Header Ads

সরকার দুৰ্নীতিমুক্ত স্বচ্ছ প্ৰশাসন উপহার দেওয়ার ক্ষেত্ৰে অঙ্গীকারবদ্ধঃ সৰ্বনন্দ সনোয়াল


সরকার শেষ পৰ্যন্ত পঞ্চায়েত এবং গ্ৰামোন্নয়ন বিভাগের দুৰ্নীতির তদন্তের আদেশ দিলেন

অমল গুপ্তঃ গুয়াহাটী,
দুৰ্নীতির ক্ষেত্ৰে শূণ্য সহনশীল নীতি গ্ৰহণ করা সৰ্বানন্দ সনোয়াল নেতৃত্বাধীন সরকারের বিরুদ্ধে এবার ব্যাপক দুৰ্নীতির অভিযোগ উঠল। পঞ্চায়েত এবং গ্ৰামোন্নয়ন বিভাগের ৯৪৫ টি নিযুক্তি ক্ষেত্ৰে ব্যাপক দুৰ্নীতি হয়েছে। সি আই ডি বিভাগ রাজ্যের ১৪ টি জেলার মধ্যে ৯ টি জেলায় দুৰ্নীতির অভিযোগ পেয়েছে। গুয়াহাটি হাইকোৰ্টেও এই দুৰ্নীতি নিয়ে সরকার তথ্য গোপন করেছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন কৃষক মুক্তি সংগ্ৰাম সমিতির মুখ্য উপদেষ্টা অখিল গগৈ। এই অভিযোগ পাওয়ার পরেও পঞ্চায়েত এবং গ্ৰামোন্নয়ন বিভাগের মন্ত্ৰী নব দলে গত ৪ মাৰ্চ রাত্ৰি থেকে ১০ মাৰ্চ পৰ্যন্ত এই সাক্ষাৎকারের ফলাফল ঘোষণা করে দেন। এই নিয়োগে মন্ত্ৰীদের আত্মীয়-স্বজন এবং বিজেপি দলের ঘনিষ্ঠরা চাকরির নিয়োগ পত্ৰ পেয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এই নিয়োগের ক্ষেত্ৰে ব্যাপক হারে দুৰ্নীতির অভিযোগ পেয়ে মুখ্যমন্ত্ৰী সৰ্বানন্দ সনোয়াল অতিরিক্ত মুখ্যসচিব জিষ্ণু বয়ার নেতৃত্বে এক সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন দিয়েছেন। এই জিষ্ণু বয়ার নেতৃত্বাধীন কমিটি নৌকাডুবির তদন্তের দায়িত্বে ছিলেন। এখনও কোনও ফল প্ৰকাশ পায় নি বলে কৃষক মুক্তি সংগ্ৰাম সমিতির অভিযোগ। মুখ্যমন্ত্ৰী সৰ্বানন্দ সনোয়াল আজ নারায়নপুরে বলেন, সরকার দুৰ্নীতিমুক্ত স্বচ্ছ প্ৰশাসন উপহার দেওয়ার ক্ষেত্ৰে অঙ্গীকারবদ্ধ। অভিযোগ সত্য বলে প্ৰমাণিত হলে সরকার কড়া পদক্ষেপ গ্ৰহণ করবে সেই বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। এই ব্যাপারে জনগণকে সরকারের সঙ্গে সহযোগিতার আহ্বান জানান। প্ৰাক্তন মুখ্যমন্ত্ৰী প্ৰফুল্ল কুমার মহন্ত অভিযোগ করেন, দক্ষিণ ভারতের ব্লুম ইলেক্ট্ৰনিকস প্ৰাইভেট নামে কোম্পানিটি  এই সাক্ষাৎকারের ব্যবস্থা করেছিল। বিজেপির সৰ্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক রাম মাধম এই কোম্পানিটির মালিক বলে মহন্ত নগাঁওতে সাংবাদিক সন্মেলনে অভিযোগ করেন। এই কোম্পানিটি এর আগে রাজ্যে বন বিভাগের কয়েক শো পদে নিয়োগের সময়ও সাক্ষাৎকার নিয়েছিল তখনও দুৰ্নীতির অভিযোগ উঠেছিল। আসুর সাধারণ সম্পাদক লুরিণ জ্যোতি গগৈ দুৰ্নীতির অভিযোগে অভিযুক্তদের শাস্তির দাবি তুলে বলেছেন, এই পরীক্ষাটি গেয়াকরণ করা হয়েছে। শিক্ষামন্ত্ৰী সিদ্ধাৰ্থ ভট্টাচাৰ্য বলেছেন, যোগ্যতার ভিত্তিতেই নিয়োগ করা হয়েছে। মন্ত্ৰীর আত্মীয়দের যোগ্যতাও থাকতে পারে। মন্ত্ৰী চন্দন ব্ৰহ্ম বলেছেন, নিয়ম-নীতি মেনেই চাকরি দেওয়া হয়েছে। কংগ্ৰেসের কমলাক্ষ দে পুরকায়স্থ বলেন, সরকারের কাজ-কৰ্মে পুরোটায় দুৰ্নীতিতে ঢেকে গেছে। অগপর রমেন্দ্ৰ নারায়ণ কলিতা বলেন, মেধার ভিত্তিতে চাকরি দেওয়া হয়েছে তার প্ৰামাণ্য নথিপত্ৰ সরকারকে দাখিল করতেই হবে। প্ৰাক্তন মুখ্যমন্ত্ৰী তণ গগৈ বলেন, কংগ্ৰেস আমলেও দুৰ্নীতি হয়েছিল, বিজেপি আমলে সব দুৰ্নীতিকে টেক্কা দিচ্ছে। কৃষক মুুক্তি সংগ্ৰাম সমিতির নেতা অখিল গগৈ হুমকি দেন পঞ্চায়েত এবং গ্ৰামোন্নয়ন বিভাগের কমিশনারের কাৰ্যালয় তার ঘেরাও করবে। তার সি বি আই তদন্তের দাবি জানিয়েছে। তদন্ত কমিটির প্ৰধান জিষ্ণু বয়া জানিয়েছেন এই নিয়োগ নিয়ে যাদের অভিযোগ আছে তারা যেন ২৫ মাৰ্চে'র পূৰ্বে গুয়াহাটি সাৰ্কিট হাউসের ২ নম্বর মে অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগ পেলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর ব্যবস্থা গ্ৰহণ করবে। এদিকে গুয়াহাটির বিজেপি বিধায়ক অতুল বরা অভিযোগ করেছেন, গুয়াহাটি পাহারের কিনারে বেআইনিভাবে ‘সৃষ্টি নগর' নিৰ্মাণের নামে এক মন্ত্ৰী ৫ কোটি টাকা নিয়েছে। সময় মতো তিনি তার নাম প্ৰকাশ করবে। এদিকে জনসংযোগ বিভাগে ৬৪ টি পদের নিয়োগের ক্ষেত্ৰে ব্যাপক দুৰ্নীতি হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

No comments

Powered by Blogger.