Header Ads

মিজোরামে বনধ, বন্দুক এবং অবরোধের বিরুদ্ধে ডাক দিলেন মোদি, দুৰ্নীতি মুক্ত স্বচ্ছ সরকারী প্ৰশাসন উপহারের অঙ্গীকার প্ৰধানমন্ত্ৰীর


গুয়াহাটিঃ অসম তথা উত্তরপূৰ্বাঞ্চলের সাৰ্বিক উন্নয়নে বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর ৯০ হাজার কোটি টাকার পরিকাঠামো উন্নয়নে অৰ্থ ব্যয় করছে। ৫০ হাজার কোটি টাকা ব্যয় করে এক হাজার কিমি রেলে ব্ৰডগেজ লাইন বসাচ্ছে। আকাশপথেও যোগাযোগ ব্যবস্থা তরান্বিত করছে। অনগ্ৰসর মিজোরামে কংগ্ৰেস কোনও উন্নয়ন করতে পারেনি। বরাদ্দ অৰ্থের সদ্ব্যবহার হয়নি। শুধু দুৰ্নীতি হয়েছে। মিজোরামের পরম্পরাগত সংস্কৃতি ঐতিহ্যে আগা টেনেছে কংগ্ৰেস। বিজেপি সরকার বনধ, বন্দুক এবং অবরোধের বিরুদ্ধে জেহাদ ঘোষণা করেছে। প্ৰধানমন্ত্ৰী শুক্ৰবার মিজোরামের লুংলেই এবং আইজলে নিৰ্বাচনী প্ৰচারে এসে এক বিরাট জনসভায় একথা বলেন। আগামী ২৮ নভেম্বর মিজোরামের ৪০টি আসনে নিৰ্বাচন। যে রাজ্যে ৯০ শতাংশ খ্ৰিষ্টান, মাত্ৰ সাড়ে তিন শতাংশ হিন্দু, ১০ লক্ষাধিক জনসংখ্যার ক্ষুদ্ৰতম রাজ্য। যে রাজ্যকে মূলত গীৰ্জা কৰ্তৃপক্ষই পরিচালনা করেন। মুসলিমদের সংখ্যা ১ শতাংশের কিছু বেশি। প্ৰক্ষান্তরে বৌদ্ধ ধৰ্মাবলম্বীর সংখ্যা ৮ শতাংশ এই মিশ্ৰ জনগোষ্ঠীর রাজ্যে বিধানসভায় বিজেপির আসন শূন্য। সেই শূন্য আসনকে পূরণ করার লক্ষ্যে দেশের একমাত্ৰ কংগ্ৰেস শাসিত রাজ্যের ভোটারদের আহ্বান জানিয়ে প্ৰধানমন্ত্ৰী বলেন- বিদ্যুৎ, যোগাযোগ, বিশুদ্ধ পানীয় জলের কোনও ব্যবস্থাই নেই। কেন্দ্ৰে বিজেপি সরকার মিজোরামের সাৰ্বিক উন্নয়নে দেড়শ কোটি টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন। মিজোরামকে ক্ৰীড়া রাজধানী হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে যুবকদের মেধাকে কাজে লাগিয়ে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্ৰধানমন্ত্ৰী। সভায় উপস্থিত সকলকে ব্ৰাদার অ্যান্ড সিস্টার বলে সম্বোধন করে বলেন কংগ্ৰেস মিজোরামে বিভাজনের রাজনীতি শুরু করেছে। এর আগে প্ৰধানমন্ত্ৰী মিজোরামে গিয়েছিলেন জলবিদ্যুৎ প্ৰকল্প উদ্বোধন করতে। শুক্ৰবার লুংলেইয়ের জনসভায় তিনি আরও বলেন- ‘উত্তরপূৰ্বাঞ্চলের প্ৰতি আমার একটা বিশেষ শ্ৰদ্ধা আছে। শান্তি এবং বিকাশের লক্ষ্যে আমি নিরন্তর কাজ করে যেতে চাই। এই সোনালী সুযোগ হারাবেন না, বিজেপিকে সৰ্বতোভাবে সমৰ্থন করুন।’

No comments

Powered by Blogger.