Header Ads

রাজ্যপাল ধনকড় একাই নন, মমতার সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়েছেন পূর্বসূরি ত্রিপাঠী-নারায়ণনও

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হিমশীতল সম্পর্ক একেবারেই নতুন বিষয় নয়। এর আগেও একাধিকবার একাধিক রাজ্যপালের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক তিক্ততার পর্যায়ে পৌঁছেছিল। রাজ্যের সঙ্গে সংঘাত লেগেই ছিল রাজ্যপালের। জগদীপ ধনকড়ের ক্ষেত্রে এটা বড্ড বেশি তাড়াতাড়ি ঘটে গিয়েছে। অন্যদের ক্ষেত্রে দেরিতে শুরু হয় সংঘাত।
মঙ্গলবার দুই ২৪ পরগনা জেলায় প্রশাসনিক বৈঠক করতে গিয়েছিলেন রাজ্যপাল। কিন্তু কোনও জনপ্রতিনিধি বা শীর্ষস্থানীয় আধিকারিক উপস্থিত হননি বৈঠকে। তার জেরে চূড়ান্ত অপমানিত বোধ করেন রাজ্যপাল। এরপর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন রাজ্যপাল জগদীর ধনকড়। জুলাই মাসে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে ধনকড় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তাঁর তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের বিরুদ্ধে সরব হন। দুর্গা-কার্নিভালে ডেকে নিয়ে গিয়ে তাঁকে অপমানিত করা হয়েছে বলে সম্প্রতি অভিযোগ তোলেন রাজ্যপাল। এই ঘটনায় তাঁর মর্যাদায় আঘাত লেগেছে বলেও চাঞ্চল্যকর অভিযোগ রাজ্যপালের। 
১৯ সেপ্টেম্বর যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কেন্দ্রীয়মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে উদ্ধার করতে যান রাজ্যপাল স্বয়ং, তখন থেকেই বিরোধিতার সূত্রপাত। তাঁর বিরুদ্ধে সাংবিধানিক সীমানা ছাড়িয়ে যাওয়ার পাল্টা অভিযোগও আনা হয়। তিনি স্বারাষ্ট্রমন্ত্রকের কাছেও রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। 
এই আট বছরের মেয়াদে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী তিনজন গভর্নরের সঙ্গে কাজ করেছেন। তাঁদের সবাইই মমতার সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়েছিলেন। রাজ্য সরকার এবং গভর্নরের কার্যালয়ের মধ্যে সরাসরি দ্বন্দ্ব শুরু হয়েছিল এমকে নারায়ণনের। তিনি ২০১৩ সালে রাজ্যে রাজনৈতিক সংঘর্ষকে 'গুন্ডিজম'-এর উদাহরণ হিসাবে অভিহিত করেছিলেন। 
তাঁর উত্তরসূরি কেশারী নাথ ত্রিপাঠি এনডিএর নিয়োগপ্রাপ্ত। তিনি ২০১৫ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি এবং রাজ্যের রাজনৈতিক সংঘাতের সমালোচনা করে মমতা সরকারকে বারবার কাঠগড়া তোলেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দেখা করে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে একটি প্রতিবেদনও জমা দেন তিনি এখন আরও কঠোর পদক্ষেপ নিয়ে রাজ্যে উপস্থিত হাজির জগদীপ ধনকড়।

No comments

Powered by Blogger.