Header Ads

নিখোঁজ এএন৩২র চালকের স্ত্ৰীই ছিলেন বিমানটির এটিসি


আশিস এবং সন্ধ্যা, ছবি, সৌঃফেসবুক
নয়া ঠাহর প্ৰতিবেদন, গুয়াহাটিঃ খোঁজ পাওয়া গেল না যোরহাট থেকে অরুণাচল প্ৰদেশের মেচুকার উদ্দেশ্যে ওড়া এন্তোনভ এএন৩২ বিমানটির। বায়ুসেনা বিমানঘাটির রানওয়েতে এন্তোনভ এএন৩২ বিমানটিতে ছিলেন পাইলট আশিস তনওয়ার, সহ চালক মোহিত গৰ্গ সমেত আরও ১১ জন। তখন আশিস তনওয়ারের স্ত্ৰী সন্ধ্যা সোলাঙ্কি যোরহাটের এয়ার ট্ৰাফিক কনট্ৰোলারের দায়িত্বে ছিলেন। তিনি সোমবার ১২টা ২৭ মিনিটে এটিসি থেকে বিমানটিকে শেষ বারের মতো টেক অফের সবুজ সংকেত দেন। হরিয়ানার আশিসের সঙ্গে গত বছরই বিয়ে হয়েছিল মথুরার সন্ধ্যার। চার দিন পার হয়ে গেল এখনও কোনও খোঁজ মেলেনি বিমানটির। হরিয়ানার পালওয়ারের বাসিন্দা ওই ফ্লাইট লেফটেন্যান্টের পরিবারের উৎকন্ঠা ক্ৰমশ বেড়েই চলেছে। আশিসের মা সরোজ তনওয়ার সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন- তাঁর ছেলে এবং পুত্ৰবধূ গত মাসেই বাড়ি ফিরেছে। তার আগে ওরা থাইল্যান্ড সফরে গিয়েছিল। ফিরে আসার পর আশিস তাঁর মাকে খুব শিগগিরি ফিরে আসার প্ৰতিশ্ৰুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু চার দিন হয়ে গেল কোনও খবর পাওয়া গেল না। সরোজের বিশ্বাস- তাঁর ছেলে হয়তো দেশে নেই। তিনি বলেন- তিনি নিশ্চিত বিমানটি চিনের সীমান্ত পেরিয়ে গেছে। সরকার কেন চিন কৰ্তৃপক্ষের সঙ্গে এ ব্যাপারে কথা বলে দ্ৰুত ফিরে আসার ব্যবস্থা করছে না? অনুসন্ধান চলছে। খারপ আবহাওয়ার কারণে নাকি বিমানটিকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। 
বায়ুসেনার ওই বিমানটি উড়ে গিয়েছিল অরুণাচল প্ৰদেশের মেচুকা অ্যাডভান্স ল্যান্ডিং গ্ৰাউন্ডের উদ্দেশ্যে। যোরহাট থেকে মিনিট ৪০য়ের রাস্তা। কিন্তু তার আগেই ১২টা ২৭ থেকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি বিমানটিকে। বায়ুসেনার পক্ষ থেকে বিমানটিকে খুঁজে বের করার প্ৰবল চেষ্টা চলছে। এমআই-১৭ ও এএলএইচ হেলিকপ্টার, সুখোই সু-৩০ ও সি-১৩০জে ফাইটার জেট তন্নতন্ন করে খুঁজে চলেছে বিমানটিকে। পাশাপাশি চালকহীন আকাশযানের সাহায্যে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। কিন্তু তনওয়ার পরিবার এতে সন্তুষ্ট নয়। এ ব্যাপারে তাঁরা প্ৰধানমন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদি এবং প্ৰতিরক্ষামন্ত্ৰী রাজনাথ সিংয়ের দৃষ্টি আকৰ্ষণ করেন। আশিস তনওয়ার সেনায় যোগ দিয়েছিলেন কারণ, তাঁর পরিবারের প্ৰায় সব সদস্যই বায়ুসেনা বা আৰ্মিতে কাজ করেছেন। কেন্দ্রীয় বিদ্যালয়ে প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করার পরে ও বিটেক কোর্স করতে ভর্তি হয় কানপুরে। কয়েকটি বহুজাতিক সংস্থায় কাজ করার পরে বায়ুসেনায় যোগ দেয় ২০১৩ সালের ডিসেম্বরে। ২০১৫ সালের মে মাসে ও বিমান চালক হয়। বিমানটিতে দুই চালক আশিস তনওয়ার, মোহিত গৰ্গ ছাড়া ৬ জন স্ক্ৰু সদস্য, ৫ জন এয়ারম্যান ছিলেন। বায়ুসেনা সূত্ৰে বিমানে থাকা ৭ জনের নাম প্ৰকাশ করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে আশিস ও মোহিত ছাড়া রয়েছেন উইং কমান্ডার জি এম চাৰ্লস, স্কোয়াড্ৰন লিডার এইচ বিনোদ, উইং অফিসার কে কে মিশ্ৰ, ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট সুমিত মোহান্তি এবং ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট রাজেশ কপা।       

No comments

Powered by Blogger.