Header Ads

ক্যাব বাতিলের দাবিতে ডিমা হাসাও জেলায় বনধ ছিল সর্বাত্মক ও শান্তিপূর্ণ

  বিপ্লব দেব, হাফলংঃ নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (ক্যাব) বাতিলের দাবিতে রাজ্যের পরিস্থিতি উত্তাল হয়ে উঠেছে। নেসোর উত্তর পূর্বাঞ্চল বনধে রাজ্যের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষিপ্ত ঘটনা সংগঠিত হলে ও ডিমা হাসাও জেলায় বনধ শান্তিপূর্ণ ভাবে পালিত হয়। উল্লেখ্য ক্যাব বাতিলের দাবিতে নর্থ ইষ্ট স্টুডেন্টস অর্গেনাইজেশন (নেসো)-র ডাকা ১১ ঘন্টার উত্তর পূর্বাঞ্চল বনধকে সমর্থন জানিয়েছিল অল ডিমাসা স্টুডেন্টস ইউনিয়ন ডিমাসা উইম্যান সোসাইটি ও ডিমাসা মাদারস অ্যাসোসিয়েশন।

 অন্যদিকে ক্যাব বাতিলের দাবিতে ডিমা হাসাও জেলা কংগ্রেস পৃথক ভাবে ক্যাব বাতিলের দাবিতে সকাল ৫ টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত ১২ ঘন্টার ডিমা হাসাও জেলা বনধের ডাক দেয়। যে বনধের প্রভাব ডিমা হাসাও জেলায় ব্যাপক ভাবে পরিলক্ষিত হয়। ক্যাব বাতিলের দাবিতে মঙ্গলবারের এই বনধে অসমের এই পাহাড়ি জেলার জনজীবন সম্পূর্ণ বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। তবে বনধ ছিল সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণ। বনধকে কেন্দ্র করে জেলার কোনও জায়গা থেকে কোনও অপ্রিতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। এদিকে ডিমা হাসাও জেলায় স্থানীয় ছুটি থাকায় উত্তর কাছাড় পার্বত্য স্বশাসিত পরিষদের অধীনে থাকা সব সরকারি বিভাগ স্কুল কলেজ এমনিতেই বন্ধ ছিল। তবে জেলাশাসকের কার্যালয় খোলা থাকলেও কর্মচারীর দের উপস্থিতি ছিল নগন্য। তবে জেলার ব্যাঙ্ক এলআইসি ও পোষ্ট অফিস সবই ছিল বনধের আওতায়। তাছাড়া জেলার সদর শহর হাফলং সহ মহকুমা সদর মাইবাং, মাহুর, হারাঙ্গাজাও, উমরাংশু প্রভৃতি এলাকায় বাজার হাট,দোকান পাট সবই ছিল বন্ধ। বনধের জেরে আজ শহরের রাস্তায় সরকারি বেসরকারি যানবাহন ও তেমন চলাচল করেনি তবে পাহাড় লাইনে ট্রেন চলাচল ছিল স্বাভাবিক। এদিকে ডিমা হাসাও জেলায় বনধ সর্বাত্মক পালিত হলে ও মঙ্গলবার শহরের রাস্তায় কোনও পিকেটার চোখে পড়ে নি।  পিকেটার ছাড়াই বনধ সর্বাত্মক পালিত হয়। এদিকে ষষ্ট অনুসূচীর অন্তর্গত ডিমা হাসাও জেলায় ক্যাব কার্যকর না হলে অসমে ক্যাব মানছে না অল ডিমাসা স্টুডেন্টস ইউনিয়ন ডিমাসা উইম্যান সোসাইটি ও ডিমাসা মাদারস অ্যাসোসিয়েশনের মত সংগঠন। ডিমাসা স্টুডেন্টস ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক পৃথ্বীরাজ হোজাই বলেন নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে বাংলাদেশ,পাকিস্তান,আফগানিস্তান থেকে এদেশে আসা সংখ্যালঘূদের নাগরিকত্ব নিশ্চিত করতে ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর সময়সীমা নির্ধারণ করেছে তা খুবই বিপদজনক বলে উল্লেখ করেন। কারন অসমে ক্যাব কার্যকর হলে নগাঁও,হোজাই,কাছাড়,করিমগঞ্জ,হাইলাকান্দি এসব জেলায় বসবাসরত ডিমাসা জনগোষ্ঠীর অস্তিত্ব সংঙ্কটের মুখে পড়বে বলে মন্তব্য করেন পৃথ্বীরাজ হোজাই। তাছাড়া অসমে ক্যাব কার্যকর হলে ভূমিপুত্রদের পরিচয় কৃষ্টি,সংস্কৃতি সবই সঙ্কটের মুখে চলে আসবে বলে মন্তব্য করেন ডিমাসা উইম্যান সোসাইটির সভানেত্রী রিংমিলা হোজাই।

No comments

Powered by Blogger.