Header Ads

বিশুদ্ধ এনআরসি-র নামে চলছে প্রহসন



নয়া ঠাহর প্ৰতিবেদন, গুয়াহাটিঃ রাজ্যের সংখ্যালঘু অঞ্চলের এনআরসি পরিষেবা কেন্দ্রে ভয় দেখিয়ে হিন্দু, মুসলিম বাংলা ভাষাভাষী মানুষের এআরএন নম্বর সংগ্রহ করে লাখ লাখ আপত্তি  দাখিল করেছে রাজ্যের একাংশ জাতীয়তাবাদী সংগঠন। আপত্তি দখিল করা ব্যক্তিদের কোনও নাম ঠিকানা  পাওয়া যায়নি। ৯০ ভাগই ভুয়ো, মঙ্গলবার দাবি আপত্তি জমা দেওয়ার প্রথম দিনেই আপত্তি জানানোর নামে ভুয়ো ব্যাক্তিদের নাম জানতে পারা গেছে। জনৈক যতীন দাসের নামে প্রায় ৪০০ আপত্তি জমা পড়েছে। যতীন দাস তা জেনে এনআরসি সেবা কেন্দ্রে গিয়ে লিখিতভাবে জানান কারও নামে তিনি আপত্তি জানাননি। সংবাদ সূত্রে আরও জানা যায় কোকড়াঝাড় এবং বিজনীতে আবসু ও আসু এই সব ভুয়ো আপত্তি জানিয়েছিল। এদিন রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ভুয়ো আপত্তি তুলে নেওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এনআরসি কর্তৃপক্ষ সব ডিসিকে নির্দেশ দিয়েছিলেন আপত্তিকারীদের নাম ঠিকানা মোবাইল নম্বর উল্লেখ থাকতে হবে।  অধিকাংশ আপত্তিকারীরা শুধু ভুয়ো নাম দিয়ে আপত্তি জানিয়েছে। ভুয়ো আপত্তিকারীদের শাস্তির কথা বলা হয়েছিল। এক শুদ্ধ এনআরসি তৈরির নামে কি হচ্ছে? তাছাড়া বিনা নামে কি করে আপত্তি গ্ৰহণ হচ্ছে? সেই প্ৰশ্নও উঠছে সচেতন মহলে। এনআরসি-র নামে সব কিছু প্রহসনে পরিণত হয়েছে। মঙ্গলবার পবিত্র রমজানের প্রথম দিনও মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষদের এনআরসি কেন্দ্রে উপস্থিত থাকতে দেখা যায়। 

No comments

Powered by Blogger.