Header Ads

তিনসুকিয়ার ধলার গনহত্যার প্রতিবাদে হাফলঙে ডিমা হাসাও বাঙালি সমাজের উদ্যোগে প্রতিবাদী মৌন মিছিল


বিপ্লব দেবঃ হাফলং
তিনসুকিয়ার ধলার গনহত্যা নিয়ে রাজ্যের বিভিন্ন স্থানে এখনও প্রতিবাদ অব্যাহত রয়েছে। গত ১ নভেম্বর রাতে তিনসুকিয়ার ধলার বিচনিমুখ গ্রামের খেরাবাড়িতে যে নৃশংস হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হয় এর প্রতিবাদে সোমবার ডিমা হাসাও জেলার সদর শহর হাফলঙে ডিমা হাসাও বাঙালি সমাজ এক মৌন মিছিল বের করে শহর পরিক্রমা করে। সোমবার সকাল দশটা নাগাদ হাফলং সাংস্কৃতিক ভবন থেকে বিভিন্ন জাতি জনগোষ্ঠীর প্রধান সংগঠন ছাত্র সংগঠন ব্যবসায়ী বিভিন্ন রাজনৈতিক দল সহ শহস্রাধীক পুরুষ মহিলা কালো ব্যাজ পরে হাতে হাতে প্ল্যাকার্ড নিয়ে ধলা গনহত্যার প্রতিবাদে মিছিল করে উত্তর কাছাড় পার্বত্য স্বশাসিত রোটারি হয়ে হাফলং জেলাশাসকের অফিসে উপস্থিত হয়ে ডিমা হাসাও বাঙালি সমাজের পক্ষ থেকে লিটন চক্রবর্তী মনীন্দ্র দাস বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী জয়দীপ অধিকারি সহ অনান্যরা জেলাশাসক অমিতাভ রাজখোয়ার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সানোয়ালের কাছে পৃথক পৃথক স্মারকলিপি প্রদান করে। এদিন ডিমা হাসাও জেলা বাঙালি সমাজের আহ্বায়ক লিটন চক্রবর্তী তিনসুকিয়ার ধলায় আততায়ীর বর্বোরচিত হিংসায় প্রান হারানোদের পরিবারবর্গকে এককালীন আর্থিক সাহায্য প্রদান করা সহ পরিবারের যে কোনও একজন সদস্যকে সরকারি চাকুরীর ব্যবস্থা করে দেওয়া এবং এদিনের এই হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করার পাশাপাশি অসমে বসবাস রত বাঙালি জনগোষ্ঠীর মানুষের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানান লিটন চক্রবর্তী। এদিকে ডিমাসা সর্বোচ্চ সংগঠন জাদিখে নাইশ হসমের সভাপতি কল্যান দাওলাগাপু  ধলার গনহত্যার তীব্র নিন্দা জানিয়ে সবাইকে শান্তি সম্প্রতি বজায় রাখার আবেদন জানান। ইন্ডিজেনাস স্টুডেন্ট ফোরামের সভাপতি ডেভিড কেভম ধলা হত্যাকান্ডের নিন্দা জানিয়ে হত্যা ও হিংসায় কোন সমস্যার সমাধান হয়না। একমাত্র আলোচনার মাধ্যমেই সব সমস্যার সমাধান সম্ভব বলে মন্তব্য করেন ডেভিড কেভম। তাছাড়া কংগ্রেস বিজেপি অগপ সব রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকে তিনসুকিয়ার ধলায় নরসংহারের ঘটনার তীব্র নিন্দা জানানো হয়।

No comments

Powered by Blogger.