Header Ads

ধর্মের ভিত্তিতে নাগরিকত্ব ! অমিত-বিক্রমে বিভ্রান্তি ছড়ানোয় পাল্টা আর এক অমিতের

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : ধর্মের ভিত্তিতে নাগরিকত্ব প্রদানের ঘোষণা কি আদৌ সংবিধান সম্মত। অমিত শাহ উৎসবের মরশুমে বাংলায় এসে এনআরসি আতঙ্ক ছড়ানোয় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করলেন আর এক অমিত বাংলার অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। তিনি বলেন, অমিত শাহ উৎসবের মরশুমে এসে যে আচরণ করে গেলেন, তা বাংলার মানুষ কোনওদিন ক্ষমা করবেন না।
অমিত মিত্র মনে করেন, বাংলায় এসে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে গেলেন অমিত শাহ। কে অনুপ্রবেশকারী কে শরণার্থী সেই বিভাজন দেখিয়ে তিনি বিভ্রান্ত করলেন। বললেন, হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈন, শিখ, খ্রিস্টানদের নাগরিকত্ব প্রদান করা হবে। তাঁরা হলেন শরণার্থী। কিন্তু অনুপ্রবেশকারীদের কোনও স্থান দেওয়া হবে না। তাঁর তির শুধু মুসলিমদের দিকে। এভাবেই তিনি রাজ্যের মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে গেলেন। 
অমিত মিত্র এ প্রসঙ্গেই প্রশ্ন তোলেন, এভাবে কি ধর্মের ভিত্তিতে নাগরিকত্ব প্রদান করা যায়। এই ঘোষণা কি ভারতীয় সংবিধানের সঙ্গে খাপ খায়? ভারতে বহুত্ববাদকেই ধ্বংস করবে এই সিদ্ধান্ত। অমিত মিত্র বলেন, দুর্গাপুজোর সময় এসেছেন, বাংলার কৃষ্টি-সংস্কৃতি দেখুন, উপভোগ করুন। কিন্তু তার বদলে ভারতীয় সংস্কৃতিকেই ধ্বংস করছে তাঁর সিদ্ধান্ত।
উল্লেখ্য, অমিত শাহ বিভ্রান্তি ছড়িয়ে এদিন বলে যান, আগে আসবে সিটিজেন অ্যামেন্ডমেন্ট বিল। তারপর এনআরসি নিয়ে ভাবা হবে। এই বিলে হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈন, শিখ, খ্রিস্টানরা নাগরিকত্ব পাবেন। তাঁরা প্রধানমন্ত্রীও হতে পারেন। আর দেশে একজন অনুপ্রবেশকারীরও ঠাঁই নেই।

No comments

Powered by Blogger.