Header Ads

কংগ্ৰেসের সভাপতি নিৰ্বাচন নিয়ে গান্ধী পরিবারকে সমালোচনা বিজেপির

নয়া ঠাহর ওয়েব ডেস্কঃ দীৰ্ঘ দুমাসেরও বেশি সময় ধরে চেষ্টা করেও সভাপতি পদের যোগ্য প্ৰাৰ্থী বেছে নিতে পারল না কংগ্ৰেস। ঘুরে ফিরে গান্ধী পরিবারের হাতেই উঠেছে দলের রাশ। সনিয়া গান্ধীকে অন্তৰ্বতীকালীন  সভাপতি করা হয়েছে।  রাহুল গান্ধীকে সভাপতি পদে বহাল থাকার জন্য বারে বারে অনুরোধ তথা সব ধরনের চেষ্টা করেও তাঁকে এই পদে রাখা গেল না। 
 ছবি, সৌঃ আন্তৰ্জাল

এনিয়ে দেশের পুরনো এই রাজনৈতিক দলটিকে বিঁধলেন বিজেপি নেতৃত্ব। গান্ধী পরিবারের লোকজন নিজেদের মধ্যে মিউজিক্যাল চিয়ার খেলছেন বলে কটাক্ষ করেছে বিজেপি।
লোকসভা নিৰ্বাচনে ফলাফল বেরনোর পর ব্যৰ্থতার দায় স্বীকার করে সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন রাহুল গান্ধী। তারপর এতোগুলো দিন পেরিয়ে গেলেও এখনও সভাপতি নিৰ্বাচন করতে পারেনি কংগ্ৰেস। শনিবারও কংগ্ৰেসের ওয়াৰ্কিং কমিটির বৈঠকেও কোনও সমাধান বেরিয়ে এল না। এদিন ওয়াৰ্কিং কমিটির বৈঠকের পরই যতদিন না পৰ্যন্ত দলের সভাপতি ঠিক হচ্ছে সোনিয়া গান্ধীকে অন্তৰ্বতীকালীন সভাপতি করা হয়েছে।

রোববার সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হন বিজেপির মুখপাত্ৰ সম্বিত পাত্ৰ। সেখানে তিনি বলেন- ‘‘শেষ পৰ্যন্ত গান্ধী পরিবারেই আস্থা রাখল কংগ্ৰেস। সোনিয়া গান্ধীর হাত থেকে রাহুল গান্ধী, সেখান থেকে আবার সোনিয়া গান্ধী, মিউজিক্যাল চেয়ার চলছে বলে মনে হচ্ছে। তবে এক্ষেত্ৰে একটা পরিবারের জন্যই গান বাজনা হচ্ছে। কংগ্ৰেস সভাপতি হিসেবে রাহুল গান্ধী যে একেবারেই ব্যৰ্থ ছিলেন, এতে সেকথা আরও একবার প্ৰমাণিত হল।’’

তবে শুধু সম্বিত পাত্ৰই নন, সোনিয়াকে সভাপতি পদে বসানোয় কংগ্ৰেসকে বিঁধেছেন মধ্যপ্ৰদেশের প্ৰাক্তন মুখ্যমন্ত্ৰী তথা বিজেপির প্ৰবীণ নেতা শিবরাজ সিং চৌহানও। সংবাদ মাধ্যমকে তিনি বলেছেন- কখনও শিক্ষা হবে না কংগ্ৰেসের। আশ্চৰ্যের বিষয় হল, সভাপতি হিসেবে এখনও রাহুল এবং সোনিয়াকেই চাইছে কংগ্ৰেস ওয়াৰ্কিং কমিটি। রাজনীতিতে পরিবারতন্ত্ৰের দিন শেষ বলেও কংগ্ৰেসকে সতৰ্ক করেছেন তিনি।

No comments

Powered by Blogger.