Header Ads

চৈতালি বেলাশেষে...এক বাংলাদেশী মেয়ের গপ্প.. ত্রয়োদশ পর্ব (১৩)

দেবাশীষ মুখার্জী

অনেক দিন পর বাইরে বেরুবে মৌলি...আজ নিয়লের সাথে একটা ম্যারেজ রিসেপশন অনুষ্টান এটেন্ড করবে এরা....

মৌলি প্রথমে যেতে চাইছিলো না....তারপর নিলয়ের কথায় যেতে রাজী হয়....


মৌলির আজ সাজগোজ করতে খুব ইচ্ছে করছে...কতোদিন সাজগোজ করা হয়নি...বাইরে যাওয়া হয়নি....

আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে নিজেকে পরিপাটি করে সাজায়....

একটা নীল কাঞ্জিভরম পরে....একটু মিক্স এন্ড ম্যাচে একটা ম্যাজেন্টা কালারের ব্লাউজ....মাথায় একটা নীল টিপ...তার নিচে ম্যাজেন্টা কালারে একটা মাপা আড়াআড়ি দাগ....একটু হালকা ফাউন্ডেশন মুখে বুলিয়ে নেই....দু কানে পরে মাঝারি মাপের কস্টিউম ইয়ার রিং....চোখে একটা কাজলের টান দেয়....গলায় একটা কস্টিউম জুয়েলারির হার পরে...লকেটটা শ্রীকৃষ্ণর....নীল কাঞ্জিভরমের ম্যাজেন্টা পাড়ের ওপর নীল শ্রীকৃষ্ণর লকেটটা বেশ লাগছে....

কাপড়ের আঁচলটা কোমরে গুঁজে আয়নায় ঘুরিয়ে ফিরিয়ে দেখে নিজেকে....

এর পর দরজায় টোকা...কাজের মেয়েটাকে টাটকা জুঁই ফুল আনতে বলেছিলো...সাদা ফুল মৌলির খুব প্রিয়....

কাজের মেয়েটা ঘরে ঢুকে মৌলিকে দেখে অবাক হয়ে যায়....মৌলিকে এভাবে সে দেখতে অভ্যস্ত নয়....
মুখে বলে ফেলে মেয়েটা...তোমাকে কি সুন্দর দেখতে গো দিদিমনি...
মৌলি একটু হেসে বলে....তাই....!!! মেয়েটার গালটা টিপে দিয়ে বলে তুইও তো কম কিছু যাস না...যাই হোক এবার আবার চুলে এই ফুলের মালাটা ভালো করে লাগিয়ে দে...
মৌলি চুলটা টপনট করে নিজেই বেঁধেছিলো....
মালাটা চুলে জড়িয়ে কাঁধের দুপাশ দিয়ে নামিয়ে এনে আয়নার সামনে গিয়ে দাঁড়ায় মৌলি...হ্যাঁ এবার সব ঠিকঠাক.....
এবার শুধু লিপস্টিক লাগালেই হবে...

ম্যাজেন্টা লিপস্টিক বেশ যত্ন করে দু ঠোঁটে লাগায়...মৌলির লিপলাইনের দরকার পড়ে না....

এবার পায়ে স্যান্ডেল পরতে হবে....সাদা রঙের প্রায় ফ্ল্যাট একটু হিলের একটা চটি চুজ করে মৌলি...সাদা রঙ তার সবসময় ফেভারিট....

বেরুবার আগে পারফিউম লাগিয়ে নেবে...তার ফেভারিট পারফিউম মেকার্স এন্ড স্পেনসার্সের বাটারফ্লাই....

নিলয় রেডি....মৌলিকে ডাকতে তার ঘরে ঢুকতেই থমকে যায় নিলয়....

মৌলি বলে কেমন লাগছে....

নিলয় গম্ভীর হয়ে বলে...ভালো...চলো বেরুতে হবে...

মৌলি পালস পয়েন্টে পারফিউমটা স্প্রে করেই বেরিয়ে পরে....

রিসেপশন পার্টিতে একটা ওয়ার্ম রিসেপশন তাদের জন্য যেন অপেক্ষা করছিলো...নিলয়ের আত্মীয়স্বজন অনেকেই এসেছে এই পার্টিতে...সবাই মৌলির কাছে এসে খবর নিয়ে যায়...অচেনা অনেক লোকজন...যারা নিলয়ের চেনা আবার তার অচেনা...নিলয় কারুর কারুর সাথে মৌলির পরিচয় করিয়ে দেয়...মৌলি মুখে একটা যান্ত্রিক হাসি ঝুলিয়ে রাখে....

এদিকে নিলয় যখন লোকের সাথে কথা বলতে ব্যাস্ত মৌলি কফির স্টল থেকে এক কাপ কফি নিয়ে একটু তফাতে গিয়ে বসে চুমুক দেয় কফিতে...

বড্ড দমবন্ধকর লাগে এই পরিবেশটা মৌলির...কতোক্ষন আর অচেনা কারুর সাথে যান্ত্রিক ভাবে পরিচয় আর নকল হাসি হাসা যায়....

যেখানটা বসে মৌলি কফি খাচ্ছে সেখানটা একটু ফাঁকা...স্টল গুলো একটু দূরে...যে যার সাথে গল্প করতে ব্যাস্ত....কিন্তু নিলয় কোথায়....

কফি খাচ্ছে মৌলি আয়েশ করে...আজ আবার মাইগ্রেনের পেইনটা একটু চাগাড় দিয়েছে....কফিতে একটু রিলিফ পাওয়া গেলেও যেতে পারে...

ঠিক এমন সময়...মৌলির পিছন থেকে একজন বলে...

কেমন আছেন বৌদি....

মৌলি চিনতে পারেনা ছেলেটিকে...

মৌলি বলে...কিছু মনে করবেন না...আপনাকে আমি ঠিক চিনতে পারলাম না...

ছেলেটি হেসে বলে...আমি নিলয়ের বন্ধু...আমার নাম সানি...সত্যি তো অতো ভীড়ের মাঝে আমাকে মনেই বা রাখবেন কি করে....

ছেলেটির সাথে কথা চলছে এমন সময় নিলয় সেখানে হাজির....

নিলয়কে দেখতে পেয়েই সানি বলে কি করে বৌদিকে ছেড়ে কোথায় ঘুরঘুর করছিস....

নিলয় হেসে বলে...আরে নাহ রে...ওই একজন ডাকলো...
নিলয় এবার মৌলির দিকে তাকিয়ে বলল...মৌলি তোমাকে বলা হয়নি...সানি আমার বন্ধু...আর ও কিন্তু একজন দক্ষ ফোটোগ্রাফার...আর সবচেয়ে বড় কথা হলো আমাদের বিয়ের ছবিগুলো কিন্তু ওই তুলেছে...

মৌলি সানির দিকে তাকিয়ে হেসে বলে...ছবি গুলো কিন্তু দারুন তুলেছেন....

সানি একটু লজ্জা পায়...নিলয়ের কাঁধে হাত রেখে বলে....কনে আপনার মতো সুন্দরী হলে সেখানে ফোটোগ্রাফারের কোন কৃতিত্ব নেই...

দুজনেই হেসে উঠলেও নিলয় চুপ থাকে....

এই সময় সানি আরো দুটো চেয়ার নিয়ে আসে...তিনজনে গোল হয়ে বসে...সানি কফি আনতে যায়...
এমন সময় নিলয়কে কে একজন ডাকলে নিলয় উঠে যায়...
সানি দু কাপ কফি নিয়ে এসে মৌলিকে বলে আর এক কাপ আনতে যাচ্ছি...
মৌলি বলে...আরে বসুন তো...কি এতো ছোটাছুটি করছেন.....নিলয় এলে ও নিজেই নিয়ে আসবে...

কফিটা শেষ করে মৌলি এবার খেয়াল করে ক্ল্যাচারটা তাড়াহুড়োতে বাড়িতে ফেলে এসেছে...এদিকে সিগারেটের নেশাটাও চাগাড় দিচ্ছে...কিন্তু উপায় কিচ্ছু নেই...সিগারেটের প্যাকেট ক্ল্যাচারের মধ্যে রাখা ছিলো...
উসখুস করতে থাকে মৌলি...
যদি একটা সুখটানের জন্য সিগারেট পাওয়া যেতো...
সানি উঠে গিয়ে একটা সিগারেট ধরায়...অবশ্য মৌলির পারমিশন নিয়ে...
মৌলি বলে...কোথাও যেতে হবে না...এখানে বসেই খান...

সানি সিগারেটে সুখটান দিচ্ছে...মৌজ করে চোখ বুঝে নাক মুখ দিয়ে ধোঁয়া ছাড়ছে....

মৌলি সানিকে হটাৎ বলে...আমাকে একটা সিগারেট স্পেয়ার করা যাবে...??

সানি অবাক হয়ে বলে...আপনি সিগারেট খান...!!!

মৌলি বলে...কি মনে হয়...!!!

সানি সিগারেটের প্যাকেটটা বাড়িয়ে বলে...সবার সামনে চলবে...??

মৌলি বলে... না...একটু আড়ালে যেতে হবে...

সানি বলে....এই বাড়ির ছাদে যাবেন...? ছাদ ফাঁকা...

মৌলি বলে...চলুন...

সানি বলে নিলয় দেখতে না পেয়ে যদি কিছু বলে...মানে আপনাকে বা আমাকে...

মৌলি ডায়নামিক্যালি জবাব দেয়...বলবো ওয়াশ রুমে গিয়েছিলাম...

চলবে....

No comments

Powered by Blogger.