Header Ads

তৃণমূলকে আক্রমণ করতে গিয়ে বাঙালিকেই ছোট করে বসলেন দিলীপ ঘোষ, পাল্টা কটাক্ষ তৃণমূলের

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : তৃণমূলকে আক্রমণ করতে গিয়ে নিজেকে ছোট করে বাঙালি জাতিকেই অপমাণের অভিযোগ উঠল বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে। হুগলির পুরশুড়ার তিনি বলেন, বাঙালি মানেই এখন চোর চিটিংবাজ। দিলীপ ঘোষের এই বক্তব্যের জেরে পাল্টা আক্রমণ করেছে তৃণমূলও। তাদের প্রশ্ন, দিলীপ ঘোষ কি বাঙালি নন। তাহলে তো তিনিও চোর-চিটিংবাজ।
পুরশুড়ায় বিজেপির সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করলেন দিলীপ ঘোষ। তাঁর প্রশ্ন দিদিমনি কতদিন ভোট আটকাবেন। ভোট না করে যদি কেউ মনে করেন, ক্ষমতা ভোগ করবেন, তাহলে তাঁর কপালে দুঃখ আছে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে উদ্দেশ্য করে দিলীপ ঘোষকে বলতে শোনা যায়, দিদিমনি আপনার দিন শেষ। আপনাকে আর কষ্ট করে নবান্নে উঠতে হবে না। বাংলার মানুষ বিকল্প খুঁজে নিয়েছে বলেও মন্তব্য করেন দিলীপ ঘোষ।
দিলীপ ঘোষ বলেন দলের কর্মীদের ওপর প্রায় ২৮ হাজার মামলা চলছে। তাঁর বিরুদ্ধেই ২২ টি মামলা চলছে। দিলীপ ঘোষ বলেন, পুলিশ বলছে তিনি(দিলীপ ঘোষ) নাকি মার্ডার করতে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, এখনও তো মার্ডার শুরু করেননি। যদি তা শুরু করেন, তাহলে খুঁজে পাওয়া যাবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
রাজ্য জুড়ে বেশ কিছু পুরসভার মেয়াদ শেষ হয়েছে। কিন্তু সরকার সেগুলিতে নির্বাচন করানোর ব্যাপারে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেনি। এপ্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন, গ্রাম থেকে শহর, শিক্ষিত থেকে অশিক্ষিত, সবাই বিজেপিকে চাইছে। সেই কারণে দিদি ভয় পেয়েছেন। সেই জন্যই ১৫ টি পুরসভা এবং ২ টি কর্পোরেশনের ভোট আটকে রাখা হয়েছে। অভিযোগ করেছেন দিলীপ ঘোষ।
রাজ্য জুড়ে তোলাবাজি বন্ধে তৃণমূলকে হারানোর ডাক দিয়েছেন দিলীপ ঘোষ। সেই সময়ই তিনি বিতর্কিত মন্তব্যটি করেন। বাঙালি মানেই আজ চোর চিটিংবাজ হয়ে গিয়েছে। বদনাম ঘোচাতে পশ্চিমবঙ্গে পরিবর্তনের ডাক দেন তিনি।

No comments

Powered by Blogger.