Header Ads

আদালতের রায় শুনে খুশি হলেন রামজন্মভূমি আন্দোলনের যোদ্ধা লালকৃষ্ণ আডবাণী ! বললেন, এবার হবে মন্দির !!

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় 

প্রাক্তন উপ-প্রধানমন্ত্রী লালকৃষ্ণ আডবাণী অযোধ্যা মামলায় সুপ্রিম কোর্টের রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন। অযোধ্যার রামমন্দির আন্দোলন যাঁদের নেতৃত্বে মাত্রা পেয়েছিল তাঁদের মধ্যে একজন এল কে আদবানী। বিজেপির এই প্রবীণ নেতা যে সঙ্ঘ ঘনিষ্ঠ তা বলার অপেক্ষা রাখে না। রাম মন্দিরে বিতর্কিত জমি মামলায় একসময় তাঁরও নাম জড়িয়েছে। যদিও পরে তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ খারিজ হয়ে যায়।



সেই বৃদ্ধ নেতার বাড়িতে আজ খুশির আমেজ। সুপ্রিম কোর্টের দায় বেরোনোর পর সবচেয়ে বেশি আনন্দ তাঁরই হয়েছে। রায় শোনার পর তাই এল কে আদবানী বলেছেন, 'ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের পর সবচেয়ে বড় জনআন্দোলনের জয় হয়েছে আজ। এই আন্দোলনরে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার শক্তি আমাকে ঈশ্বরই দিয়েছিলেন। তাই তাঁকে সবার আগে ধন্যবাদ জানাই।'
অযোধ্যার বিতর্কিত জমি মামলার রায় শোনার পর উমা ভারতী তাঁর বাড়িতে ছুটে গিয়েছিলেন। প্রবীণ নেতার সঙ্গে দেখা করে তাঁর জয়ের আনন্দ ভাগ করে নিয়েছেন উমা। একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন আজ তাঁর জন্য অযোধ্যার বিতর্কিত জমি মামলার রায়দান সম্ভব হয়েছে। তিনি ছিলেন এই আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা।
২৯ বছর পর অযোধ্যা বিতর্কের অবসান ঘটিয়েছে সুপ্রিম কোর্টে। বিতর্কিত জমিতে রাম মন্দির তৈরির নির্দেশ দিয়ে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে পৃথকভাবে মসজিদ তৈরির জন্য ৫ একর জমি দান
করার নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত। এই রায় শোনার সঙ্গে সঙ্গে উচ্ছ্বাস শুরু হয়ে গিয়েছে বিজেপি ও সঙ্ঘ পরিবারের নেতাকর্মীদের মধ্যে।
এর আগে অযোধ্যা সিদ্ধান্তের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আজ দেশকে সম্বোধন করেছেন। প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেন যে আজকের সিদ্ধান্তটি ঐতিহাসিক এবং এই সিদ্ধান্ত থেকে আমাদের সহিষ্ণুতা শেখা উচিত। সুপ্রিম কোর্টের রায় নতুন সকাল নিয়ে আসবে।
উনি আরো বলেন, প্রতিটি স্তরের মানুষ এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে। আমাদেরকে নিউ ইন্ডিয়ার জন্য শপদ নিতে হবে এবং সবাইকে সাথে নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। আইনকে সম্মান করা আমাদের কর্তব্য।
এর আগে প্রধানমন্ত্রী মোদী টুইট করে বলেছেন যে, ‘সুপ্রিম
কোর্টের যে সিদ্ধান্তই অযোধ্যা নিয়ে আসবে, তা কারও জয় বা পরাজয় হবে না। দেশবাসীর কাছে আমার আবেদন এই যে আমাদের সকলের পক্ষে এই অগ্রাধিকার হওয়া উচিত যে এই সিদ্ধান্ত ভারতের শান্তি, ঐক্য ও সদিচ্ছার মহান ঐতিহ্যকে আরও জোরদার করতে হবে।’

No comments

Powered by Blogger.