Header Ads

বিপিএফ নেতাদের ঘরে বেআইনি অস্ত্রশস্ত্র মজুত আছে, অভিযোগ কোচরাজ বংশী নেতা বিশ্বজিৎ রায়-সাংসদ নব শরনিয়া

অমল গুপ্ত, গুয়াহাটি : "বড়োল্যান্ডের ঐতিহাসিক কোনও পটভূমি নেই। মাত্র ৪টি ছোট জেলাকে নিয়ে বিটিসি গঠন করা হয়েছে। ৮ লাখ বড়ো জনগোষ্ঠীর মানুষ ও রাভা, আদিবাসীদের নিয়ে প্রায় ১২ লাখ। তা সত্ত্বেও লাখ লাখ অবড়ো মানুষের উপর শাসন চালাচ্ছে।" এই অভিযোগ কোচ রাজবংশী জাতীয় মহাসভার সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ রায়ের।
তাঁর আরও অভিযোগ, ঐতিহাসিক কামাতাপুর ভূমিতে অধিক ক্ষমতাধর কেন্দ্রীয় শাসিত অঞ্চল স্থাপন করতে চাইছে। এনডিএফবি'র সঙ্গে গোপন আঁতাত করে কেন্দ্রীয় সরকার গভীর চক্রান্তে লিপ্ত হয়েছে। সাংসদ নব সরনিয়া সংসদে বড়োল্যান্ডের বিরোধিতা করেননি। বড়োল্যান্ডে অবৈধ অস্ত্রসস্ত্রের ভান্ডার সম্পর্কে একটি শব্দও উচ্চারণ করেননি তিনি। 
আজ কোকঝাড়ের সাংসদ নবকুমার শরনিয়া সব অভিযোগ খন্ডন করে বলেন, আমার তৈরি রাজনৈতিক দল আগামী বিটিসি নির্বাচনে জয়লাভ করবে। গণ সুরক্ষা পার্টি বিটিসি দখল করবেই। মন্ত্রী প্রমীলারানি ব্রহ্ম দলে যোগ দেবেন। এছাড়া বিটিসি প্রধান হাগ্রামা মহিলারিকেও দলে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানাব।' বিশ্বজিৎ রায়ের মতো তিনিও অভিযোগ করে বলেন, 'এখনও বিপিএফ নেতাদের ঘরে অস্ত্রসস্ত্রের বিশাল ভাণ্ডার রয়েছে।'

No comments

Powered by Blogger.