Header Ads

বেসরকারিকরনের পথে ১৫০টি রুটের ট্রেন ও ৫০টি রেলস্টেশন, তৈরি হচ্ছে বিশেষ টাস্ক ফোর্স

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : আশঙ্কা সত্যি হতে চলেছে। বেসরকারিকরনের পথে ১৫০টি ট্রেন। ৫০টি রেলস্টেশন। যদিও সেটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য। তার ব্লু প্রিন্ট তৈরির জন্য টাস্কফোর্স গড়েছে রেল। নীতি আয়োগের সিইও অমিতাভ কান্ত এবং রেলওয়ে বোর্ডের চেয়ারম্যান ভিকে যাদব একটি চিঠিতে জানিয়েছেন এই প্রক্রিয়া শুরু জন্য একটি টাস্ক ফোর্স তৈরি করা হয়েছে।
তাতে ভিকে যাদব এবং কান্ত ছাড়াও রয়েছেন, অর্থমন্ত্রকের সচিব এবং নগরোন্নয়ন মন্ত্রকের সচিব। তাঁরা জানিয়েছেন রেলের তরফে পরিকল্পনা করা হয়েছে দেশের প্রায় ৪০০টি রেলস্টেশনকে আন্তর্জাতিক মানের উন্নত রেলস্টেশনের পর্যায়ে পৌঁছে নিয়ে যাওয়া। তারমধ্যে খুব কম সংখ্যাক রেলস্টেশনেই এই প্রক্রিয়া শুরু করা গিয়েছে। 
প্রথম পর্যায়ে কমপক্ষে ৫০টি রেলস্টেশনের বেসরকারিকরণ অত্যন্ত জরুরি বলে জানিয়েছেন তাঁরা। ঠিক যেভাবে দেশের ৬টি বিমানবন্দরের বেসরকারিকরণ করা হয়েছে, সেভাবেই এগোবে রেলস্টেশনের বেসরকারিকরণের কাজ। রেলস্টেশনের ধাঁচেই ১৫০টি ট্রেনেরও বেসরকারিকরণ করা হবে। এমনকী লোকাল ট্রেনেরও বেসরকারিকরণ করা যায়কিনা সেটাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
রেলওয়ে বোর্ডের ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সদস্য এবং রেলওয়ে ট্রাফিকের একজন করে প্রতিনিধিকেও এই বিশেষ দলে রাখার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। তার সূচনা ইতিমধ্যেই হয়ে গিয়েছে। গত ৪ অক্টোবর লখনউ-দিল্লি রুটের তেজস এক্সপ্রেসের সূচনা হয়েছে। সেটাই প্রথম এমন ট্রেন যা বেসরকারি হাতে চলছে।

No comments

Powered by Blogger.