Header Ads

অসমে চোলাই মদের ঘটনায় মৃত্যু মিছিল ক্ৰমশ বাড়ছে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্ৰণে আনতে হিমসিম খাচ্ছে রাজ্য প্ৰশাসন

ছবি, সৌঃ নিউজ১৮অসম
নয়া ঠাহর প্ৰতিবেদন, গুয়াহাটিঃ গোলাঘাট, যোরহাট, তিতাবর, বরহোলা, ধানসিরি, মেরাপানি, কুমারগাঁও, দলগাঁও প্ৰভৃতি জায়গায় সমেত রবিবার গুয়াহাটি, মালিগাঁও পাণ্ডু ইত্যাদি এলাকায় রবিবার শয়ে শয়ে মদের ভাটি ভেঙেছে অসমের আবগারি বিভাগ। রাজ্যের সমাজ কল্যাণ মন্ত্ৰী প্ৰমিলা রানি ব্ৰহ্ম আবাগারি মন্ত্ৰী পরমল শুক্লবৈদ্যকে গোটা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্ৰণে আনবার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন। এদিকে এই ঘটনার প্ৰেক্ষিতে কংগ্ৰেস সাংসদ গৌরব গগৈ, প্ৰাক্তন কংগ্ৰেস মন্ত্ৰী রকিবুল হুসেন দুজনই বৰ্তমান বিজেপি সরকারের ব্যৰ্থতার কথা উল্লেখ করেছেন। কংগ্ৰেস বিধায়ক রূপজ্যোতি কুৰ্মী ঘটনার সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। রাজ্যের স্বাস্থ্য প্ৰতিমন্ত্ৰী পিযুষ হাজরিকা, মন্ত্ৰী তপন গগৈ প্ৰত্যেকটি হাসপাতালে গিয়ে রোগীদের খবরাখবর নিয়েছেন। চা বাগান অঞ্চলে অত্যন্ত নিম্ন মানের গুড় দীৰ্ঘদিন ধরে বেআইনীভাবে লালি গুড় দিয়ে মদ তৈরি হচ্ছে। রবিবার বস্তায় বস্তায় বিভিন্ন চাবাগান থেকে লালি গুড় বাজেয়াপ্ত করেছে আবগারি পুলিশ। এদিন কৃষক মুক্তি সংগ্ৰাস সমিতি সদস্যরা চোলাই ঘটনার প্ৰতিবাদ করে রাজ্যের আবগারি মন্ত্ৰী পরিমল শুক্লব্যদ্যের প্ৰতীকী মৃতদেহ নিয়ে পথে নামে। চোলাই খেয়ে মৃত্যুর ঘটনার ৭২ ঘন্টা পরেও মৃতের সংখ্যা ক্ৰমশ বেড়েই চলেছে। যোরহাট মেডিক্যাল কলেজে ১৩১ জন ভৰ্তি হয়েছিল। ৭১ জনের মৃত্যু হয়েছে। ১৩ জনের অবস্থা অত্যন্ত সংকটজনক। গোলাঘাট হাসপাতালে ৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে। চোলাই খেয়ে অসুস্থ হয়ে ১৮৫ জন ভৰ্তি হয়েছিল। সব মিলিয়ে ১৫০ জনের বেশি মৃত্যু হয়েছে। উজান অসমে এই যাবৎকালে সবথেকে বড় সুরা ট্ৰ্যাজেডি। অসম সরকারের পক্ষ থেকে কয়েকদিন আগে চা শ্ৰমিকদের বিনামূল্যে চিনি এবং চাল দেওয়ার ঘোষণা করা হয়েছে। তা বাস্তবে পরিণত হলে চা বাগান এলাকায় মদ তৈরি আরও বেড়ে যাবে বলে বিভিন্ন মহলের আশংকা।

No comments

Powered by Blogger.