Header Ads

বিজেপির বিজয় লক্ষ্য ২০১৯ এর সভা কালাইন-কাটিগড়ায়

নয়া ঠাহর প্রতিবেদন, বদরপুরঃ একজন সাংসদ বছরে পাঁচ কোটি টাকার উন্নয়নমূলক কাজ এমপি ফান্ডের টাকা দিয়ে করাতে পারেন। কাটিগড়ায় এই এমপি ফান্ডের কতটুক কাজ হয়েছে, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন বিজেপি সাংগঠনিক সম্পাদক নিত্যভূষন দে। তাই এবারে সবাইকে জাগ্রত করে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির প্রার্থীকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি। নাগরিকত্ব বিল নিয়েও সুস্মিতা দেবের মনোভাবের কড়া সমালোচনা করেন তিনি।
আর মাত্র কদিন পরেই লোকসভা ভোট। গত মঙ্গলবার সকাল বিজেপি কালাইন মণ্ডলের এক সাংগঠনিক সভা অনুষ্ঠিত হয়। কাটিগড়ার বিধায়ক অমরচাঁদ জৈন তাঁর ভাষণে  'মেরা বুথ সবসে মজবুত' ও 'পান্না প্রমুখ'দের উপর জোড় দেন। তিনি  আত্মতুষ্টিতে না ভুগতে বলেন। ঘরে ঘরে গিয়ে সরকারের জনহিতকর প্রকল্প গুলোর কথা পৌঁছে দিতে হবে। শিলচর লোকসভা অন্তর্গত কাটিগড়া বিধানসভার প্রভারী শশাঙ্ক শেখর ধর সরকারের রন্ধন যোজনা সহ রাজ্য সরকার ও কেন্দ্র সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের কথা তুলে ধরেন। ৩৫কোটি সাধারণ জনগণ ব্যাঙ্কের সাথে জড়িত। ঠেলা চালক, গৃহ বা যেকোনও মজুরীকৃত শ্রমিক, চা শ্রমিকদের আদি বিভিন্ন সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগণের জন্য বিজেপি সরকার কি কি করেছে। তা তুলে ধরেন তিনি। এক টাকা দরে বিপিএল কার্ডধারীদের চাল দেওয়া হচ্ছে। কৃষকদের ছয় হাজার করে দেওয়া হচ্ছে। এসব বলে তিনি পৃষ্ঠা প্রমুখদের উদ্যেশ্যে বলেন, সরকারের এই সব বিভিন্ন জন কল্যাণ মুখী প্রকল্প গুলোর কথা প্রত্যেকের ঘরে ঘরে পৌঁছে দিতে হবে।
এদিনে কালাইন সভায় কাটিগড়া বিধায়ক অমর চাঁদ জৈন ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন এই কাটিগড়া বিধানসভার নবনিযুক্ত প্রভারী শশাঙ্ক শেখর ধর, বরাক উপত্যকার সাংগঠনিক সম্পাদক নিত্য ভূষণ দে, কালাইন মন্ডল বিজেপির সহ সভাপতি সুব্রত চক্রবর্তী, কাছাড় জেলা আইটি সেক্টর কোঅর্ডিনেটর বিশ্বরূপ ভট্টাচার্য্য ও পূজা পাল, বিস্তারক অরবিন্দ পাল, সাধারণ সম্পাদকদ্বয় ভূপেন্দ্র বৈষ্ণব ও বাবলু দাস। যুবমোর্চা কাছাড় জেলা সহ সভাপতি সন্দীপন দেব, যুবমোর্চা মণ্ডল সভাপতি প্রীতম দেব, মহিলা মোর্চা সভানেত্রী মীনা দাস, ওবিসি মোর্চা সভাপতি বাছাধন শর্মা। নব নিযুক্ত চা-মোর্চা সভাপতি অর্জুন গোয়ালা, প্রবীণ কর্মী তথা এসসি মোর্চার মণ্ডল সভাপতি সুবোধ শুক্লবৈদ্য প্রমুখ।
এদিকে এদিন বিকালে  কাটিগড়া মণ্ডল কার্য্যালয়ে মণ্ডল সভানেত্রী ববিতা পালের পৌরোহিত্যে বিজয় লক্ষ্য ২০১৯ কে সামনে রেখে বিজেপির সকল আয়াম প্রমুখ, বুথ স্তরের সকল কর্মী প্রমুখদের নিয়ে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভার শুরুতে বিধায়ক জৈন সাংগঠনিক আলোচনা করেন। পৃষ্ঠা প্রমুখদের রীতিমত পরীক্ষা নেন তিনি। অনেকেই এই পরীক্ষা উত্তীর্ন হয়েছেন। আর যারা হন নি তাদের আবার বুঝিয়ে দেন। দলকে শক্তিশালী করার জন্য এদিনে বাবলি নাথ কে মহিলা মোর্চা সভানেত্রী ও ভিগুলাল দাসকে কিষাণ মোর্চা মণ্ডল সভাপতির দায়িত্ব অর্পণ করা হয়। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ কাটিগড়া জেলা পরিষদ সদস্য অসীম দত্ত, মণ্ডলের সাধারণ সম্পাদক রানা চক্রবর্তী, সংখ্যালঘু মোর্চা সভাপতি হাবিবুর রহমান, কিষাণ মোর্চা মণ্ডল সাধারণ সম্পাদক অলক কুমার দাস প্রমুখ।

No comments

Powered by Blogger.