Header Ads

অষ্টমীতে মণ্ডপে মণ্ডপে ভক্তের ভীড়। অঞ্জলী প্রদান,সন্ধিপুজা ও কামাখ্যাতে হলো কুমারী পুজা



দেবযানী পাটিকার,গুয়াহাটি  ।আজ মহাষ্টমী ,সকাল থেকেই মণ্ডপে -মণ্ডপে ছিল ভক্তের ভীড় ।নিয়ম মেনে মার পূজা ও সন্ধি পূজা করা হয়। অষ্টমীতে অঞ্জলি প্রদানের জন্য প্রতিটি মণ্ডপে ভীড় ছিল দেখার মতো।  প্রথা অনুযায়ী কামাখ্যা সহিত 
বিভিন্ন শক্তিপীঠে হয়েছে বলি বিধান । নীলাচল পাহাড় স্থিত বিখ্যাত শক্তিপীঠ কামাখ্যা ধাম ৫১ শক্তি পীঠের অন্যতম শক্তিপীঠ ।কামাখ্যা ধামে দূর্গা পূজার ও নাবরাত্রির   জন্য ভক্তের ভিড় উপচে পড়েছে। দেশ-বিদেশ থেকে বিভিন্ন ভক্তরা কামাখ্যা ধামে উপস্থিত হয়েছে। কামাখ্যা ধামে কুমারী পূজা অন্যতম । নিয়ম মেনে কামাখ্যা তে কুমারী পুজা প্রতিপদ থেকে শুরু করা হয়  ও দশমী পর্যন্ত চলে। এখানে বিভিন্ন পূজার মধ্যে দুর্গাপূজা অন্যতম।১৫ দিন আগে থেকেই এখানে পূজা শুরু হয়ে যায় ।এবারও এর ব্যতিক্রম হয়নি। মান্যত রয়েছে  যে মহামায়া দেবী এখানে কুমারী রূপে বিরাজমান  থাকেন এবং  কুমারী পূজা করলে সমস্ত মনোকামনা পূর্ণ হয়।



 কামাখ্যা তে বিভিন্ন পূজার মধ্যে দুর্গাপূজা অন্যতম।  দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে কামাখ্যা মন্দির কে সম্পূর্ণভাবে ফুল দিয়ে সাজানো হয়েছে। দেশ-বিদেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে মন্দির সাজানোর জন্য  ভিভিন্ন ফুল আনা হয়েছে ।অষ্টমীর দিনে নগরের সমস্ত পূজামণ্ডপগুলোতে ছিল দর্শনার্থীর ভিড়।  মণ্ডপে -মণ্ডপে ঘুরে পূজার আনন্দ নিতে সকাল থেকেই সমস্ত প্যান্ডেলে লোক ভীড় জমিয়েছে। বিষ্ণুপুর সার্বজনীন সমিতির এবার অযোধ্যার রাম মন্দিরের আদলে তৈরি করেছে পূজামণ্ডপ ।






রবিবার এই পূজা দেখতে আসেন মুখ্য মন্ত্রী।কলাপাহাডের সুভাষ সংঘের  পূজা আধ্যাত্মিকতা , ও সাবেকিয়ানা বৈদিক পরম্পরা পালন করা হয়েছে। কুমার পাড়ার নয়নতারা ক্লাব চিপকো আন্দোলনকে তুলে ধরেছে  লতাশীলে এবার রাজস্থানের বিশাল মহল তৈরি করা হয়েছে। গীতানগর ,কালাপাহাড়,লতাশীল,পল্টন বাজার, ওদালবাকরা, গুয়াহাটি স্টেশন কলোনী, প্রত্যেকটি পূজামণ্ডপে দর্শনার্থীর ভিড় পরিলক্ষিত হয়েছে। আমিনগাঁয়ের দীর্ঘ্যেশ্বরী মন্দিরে পরম্পরা অনুযায়ী দূর্গা পূজা করা হয়। ছাত্রীবাড়িতে  কালীবাড়িতে চন্দ্রযান দেখানো হয়েছে ।




বিভিন্ন  মডেল দিয়ে তৈরি করা হয়েছে মণ্ডপ ।শিশুদের আকর্ষণের জন্য প্রযুক্তিবিদ্যাকে তুলে ধরা হয়েছে  । খ্রিস্টান বস্তির সার্বজনীন দুর্গাপূজা সমিতি বাশ বেঁত ইত্যাদি ঘরের সামগ্রী দিয়ে মণ্ডপ তৈরি করেছে। ৫০ বছর অতিক্রম করেছে এই পূজা ।পূজা দেখতে  দর্শনার্থীরা ভিড় জমিয়েছে। উজান বাজারের বারোয়ারি পূজা এবার ১৩০ বছরের দুর্গোৎসব পালন করছে।  পরম্পরা এবং সাবেকিয়ানা সম্পূর্ণভাবে নিয়ম মেনে পুজা করা হয়েছে এখানে ।টোকো বাড়ি বারোয়ারি  ইকোফ্রেন্ডলী পূজা ।



সুন্দর করে গাছের পাতা ,ফুলের বিচি ,গেছেন ছাল দিয়ে প্যান্ডেল তৈরি করা হয়েছে । স্থানীয় শিল্পীরা তৈরি করেছেন এই মন্ডপ ।এটা তৈরি করতে লেগেছে দুই মাস। এছাড়াও রেল।নগরী মালিগাঁওএর রেস্ট ক্যাম্প,ও ফাঁসি বাজার ইত্যাদি জায়গায় অষ্টমীর দিন প্রচুর দর্শনার্থীর ভিড় হয়েছে।

No comments

Powered by Blogger.