Header Ads

অর্থনৈতিক সংকট কাটাতে একগুচ্ছ দাওয়াই প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ডঃ মনমোহন সিংহের

নয়া ঠাহর প্রতিবেদন : হিন্দু বিজনেস লাইন একটি সাক্ষাৎকার প্রকাশ করেছে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ডঃ মনমোহন সিংহের। তাতে অনেকটাই অকপট প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী। বরাবর অর্থনৈতিক সংস্কারপন্থী মনমোহন তাঁর প্রথম দফায় সংস্কারের পথে হাঁটতে চেয়েছিলেন পূর্ণোদ্যমে। কিন্তু  বামেদের সমর্থনে সে সময়ের ইউপিএ সরকার টিকে থাকায়  তেমনভাবে সংস্কারের চাকা গড়াতে পারেননি মনমোহন। দ্বিতীয় দফার ইউপিএ সরকারেরও খুচরো ব্যবসায় প্রত্যক্ষ বিদেশি লগ্নি বা ভর্তুকি কমানোর মতো বিষয়ে সে সময়ের বড় শরিক তৃণমূল কংগ্রেসের বাধায় বেশি দূর এগোতে পারেননি।
একসময় বিজেপি যাঁকে মৌনমোহন বলে কটাক্ষ করতে সেই মনমোহনই সাক্ষাৎকারে অনেক কিছুই স্পষ্ট করেছেন। তাঁর কথায় সংকট তৈরি হয়েছে এবং তা স্বীকার করতে হবে বিজেপির। তিনি আশঙ্কা করেছেন, অর্থনৈতিক ব্যবস্থার গঠনগত কারণে তৈরি হয়েছে এই সংকট। এটা চক্রাকারে ফিরে আসার সম্ভাবনা রয়েছে।
তিনি কয়েকটি উপায় বাতলেছেন যার জেরে অর্থনৈতিক মন্দা থেকে পরিত্রাণ সম্ভব বলেই মনে করছেন এই অর্থনীতিবিদ।জিএসটি সহজ করতে হবে। নোটবন্দির পর তাড়াহুড়ো করে পণ্য পরিষেবা কর চালু করায় টাল সামলাতে পারেননি ব্যবসায়ীরা। জিএসটি-র হার কমিয়ে গঠন প্রক্রিয়া যত দ্রুত সহজ করা হবে ততই মঙ্গল। যদি এতে সরকারি রাজস্বে স্বল্পমেয়াদে ঘাটতি হয় তাও সমস্যা নেই বলে মত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর।
বাজারে নগদ জোগান বাড়ানোর ওপরও জোর দেন তিনি। সামগ্রিকভাবে চাহিদা কমেছে বাজারে, যার জেরে উৎপাদন মার খেয়েছে শিল্পে। গ্রামীণ চাহিদাকে নজরে রাখতে হবে যার জন্য নজর দিতে হবে কৃষিক্ষেত্রে। কৃষি পণ্য রফতানির সুযোগ বাড়াতে হবে। বস্ত্র , রিয়েল এস্টেট, ইলেকট্রনিক্স, গাড়ি শিল্পকে উৎসাহ দিতে হবে, নজর দিতে হবে পৃথকভাবে। কারণ, এই শিল্পগুলি কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করে।রফতানি বাজারও বাড়াতে হবে। নতুন বাজারের সন্ধান করতে হবে। যাতে রফতানি মার না খায়।
মোদীর সমালোচনা করে মনমোহন বলেন, "খবরের কাগজের হেডলাইন ছেড়ে প্রকৃত সমস্যার দিকে তাকান। স্রেফ রাজনীতি করে ও টুকরো কিছু ব্যবস্থা নিয়ে এই সংকট মোকাবিলা অসম্ভব। আমূল সংস্কার দরকার, যাতে চটজলদি কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হয়।" মনমোহন আরও বলেন, পরপর দু'বার নিরংকুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে ওরা কিন্তু আমি সেই সুযোগ পাইনি।
পর্যবেক্ষক মহলের মতে, এর পেছনে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যও  রয়েছে কংগ্রেসের। বারবার তাঁকে বিবৃতি দেওয়ার কথা বলছে হাইকমান্ড। মনমোহনকে দিয়ে কংগ্রেস বোঝাতে চায়, রাজনীতিটাই বোঝেন মোদী, অর্থনীতি সামলানো তাঁর কাজ নয়।

No comments

Powered by Blogger.