Header Ads

অসমে ২,১৭,৬০,৬০৪ জন ভোটার, ৭ লক্ষর বেশি প্ৰথম ভোটার, অপরাধী প্ৰাৰ্থীদের বিরদ্ধে কড়া ব্যবস্থা


অমল গুপ্তঃ গুয়াহাটি,
অসমে ২ কোটি ১৭ লক্ষ ৬০ হাজার ৬০৪ জন ভোটার, তার মধ্যে মহিলা ভোটার হচ্ছে ১ কোটি ৬ লক্ষ ২৭ হাজার ৮২২ জন, পুষ ভোটার হচ্ছে ১ কোটি ১১ লক্ষ ৩২ হাজার ৭৮২ জন। উভয় লিঙ্গের ভোটার আছে ৫০৩ জন। ২৮ হাজার ১১৩ টি পোলিং ষ্টেশনে তিন পৰ্যায়ে ভোট হবে। ১৮ থেকে ১৯ বছর বয়সের মধ্যে মোট ভোটার হচ্ছে ৭ লক্ষ ৬ হাজার ৪৮৯ জন, এবং আশী বছরের উৰ্দ্ধে ভোটারের সংখ্যা হচ্ছে, ২ লক্ষ ৬০ হাজার ৮৪৯ জন। রাজ্যে যে সব এলাকায় উগ্ৰপন্থী, সাম্প্ৰদায়িক শক্তি, সীমান্ত অঞ্চলে অবস্থিত পোলিং ষ্টেশনগুলিকে স্পৰ্শকাতর হিসাবে চিহ্নিত করে নজরদারী চালানো হচ্ছে। এই ধরণের ৩ হাজার ৬৬৩তটি বুথকে জটিল এবং ৬৯৯ টি স্পৰ্শকাতর হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এবার বিহু উৎসবের প্ৰাককালে আগামী ১১ এপ্ৰিল তেজপুর, কলিয়াবর, ডিব্ৰুগড় এবং লখিমপুরে নিৰ্বাচন কেন্দ্ৰে ভোট দান হবে। আজ রাজ্যের মুখ্য নিৰ্বাচন অফিসার মুকেশ সহায় আসন্ন নিৰ্বাচনের নিয়ম নীতি, আচরণ বিধি প্ৰভৃতি ব্যাপারে বিস্তৃত তথ্য জানিয়ে এই কথা জানান। তিনি বলেন, বিভিন্ন অভিযোগে অভিযুক্ত অপরাধী প্ৰাৰ্থীদের বিরুদ্ধে নিৰ্বাচন কমিশন বিশেষ ব্যবস্থা গ্ৰহণ করেছে। অতীতের বিভিন্ন অপরাধের  বিস্তৃত তথ্য সি-ফৰ্ম-এ পূরণ করে তা সংবাদ পত্ৰে এবং বৈদু্যতিন মাধ্যমে তিন তিনবার প্ৰকাশ করতে হবে। গতকাল থেকেই নিৰ্বাচন আচরণ বিধি শু হয়ে গেছে। বিভিন্ন অঞ্চলে অপরাধমূলক কাৰ্যকলাপ, বেআইনি অস্ত্ৰ-শস্ত্ৰ, ব্যাঙ্কগুলিতে অতিরিক্ত অৰ্থের লেন দেন প্ৰভৃতি খোঁজ খবর ছাড়াও অতিরিক্ত পুলিশের ব্যবস্থা সুনিশ্চিত করতে তিন ধরণের পৰ্যবেক্ষক ময়দানে কাজ শুরু করেছে। বিমান বন্দর, রেলওয়ে ষ্টেশন, আয়কর বিভাগ প্ৰভৃতি জায়গায় আইন বিরুদ্ধ কাজ-কৰ্ম হচ্ছে কি না তার জন্য নজরদারী চালানো হচ্ছে। রাজ্যে ৬০ হাজার সাৰ্ভিস ভোটার আছে। অন লাইনে তাদের ভোট দেওয়ার ব্যবস্থা দেওয়া হয়েছে। গুত্বপূৰ্ণ পোলিং ষ্টেশনগুলির ভোটদান পৰ্ব ভিডিও ফটোগ্ৰাফী করা হবে। ফটো ভোটার শ্লিপ ভোটারদের কাছে থাকলেও সেই শ্লিপ দিয়ে ভোটদান করা যাবে না। ১১ টি তথ্যের মধ্যে যে কোনও একটি দাখিল করতে হবে। পাৰ্সপোট, ড্ৰাইভিং লাইসেন্স, সাৰ্ভিস পরিচয় পত্ৰ, ব্যাঙ্কের পাসবুক, প্যান কাৰ্ড, স্মাৰ্ট কাৰ্ড, এনরেগা জব কাৰ্ড, স্বাস্থ্য বীমা স্মাৰ্ট কাৰ্ড, সরকারী পেনসনের তথ্য, আধার কাৰ্ড এবং সরকারী পরিচয় পত্ৰ। এই ১১ টি মধ্যে যে কোনও একটি দাখিল করে ভোটদানের অধিকার দেওয়া হবে। তিনি জানান, পেড নিউজের বিরুদ্ধে নিৰ্বাচন কমিশন কঠোর স্থিতি গ্ৰহণ করেছে। নিৰ্বাচনে প্ৰচারাভিযানের জন্য ছাপা যে কোনও পোষ্টার-ব্যানার, পুস্তিকা প্ৰভৃতির মুদ্ৰক প্ৰকাশকের নাম-ধাম, ঠিকানা বিস্তারিত উল্লেখ করতে হবে। বৈদ্যুতিন মাধ্যমের বিরুদ্ধেও পেড নিউজ, ফেক নিউজ প্ৰভৃতির উপরে নজরদারী চালানো হবে। নিৰ্বাচন কমিশন সি-ভিজিল মোবাইল অ্যাপস, পি ডব্লিউ ডি এবং ভোটার হেল্প লাইন মোবাইল অ্যাপস-র ব্যবস্থা করেছে। ভোটারদের যে কোনও প্ৰেশ্নর সমস্যার সমাধানের পথ দেখাবে ঐ সব অ্যাপস। যে কেউ বেআইনি কাজ-কৰ্ম সম্পৰ্কে প্ৰাৰ্থীদের বিরুদ্ধে যে কোনও অভিযোগ অ্যাপস-র মাধ্যমে জানাতে পারবে। এইবার ইভিএম মেশিনের সঙ্গে ভি ভি প্যাট সংলগ্ন করা থাকবে। সেই সঙ্গে নোটার ব্যবস্থাও থাকবে। সঠিক জায়গায় ভোটদান করা হয়েছে কি না তা জানার জন্য ভি ভি প্যাটের শ্লিপ দেখে নিতে পারবে ভোটাররা। অসমে আগামী ১৮ মাৰ্চ প্ৰথম পৰ্যায়ের ৫ টি কেন্দ্ৰ তেজপুর, কলিয়াবর, যোরহাট, ডিব্ৰুগড় এবং লখিমপুরে নিৰ্বাচনের জন্য অধিসূচনা জারি হবে। ২৫ মাৰ্চ মনোনয়ন পত্ৰ দাখিলের শেষ দিন, ২৬ মাৰ্চ মনোনয়ন পত্ৰের পরীক্ষা, ২৮ মাৰ্চ মনোনয়ন পত্ৰ প্ৰত্যাহারের শেষ দিন। দ্বিতীয় পৰ্যায়ে ৫ টি নিৰ্বাচন কেন্দ্ৰ করিমগঞ্জ, শিলচর, ডিমা হাসাও, কাৰ্বি আলং পাৰ্বত্য জেলা, মঙ্গলদৈ এবং নগাঁওয়ে ভোট গ্ৰহণ হবে। ১৯ মাৰ্চ অধিসূচনা জারি হবে, ২৬ মাৰ্চ মনোনয়ন পত্ৰ দাখিলের শেষ দিন, ২৭ মাৰ্চ মনোনয়ন পত্ৰের পরীক্ষা, ২৯ মাৰ্চ মনোনয়ন পত্ৰ প্ৰত্যাহারের শেষ দিন। ১৮ এপ্ৰিল ভোট দান। এবং তৃতীয় পৰ্যায়ে ৪ টি নিৰ্বাচন কেন্দ্ৰে ভোট হবে। তার জন্য ২৮ মাৰ্চ অধিসূচনা জারি, ৪ এপ্ৰিল মনোনয়ন পত্ৰ দাখিলের শেষ দিন, ৫ এপ্ৰিল মনোনয়ন পত্ৰের পরীক্ষা, ৮ এপ্ৰিল মনোনয়ন পত্ৰ প্ৰত্যাহারের শেষ দিন। ২৩ এপ্ৰিল গুয়াহাটি, কোকরাঝাড়, বরপেটা এবং ধুবুড়িতে ভোট গ্ৰহণ করা হবে। আগামী ২৩ মে' নিৰ্বাচনী ফলাফল ঘোষণা করা হবে।

No comments

Powered by Blogger.