Header Ads

ভাষিক সংখ্যালঘু উন্নয়ন বোর্ডকে সরকার এক পয়সাও বরাদ্দ করেনি, অভিযোগ চেয়ারম্যান ঘোষের

নয়া ঠাহর প্ৰতিবেদন, গুয়াহাটিঃ  অসমে হিন্দু বাঙালিদের সব দিক থেকে কোণঠাসা করে রাখা হয়েছে। রাজ্যের বাঙালিরা কংগ্রেস থেকে মুখ ফিরিয়ে বিজেপিকে হাত খুলে ভোট দিয়েছে। গত বিধানসভা এবং লোকসভা নির্বাচনে বিজেপিকে জিতিয়েছে। সেই বিজেপি ক্ষমতাসীন হয়ে বাঙালিদের এনআরসি, ডি ভোটার, ডিটেনশনের নামে নানাভাবে অত্যাচার শুরু করে।   বাঙালিদের জন্যে গঠিত ভাষিক সংখ্যালঘু উন্নয়ন বোর্ডকে কোনও গুরুত্ব দিচ্ছে না। গত বাজেটে এক পয়সাও বরাদ্দ করা হয়নি। নিজস্বভাবে কাজ করার স্বাধীনতাও নেই। এই বোর্ডকে  সংখ্যালঘু উন্নয়ন বোর্ডের অধীনে আনা হয়েছে। ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের অর্থাৎ মুসলিম জনগোষ্ঠীর সার্বিক উন্নয়নে কাজ করে এই বোর্ডকে বেশ কয়েক কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে।   বৃহস্পতিবার ভাষিক সংখ্যালঘু উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান অলোক ঘোষ দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, কয়েক মাস হয়ে গেল কিন্তু এক পয়সাও দিল না। সবদিক থেকে তাদের অবহেলা করা হয়েছে। ঢাল নেই তরোয়াল নেই নিধিরাম সরকারের মতো এক অফিস আছে। সেখানে একজন পিয়ন সেও তাদের অধীন নয়। তাদের গাড়ি নেই, তার ব্যাক্তিগত নিরাপত্তাও তুলে নেওয়া হয়েছে। তাদের বেতন নেই। মরিয়নির প্রাক্তন বিধায়ক অলোক ঘোষ দাবি করেন ব্রহ্মপুত্র ও বরাক উপত্যকা মিলিয়ে প্রায় ৮০ লাখ বাঙালি হিন্দু বাজেটে আছে। ১২ টি বিধানসভা কেন্দ্রে তারা সংখ্যা গরিষ্ঠ, টিকিট দিলেই তারা জিতবে কিন্তু তাদের টিকিট দেওয়া হয় না। ভাষিক সংখ্যালঘু বোর্ডের দায়িত্ব প্রাপ্ত মন্ত্রী হচ্ছেন রঞ্জিত দত্ত। এই বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান হোজাই এর বিজেপি নেতা রাম কৃষ্ণ ঘোষ ও বলেন, তাদের বর্তমানে কোনও বাজেট নেই। অলোক ঘোষ জানান রাজ্যে বাঙালিদের ওপর নানা অত্যাচারের ঘটনা জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে স্মারক পত্র দেওয়া হয়েছে। তারপরেও হেনস্থা বন্ধ হচ্ছে না।

No comments

Powered by Blogger.