রহণের প্রভাব পড়ে বলে বহু মানুষের বিশ্বাস।
এ ছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর সূর্য্যগ্রহণ দেখার চশমাটির আনুমানিক দাম এবং গরীব দেশের প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে এত দামি চশমা ব্যবহার করা যুক্তিসঙ্গত হয়েছে কিনা তা নিয়েও নেটে তুমুল চর্চা শুরু হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী অবশ্য জানান নি এই বিশেষ চশমাটি তাঁর জন্য ইসরো থেকে পাঠানো হয়েছিল কিনা !

No comments

Powered by Blogger.