Header Ads

আন্দোলনের ফলে অসমের উন্নয়ন ব্যাহত হচ্ছেঃ চন্দ্রমোহন পাটোয়ারী



অমল গুপ্ত, গুয়াহাটিঃ আর্থ সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে অসম দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে কিন্তু আন্দোলনের ফলে উন্নয়ন ব্যাহত হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিক উদ্যোগে অসমে ‘এ্যডভেন্তেজ অসম’ নামে বিশ্ব শিল্প বিনিয়োগ মেলায় রাজ্যে ৬৪,৯৩০,৪৪ কোটি  টাকার ২৬৩ টি সমঝোতা চুক্তি সম্পাদিত হয়েছিল, বিশ্বের বহু কোম্পানি অসমে শিল্প উদ্যোগ গড়তে এগিয়ে এসেছে। গত ২৭ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পৌরাহিত্যে অনুষ্ঠিত বৈঠকে অসমে ব্রহ্মপুত্র গ্যাছ ক্র্যাকার কার ও পলিমার লিমিটেডের ছাড়পত্র পাওয়া গেছে, অসম চুক্তিতে এই বৃহৎ প্রকল্প নির্মাণের  কথা ছিল, কংগ্রেস সরকার ৩৪ বছরে এই শিল্প উদ্যোগ নির্মাণে কিছুই করেনি। আজ জনতা ভবনের মুখ্যমন্ত্রীর কনফারেন্স হলে এক সাংবাদিক সম্মেলনে শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রী চন্দ্র মোহন পাটোয়ারী একথা জানান। তিনি বলেন, ৪৬০০ কোটি টাকার এই প্রকল্প নির্মিত হলে কয়েক হাজার কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে। মুখ্যমন্ত্রীর মিডিয়া উপদেষ্টা ঋষিকেশ গোস্বামী এবং মুখ্যমন্ত্রীর আইনি উপদেষ্টা শান্তনু ভরালি র উপস্থিতিতে শিল্প মন্ত্রী জানিয়ে দেন জাগিরোড এবং কাছাড় পেপার মিলের কর্মচারীদের  কোয়ার্টার ছেড়ে যেতে হবে না, মিল দুটি খোলার ব্যাপারে সরকার এখনও চেস্টা চালিয়ে যাচ্ছে। বর্তমান ‘কা’ বিরোধী আন্দোলন সম্পর্কে বলেন, আন্দোলনকারীরা ভুল বুঝিয়ে ছাত্র সমাজকে বেপথে পরিচালনা করছে, এই আন্দোলনে কর্মসংস্থান এর ক্ষেত্রে বাধা পড়ছে, রাজ্যে ২২ লাখ বেকার, ৫৫ হাজার কে বিজেপি সরকার চাকরি দেওয়ার সব ব্যবস্থা করেছে। তিনি জানান, মঙলদৈ এ সরকার স্কিল বিশ্ববিদ্যালয় সহ এক মাল্টি লজিস্টিক হাব নির্মাণ করবে ৯৫০ কোটি টাকা খরচ হবে। ও এন জি সি ১০০ টি এলাকাতে খনন ও তেল উত্তোলন কাজ করবে। নুমলীগর শোধনাগার সম্প্রসারণের জন্যে ২২৫৯৪.০০ কোটি টাকা ব্যয় করা হবে, গ্যাস প্রকল্পের উন্নয়নে ৯২৬৫.০০ কোটি টাকা, বিদ্যুৎ প্রকল্প উন্নয়নে ৫০০ কোটি টাকার ও বেশি ব্যয় করা হবে। এই সব উন্নয়ন প্রকল্প  বাস্তবায়ন হলে অসমের আর্থ সামাজিক উন্নয়ন বৈপ্লবিক গতি আসবে। এদিকে আজ মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোণোয়াল ক্রীড়া সাংবাদিকদের সঙ্গে এক বৈঠকে ‘খেল ইণ্ডিয়া ২০২০’ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। আগামী ক্রীড়া মহোৎসব নিয়ে কথা বলেন। তিনি জানান প্রধানমন্ত্রী আসবেন কি না তা দুই একদিনে জানা যাবে।

No comments

Powered by Blogger.