Header Ads

পৃথক রাজ্যের দাবি, নতুবা বিজেপিকে সমৰ্থন নয়, হুঁশিয়ারি আবসুর

অমল গুপ্তঃ নিখিল বোড়ো ছাত্ৰ সংস্থা (আবসু) প্ৰতিষ্ঠাতা উপেন্দ্ৰনাথ ব্ৰহ্মকে বোড়োল্যান্ড গঠনের জনক বলা যায়। তিনি বোড়োল্যান্ড ফিপটি ফিপটি আন্দোলনের সূচনা করেছিলেন। সেই বোড়োল্যান্ড প্ৰতিষ্ঠিত না হলেও চারটি জেলাকে নিয়ে বোড়ল্যান্ড আঞ্চলিক পরিষদ গঠন হয়েছে। তারা নিজস্ব আইনসভা সমেত পরিকাঠামোগত সুযোগ সুবিধা পেয়েছে। কেন্দ্ৰ ও রাজ্য সরকার প্ৰতিবছর বৃহৎ পরিমাণ অৰ্থ বোড়োল্যান্ডের উন্নয়নে ব্যয় করে। বোড়োল্যান্ড আঞ্চলিক পরিষদের প্ৰধান হাগ্ৰাম মহিলারি বৰ্তমানে পৃথক বোড়োল্যান্ডের বিরোধী। তিনি বলেছেন পৃথক বোড়োল্যান্ডের কোনও প্ৰয়োজন নেই। তিনি অভিযোগ করেন ২০০৩ সালে বোড়ো চুক্তিতে আবসু সাক্ষর করেনি। কিন্তু প্ৰতি বছরই ২ মাৰ্চ বোড়োল্যান্ড দিবস পালন করা হয়। সেই দিবসের সঙ্গে সাযুজ্য রক্ষা করে শনিবার নিম্ন অসমের গোরেশ্বর, বাকসা, গোসাইগাঁও, মিছামারি প্ৰভৃতি অঞ্চলে আবসুর নেতৃত্বে বিরাট গণ অবস্থান, বাইক র‍্যালি হয়। আবসু নেতারা অভিযোগ করেছে, অসমে থাকলে তাদের ভাষা-সংস্কৃতি রক্ষা পাবে না। এর জন্য পৃথক বোড়ো রাজ্য দিতেই হবে। বোড়োরা হুমকি দিয়েছে তাদের দাবি পূরণ না হলে আগামী লোকসভা নিৰ্বাচনে তারা বিজেপিকে বয়কট করবে। তারা হুমকি দিয়েছে যথাশিঘ্ৰ পৃথক বোড়োল্যান্ডের দাবি পূরণ করতে হবে। এবং কাৰ্বি আংলাং এবং ডিমা হাসাওয়ে যে সব বোড়ো জনগোষ্ঠীর মানুষ বসবাস করে তাদের তফশিল ভুক্ত জাতি হিসেবে গণ্য করতে হবে। প্ৰসঙ্গত, কেন্দ্ৰীয় সরকার ইতিমধ্যে বোড়োল্যান্ডের বাইরে বসবাসকারী বোড়োদের তফশিল ভুক্ত উপজাতি হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার ব্যাপারে প্ৰতিশ্ৰুতি দিয়েছে। গত বাজেট বক্তৃতায় অসমের অৰ্থমন্ত্ৰী হিমন্ত বিশ্ব শৰ্মা বোড়োল্যান্ডের সাৰ্বিক উন্নয়ণে এক বৃহৎ পরিমাণের অৰ্থ বরাদ্দ করেছে। কিন্তু তার পরেও বোড়োজনগোষ্ঠীর এক বৃহৎ অংশ পৃথক বোড়োল্যান্ডের দাবিতে সরব হয়ে আছে। রাজ্যের মন্ত্ৰী সভায় বিজেপি সরকারে বিপিএফের দুজন সদস্য আছেন। একজন চন্দন ব্ৰহ্ম অপরজন প্ৰমিলা রানী ব্ৰহ্ম। তারপর বিটিসি প্ৰধান হাগ্ৰামা মহিলারি বলেছেন- আমরা নিৰ্বাচনে যেকোনও দলের সঙ্গে নিৰ্বাচনে যেতে রাজি আছি। গণেশগুরি, কোকরাঝার, বঙ্গাইগাঁও সহ বেশ কয়েকটি জায়গায় বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় এনডিএফবি রঞ্জন পন্থিদের সাজা হয়। আবসুর একাংশ সমৰ্থক এনডিএফবি-র প্ৰতি সহানুভূতিশীল। আগামী লোকসভা নিৰ্বাচনে আবসুর পৃথকভাবে প্ৰাৰ্থী দিতে পারে। এবং সেই প্ৰাৰ্থীর জয়ী হওয়ার সম্ভাবনাও উজ্জ্বল বলে আবসু সূত্ৰ দাবি করছে।   

No comments

Powered by Blogger.