Header Ads

গাইড লাইন ভেঙে ইচ্ছে মত প্রশ্ন সাজানো হয়েছে, আসাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূমিকায় ক্ষুব্ধ বদরপুর এনসি কলেজের পরীক্ষাৰ্থীরা

নয়া ঠাহর প্রতিবেদন, বদরপুরঃ পাঠ্যক্রম বহির্ভূত প্রশ্ন আর সিবিসিএস সিস্টেমের গাইড লাইন ভেঙ্গে নম্বর প্যাটার্নের ঠেলায় জেরবার পরীক্ষার্থীরা। আসাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূমিকায় তীব্র ক্ষোভ প্ৰকাশ করেছে পরীক্ষাৰ্থীরা।। 
স্নাতক পর্যায়ে দ্বিতীয় সেমিস্টারের ফ্যাইনালে ইংরেজি  অ্যারাবিক আর কমার্সের কর্পোরেট ল ' পরীক্ষায় ইংরেজিতে এসেছে চৌদ্দ মার্কের সিলেবাসের বাইরে থেকে প্রশ্ন। সিলেবাসের অন্তর্গত টনি মরিসনের উপন্যাস " দ্য ব্লু ওয়েস্ট আই " র বদলে প্রশ্ন এসেছে গত বছরের সিলেবাসের অন্তর্গত টনি মরিসনের " বিলাভেড " উপন্যাস থেকে। ফলে মাথায় হাত পরীক্ষার্থীদের।  

অ্যারাবিক আর কর্পোরেট  ল ' র রয়েছে মার্কস ডিসট্রিবিউসনের সমস্যা।  পাঁচটি ইউনিটে মোট সত্তর নম্বরের পরীক্ষায় চৌদ্দ নম্বর করে ভাগ করা প্রতি ইউনিটে ২ মার্কের ছোট প্রশ্ন থাকে দুটি আর দশ মার্কের থাকে একটি। সিবিসিএস ' র এটাই প্যাটার্ন।  কিন্তু এবার এই গাইড লাইন ভেঙে  ইচ্ছে মত প্রশ্ন সাজানোয় বিপদে পড়েছেন পরীক্ষার্থীরা। এক প্যাটার্নে সারা বছর প্রস্তুতি নেওয়ার পর প্রশ্ন অন্য প্যাটার্নে হওয়ায় বেশির ভাগই আশানরুপ উত্তর করতে পারেনি। 

এ নিয়ে ক্ষোভ জানিয়েছেন বদরপুর এনসি কলেজের অধ্যক্ষ ডঃ মর্তুজা হোসেন কমার্সের এইচওডি জয়নাল আবেদিন তাপাদার অ্যারাবিকের এইচওডি ডঃ ফজলুর রহমান লস্কর। ইতিমধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য একজামিনেশন কন্ট্রোলার সহ অন্যান্য বিভাগে প্রশ্ন নিয়ে এই অনিয়মের দিকে অঙ্গুলি নির্দেশ করে চিঠি পাঠানো হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের এই খামখেয়ালীপনায় ছাত্রদের ক্যরিয়ারে প্রভাব পড়বে বলে আশংকা শিক্ষকদের।

No comments

Powered by Blogger.