Header Ads

চৈতালি বেলা শেষে...এক বাংলাদেশী মেয়ের গপ্প.. নবম পর্ব (৯)

দেবাশীষ মুখাৰ্জী 
 
বাসুর কীর্তিকলাপ আদাপাস্তলা নিলয়কে জানায় মৌলি...কিন্তু নিলয় স্থানীয় ছেলে নয়...আর এইসব নিয়ে বাড়াবাড়ি করলে মৌলির সমস্যা বাড়বে বই কমবে না....রাগটা দুজনেই হজম করে নেয়....
নিলয় ঠিক করে এবার বাংলাদেশ দূতাবাসে সে নিজেই মৌলির মাকে নিয়ে যাবে....
সেইমতো একটা দিন ঠিক হয়...নিলয় ট্রেনে করে রানাঘাট স্টেশনে আসবে...মৌলি গিয়ে মা কে চাপিয়ে দেবে ট্রেনে....
 
সেদিন স্টেশনে বেশ ভীড়...
এদিকে নিলয় যে গাড়িতে আসছে তার সময় হয়ে এসেছে...টিকিট কাউন্টার থেকে কোনমতে টিকিটটা কেটে মাকে নিয়ে ট্রেনের কাছে পৌঁছে যায় মৌলি....
তাড়াহুড়োতে একটা কুকুরের গায়ে পা দিতেই কামড় দেয় কুকুরটা মৌলির পায়ে....মৌলি অতটা খেয়াল করে না...একটা যন্ত্রনা হচ্ছে পায়ে বুঝতে পারে....
নিলয় খেয়াল করে মৌলির সাদা চটটা ভেসে যাচ্ছে রক্তে....
মৌলিকে নিলয় একথা বলতেই মৌলি বলে...তুমি মায়ের কাজটা আগে সেরে এসো...আমি ঠিক আছি....
বাড়ি ফিরে আসে মৌলি....তীব্র এক যন্ত্রনা শুরু হয় পায়ে...ওঠার মতো অবস্থায় সে থাকে না....যন্ত্রনা নিয়েই পড়ে থাকে ঘরে...যন্ত্রনায় অঝোরে কাঁদতে থাকে....
একটু বিকেল করে মাকে নিয়ে ফিরে আসে নিলয়....
মৌলির যন্ত্রনা দেখে উতলা হয়ে ওঠেন মৌলির মা...
এবারেও মৌলির সমস্ত দায়িত্ত্ব নেয় নিলয়...টেডভ্যাক থেকে ভ্যাকসিন সব ব্যাবস্থা করে নিলয়....
মৌলির উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা হয়ে যায় এর মধ্যে....পরীক্ষা যে কেমন হয়েছে সে মৌলিই জানে...কেমিস্ট্রি পরীক্ষার আগের দিন তাকে গ্যাসের সিলিন্ডার ভরার জন্য বেশ অনেকটা দূরে হেঁটে গিয়ে ভরিয়ে আনতে হয়....একে উচ্চমাধ্যমিক তার ওপর আবার কেমিস্ট্রি....
মৌলির মা বাংলাদেশে ফিরে যান....
এই বাড়িতে একা থাকাটা মৌলির কাছে একটু রিস্ক হয়ে যাবে...নিলয় নিজের অভিমত জানায়....
মৌলি এ বাড়ি ছেড়ে দিয়ে এ পাড়া থেকে বেশ খানিকটা দূরে...বলতে গেলে নিলয়দের বাড়ির কাছাকাছি একটা মহিলাদের মেসে ভাড়া থাকতে শুরু করে....
এবার কলেজের ভর্তির ব্যাপার আছে.....কিন্তু উচ্চমাধ্যমিকের রেজাল্ট নিয়ে বেশ চিন্তিত মৌলি....
এর মধ্যে একটা কান্ড করে বসে মৌলি....
মেস ছেড়ে সে নিলয়দের বাড়িতে গিয়ে ওঠে....এই যে ভুলটা মৌলি করে সেটা মৌলি বুঝতে পারে অনেক পরে....
কিছু ভুলের হিসাব সারাজীবনেও মেলে না...
মৌলিরও মেলেনি....
চেন স্মোকিং সবসময় সব সমস্যার সমাধান করতে পারে না...
তা সিগারেট কবে থেকে খাওয়া শুরু করলেন...
মৌলি জানায়...ওই জেঠুর বাড়িতে দিদির সাথে প্রথম খাই...প্রথমে অল্প কিন্তু এখন আর অল্পতে সাধ মেটে না...
চলবে.....

No comments

Powered by Blogger.