Header Ads

ইতিহাস গড়ে নিজের কার্যকাল সম্পূর্ণ করা ঝাড়খণ্ডের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী হলেন রঘুবর দাস

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : ঝাড়খণ্ডের বিধানসভার নির্বাচন ঘোষণা হওয়ার সাথে সাথে মুখ্যমন্ত্রী রঘুবর দাস রাজ্যের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী হলেন, যিনি নিজের কার্যকাল সম্পূর্ণ করছেন। ঝাড়খণ্ডে নির্বাচন ঘোষণা হওয়ার পর মুখ্যমন্ত্রী রঘুবর দাস জানান, আগামী নির্বাচনে বিজেপি তাঁদের সহযোগী দল এজেএসইউ-এর সাথে জোট করেই নির্বাচনে লড়বে। দুই দলের সম্পর্ক অনেক পুরনো। আসন বণ্টন নিয়ে খুব শীঘ্রই এজেএসইউ-এর সাথে কথা হবে বলে জানান তিনি।
ঝাড়খণ্ডে ৮১টি আসনে পাঁচ দফায় বিধানসভার নির্বাচন হবে। ৩০ নভেম্বর থেকে ঝাড়খণ্ডে নির্বাচন শুরু হবে, আর ২০ ডিসেম্বর শেষ হবে। ২৩ ডিসেম্বর নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করা হবে। ২০১৪ সালেও রাজ্যে পাঁচ দফায় ভোট করানো হয়েছিল। ২০১৪ সালের ২৮ ডিসেম্বর রঘুবর দাস মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেন। রঘুবর দাস ঝাড়খণ্ডে প্রথম অ-আদিবাসি মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন। জনজাতি বহুল ঝাড়খণ্ডে ৮১টি বিধানসভা আসনের মধ্যে ২৮ টি আসন অনুসুচিত জনজাতি (এসটি) দের জন্য সংরক্ষিত।
বিহার থেকে আলাদা হয়ে ২০০ সালে ঝাড়খণ্ড রাজ্য তৈরি হয়েছিল। বিজেপির বাবুলাল মরান্ডি ঝাড়খণ্ডের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন। কিন্তু ২০০৩ সালের মার্চ মাসে মাত্র দুই বছরেই ওঁর মুখ্যমন্ত্রী পদ চলে যায়। এরপর অর্জুন মুন্ডা মুখ্যমন্ত্রী হন। উনি ২০০৫ সালের বিধানসভা নির্বাচন পর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রী থাকেন। ২০০৫ সালে ৩০ টি আসন জিতে বিজেপি সবথেকে বড় দল হয়ে উঠে আসে।
এছাড়াও ২০০৫ সালে জেএমএম ১৭, কংগ্রেস ৯ আর রাষ্ট্রীয় জনতা দল ৭ টি ছাড়াও জনতা দল ইউনাইটেড ৬ টি আসন পেয়েছিল। সেইসময় জেএমএম প্রধান শিবু সোরেন মুখ্যমন্ত্রী হন। কিন্তু সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ না করতে পারার জন্য মাত্র ১০ দিনেই ওনাকে আসন ছাড়তে হয়। এরপর বিজেপির অর্জুন মুন্ডা দ্বিতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেন। উনি ৬ই ডিসেম্বর ২০০৬ পর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন।
অর্জুন মুন্ডার পর নির্দলীয় বিধায়ক মধু কোড়া মুখ্যমন্ত্রী হন। কিন্তু দুই বছর পর ২০০৮ এর আগস্ট মাসে তাঁকে ইস্তফা দিতে হয়। ২০০৮ থেকে ২০১০ পর্যন্ত শিবু সোরেন দু’বার মুখ্যমন্ত্রী হন, আর দু’বারই রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হয়। 
২০০৯ সালে রাষ্ট্রপতি শাসনের পর বিজেপির অর্জুন মুন্ডা তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হন। আর ২০১৩ সাল পর্যন্ত উনি ওই পদে বহাল থাকেন। জুলাই ২০১৩ সালে রাজ্যে ফের রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হয়। রাষ্ট্রপতি শাসন উঠে যাওয়ার পর হেমন্ত সোরেন ২০১৪ এর বিধানসভা নির্বাচন পর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রী পদে বহাল ছিলেন। এরপর ২০১৪ সালে বিজেপি ক্ষমতায় আসে, আর রঘুবার দাস প্রথমবার রাজ্যে নিজের কার্যকাল সম্পূর্ণ করেন।

No comments

Powered by Blogger.