Header Ads

আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে যোগ করলেন নাগা সন্ন্যাসীরা



দেবযানী পাটিকর,গুয়াহাটিঃ শক্তিপীঠ কামাখ্যা ধামের অম্বুবাচি  মেলাতে নাগা সাধুরা এক মহত্বপূর্ন ভূমিকা গ্রাহন করে থাকেন।এবার অম্বুবাচি মেলাতে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে প্রায় ৭০০০ নাগা  সাধু এসে উপস্থিত হয়েছেন।এবার কুম্ভমেলা না থাকার জন্য দেশ বিদেশের অনেক নাগা সাধুরাই দশনাম আখড়াতে এসেছেন বলে জানান কামাখ্যা ধামের পঞ্চ দশনাম জুনা আখড়ার প্রধান থানাপতি মোহন্ত নিত্যানন্দ গিরি।  আন্তর্জাতিক যোগ দিবসের দিনে ভোর বেলাতেই  নিজের নিজের জায়গায় যোগ করলেন নাগা সাধুরা।



প্রসঙ্গত থানাপতি মহন্ত নিত্যানন্দ গিরি বলেন যে সংসার ধর্ম থেকে অনেক দূর নাগা সন্ন্যাসীরা ঈশ্বর সাধনায় মগ্ন থাকেন। শীত গ্রীষ্ম সব ঋতুতেই এদের শরীর  উদোম থাকে বলেই এর নাগা সাধু।সনাতন ধর্মের প্রচার প্রসার করা ও বিশ্ব শান্তিই নাগা সন্ন্যাসীদের উদ্দেশ্য। অম্বুবাচি মেলাতে ১২ বছর থেকে ৯৫ বছরের সাধু এসেছেন।এবার ১০০বছরের বেশী সাধু আসার কথা রয়েছে।
নিত্যানন্দ গিরি বলেন যে  নাগা সন্ন্যাসী হয়ে উঠার আগে একজন পুরুষ বা মহিলাকে ৬থেকে ১২বছর পর্যন্ত কঠোর ব্রাহ্মচার্যের সমস্ত নিয়ম মেনে চলতে হয়।তাতে যদি সফল হয় তাহলেই গুরুর নির্দেশে সন্ন্যাস ধর্মে দীক্ষিত হতে পারেন তিনি।এ হলো ত্যাগ ও কঠোর তপস্যা।হতে হয় দিগম্বর।অম্বুবাচির সময়ে সাধনা করলে সারা বছরের সাধনার ফল পাওয়া যায় বলেই এ সময়ে নাগা সাধুরা কামাখ্যা ধামে  আসেন।


এবারও অম্বুবাচীতে বিশ্ব শান্তির জন্য যজ্ঞ,পূজা,আরতি, বেদ পাঠ করা হবে।কিছু পূজা গুহ্য ভাবে পূজা করা হয়।সে পূজা সবার জন্য নয় বলে জানান নিত্যানন্দ গিরি।
ইতিমধ্যে মধ্য প্রদেশ,কলকাতা,পাটনা, বদ্রিনাথ, থেকে এসেছেন সাধুরা।অভয়ানন্দ,ভুবনেশ্বর,কুটিরলিঙ্গ, কামাখ্যাতে মেলা পরিচালনা সমিতি ও প্রাশাসন পক্ষ থেকে ৪টি শিবির তৈরি করা হয়েছে নাগা সাধুদের থাকার জন্য।এই সমস্ত শিবিরে পর্যাপ্ত জল, বিশুদ্ধ পানীয় জল,বিদ্যুৎ,ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।প্রতি বছরের মতো এবারো নাগা সাধুরা  মহাদেবকে পালকীতে বসিয়ে মন্দির প্রদক্ষিণ করবে।




No comments

Powered by Blogger.