Header Ads

মোদির "ম্যান ভার্সেস ওয়াইল্ড" শো অতুল্য ভারত প্রচার অভিযানকে দেবে এক নতুন মাত্রা




দেবযানী পাটিকর। সর্বত্র চর্চিত এখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দুঃসাহসিক অভিযান "ম্যান ভার্সেস ওয়াইল্ড শো"।ডিসকভারি চ্যানেলে সোমবার রাত ৯টায় এটা  সম্প্রসারণ করা হয়েছে । সোশ্যাল মিডিয়াতে খুব জনপ্রিয় হয়েছে শোটি । এই জনপ্রিয় টিভিশো টির এপিসোড পশু সংরক্ষণ ও পর্যাবরণ পরিবর্তনের  সচেতনতা প্রসারের উদ্দেশ্যে বানানো হয়েছিল ।গৃহমন্ত্রী অমিত শাহ থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মন্ডলের অনেক মন্ত্রীরাই পিএম মোদিকে এই এপিসোড দেখার জন্য টুইট করেছেন এবং দেখার পরে খুব প্রশংসাও করেছেন।  এর সম্পূর্ণ শুটিং খুবই চ্যালেঞ্জিং ছিল বলে জানা গেছে। প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির ম্যান ভার্সেস ওয়াইল্ড' এ প্রবুদ্ধ হয়ে পর্যটন মন্ত্রণালয় অতুল্য ভারত প্রচার অভিযানে (incredible India campaign )পরবর্তী দুই মাসের জন্য বন্য প্রাণীকে এর থিম হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করেছেন।এই শোটি ১৮০টি দেশে ৮ টি ভাষাতে প্রারম্ভিক সম্প্রচার করা হয়েছে। পর্যটন মন্ত্রালয় থেকে প্রাপ্ত সূত্র মতে অতুল্য ভারত বন্য প্রাণী প্রচার অভিযানে অসমের কাজিরাঙা রাষ্ট্রীয় উদ্যানকে মুখ্য রূপে তুলে ধরা হবে।সার্ভাইভেলিস্ট তথা এডভেঞ্চারস বেয়র গ্রিলসের সাথে মোদির ম্যান ভার্সেস ওয়াইল্ডের বিশেষ খন্ড উত্তরাখণ্ডের জিম করবেট রাষ্ট্রীয় উদ্যানে শুট করা হয়েছিল।পর্যটন মন্ত্রণালয় আশাবাদী যে ম্যান ভার্সেস ওয়াইর্ল্ড নিশ্চিতভাবে ভালো ফল দেবে । পর্যটন মন্ত্রী প্রহ্লাদ প্যাটেল অতুল্য  ভারত অভিযান নিয়ে উৎসাহী। অতুল্য ভারত অভিযান ২০০২ সানে পর্যটন মন্ত্রণালয়ের আরম্ভ করা এক আন্তর্জাতিক প্রচার অভিযান ।অতুল্য ভারত প্রচারাভিযানে জিম করবেট রাষ্ট্রীয় উদ্যানের সাথে কাজিরাঙ্গা রাষ্ট্রীয় উদ্যানকেউ মুখ্য ভাবে তুলে ধরা হবে ।কাজিরাঙ্গা রাষ্ট্রীয় উদ্যানের দুই-তৃতীয়াংশ এক শিং গন্ডারের বসতি। এটি ইউনিসেফ বিশ্ব ঐতিয্যের ক্ষেত্রে মর্যাদাপ্রাপ্ত।এই উদ্যানে রয়েছে বৃহৎ সংখ্যক হাতী, বন্য মোষ, আর হরিণ। উল্লেখ্য যে বিশ্বের সুরক্ষিত অঞ্চলসমূহের মাঝে কাজিরাঙ্গা রাষ্ট্রীয় উদ্যানে বাঘের উপস্থিতির ঘনত্ব সবচেয়ে বেশি ।আর একে ব্যাঘ্র সংরক্ষিত অঞ্চল হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।


উল্লেখ্য যে এর ম্যান ভার্সেস ওয়াইল্ড' এর শুটিং  করবেট রাষ্ট্রীয় উদ্যানের করার সময় ওখানে মৌজুদ প্রধানমন্ত্রীর  দুই  আধিকারী এই শুটিংয়ের  সাথে সম্পর্কিত অনেক কথাই বলেছেন ।তারা নির্মাতা কে আগেই বলেছিলেন যে প্রধানমন্ত্রী শাকাহারী তাই খাবারের জন্য অন্য কিছু চিন্তা করতে হবে। পরে ভাবা হয়েছে যে পিএম নিজের সাথে গরম জল ও লেমন টি নিয়ে নেবেন ।সম্পূর্ণ শুটিংয়ে প্রধানমন্ত্রী বেশিরভাগ সময় জঙ্গলে কাটিয়েছেন লেমন টি খেয়ে।প্রধানমন্ত্রী সবসময় সহজ থেকেছেন।তিনি জঙ্গলে কাটানো অনুভবকে শেয়ার করেছেন। বেয়র গ্রিলসকে প্রধানমন্ত্রীর নিজের ছোটবেলার কথা বলেন। কথাবার্তার সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন যে গত ১৮ বছরে এটা তার প্রথম ছুটি ।এর আগে মুখ্যমন্ত্রী থাকার সময় এমনকি প্রধানমন্ত্রী থাকার সময় তিনি ছুটি নেননি ।গত পাঁচ বছরে তিনি নিজের দেশের বিকাশ ও  উন্নতির কথার দিকে বেশি ধ্যান দিয়েছেন। এখানে তিনি স্রেফ প্রকৃতির আনন্দ নিয়েছেন ।এছাড়া পুরানো দিনের অনেক কথা শেয়ার করেছেন । হোস্ট বেয়র গ্রিলসের সাথে নদীর ঠান্ডা জলে তিনি রাফট বোটে চড়েছেন। এই অ্যাডভেঞ্চারের মাধ্যমে তিনি সংরক্ষণ ও স্বচ্ছতা ইত্যাদি বিষয়ের ওপরেও কথা বলেন। বেয়র গ্রিলস এর আগে বারাক ওবামার সাথেও শো করেছিলেন।

No comments

Powered by Blogger.