Header Ads

অগপ-বিজেপি মিত্রতা নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া বাঙালি যুব ছাত্র ফেডারেশনের

দেবযানী পাটিকর, গুয়াহাটিঃ অগপ-বিজেপি  মিত্রতাকে নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে বাঙালি যুব ছাত্র ফেডারেশন। আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের প্ৰাক্কালে  নির্বাচনী মিত্রতা ঘোষণা করার পর আশ্চর্য প্রকাশ করেছে সারা অসাম বাঙালি যুব ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি কমল চৌধুরী। এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে তিনি বলেন- নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে সম্পূর্ণ দুই বিপরীত মেরুতে অবস্থান করা এই দুটো দল এক রাতের মধ্যে এক হয়ে যাবার কারণ কী হতে পারে সেটা জানতে চায় রাজ্য বাসী বাঙালী সমাজ। অন্যদিকে, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলকে নিয়ে তিনসুকিয়ার যে কয়জন বর্বর বাঙালী হিন্দুকে হত্যা করা হয়েছিল আজ পর্যন্ত সেই দোষী ব্যক্তিকে ধরা তো দূরের কথা, এর বিপরীতে একমাত্ৰ রাজনৈতিক মুনাফার  জন্য শাসক দল বিজেপি অগপ-র সঙ্গে মিত্রজোট করে অসমে বসবাসকারী বাঙালী সমাজকে অপমান করেছে।
বাঙালী যুব ছাত্র ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অজয় ভূষণ সরকার বলেন - অগপ  আর বিজেপি এই দুটো দলই রাজ্যবাসী বাঙালী সমাজকে পুনরায় অন্ধকারে রেখে যদি শুধু ভোটের স্বার্থে কাজ করে তাহলে এই দুটো দলকেই তীব্র প্রত্যাহ্বানের সম্মুখীন হতে হবে। রাজনীতি জটিল হলেও নীতি, আদর্শ ,সরল ও স্পষ্ট হতে উচিত, তা নইলে এই দুটো দলকেই ক্ষতির সম্মুখীন হওয়াটা স্বাভাবিক। ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অজয় ভূষণ আরও বলেন যে শাসক দল বিজেপির স্থিতি পরিবর্তন না করলে তীব্র গণতান্ত্রিক আন্দোলনে সম্মুখীন হতে হবে। আসন্ন  লোকসভা নির্বাচনে ভোট বর্জনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে বাঙালি সমাজ।
ওদিকে অগপ ও বিজেপি মিত্রতাকে নিয়ে বাঙালি যুব ছাত্র ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি কমল চৌধুরী প্রসঙ্গত বলেন যে অগপ ও বিজেপির মিত্রজোট সম্পর্ক নিয়ে জানতে চায় বাঙালি সমাজ। কি যুক্তিতে এই দুই বিরোধী পক্ষের মিত্রতা হলো। সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট বিল (ক্যাব) এখন অগপ আর বিজিপির ভূমিকা কী? সেটা জানতে চায় বাঙালি সমাজ। কারণ এক সময় অগপ ক্যাবের বিরোধিতা করেছিল। এখন কিসের ভিত্তিতে এই দুটো বিরোধী পক্ষের মিত্রতা হলো সেটা জানতে চায় বাঙালি সমাজ।

No comments

Powered by Blogger.