Header Ads

CAA-এর বিরোধের নামে হিংসায় যুক্ত ছিল ১৫ জন বাংলাদেশি ! রিপোর্টে জানালো SIT !!




বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায়ঃ CAA ও NRC নিয়ে দেশজুড়ে হিংসার ঘটনা নিয়ে চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট সামনে আসছে। উত্তর প্রদেশে হওয়া হিংসায় PFI, অর্থাৎ পপুলার ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়ার লিংক পাওয়া গেছে। যারা মূলত কট্টরপন্থী দাঙ্গাবাজ হিসেবে পরিচিত। আতঙ্কবাদীদের সাথেও PFI এর বহুবার লিঙ্ক পাওয়া গেছে। উত্তরপ্রদেশ ছাড়াও পশ্চিমবঙ্গ ও দিল্লীতেও ব্যাপক হারে হিংসা হতে দেখা গেছিল। CAA বিলের প্রতিবাদের নামে পশ্চিমবঙ্গ, দিল্লী ও উত্তরপ্রদেশে ভাঙচুর চলেছিল। উত্তরপ্রদেশে PFI এর যুক্ত থাকার খবর সামনে আসার পর এখন দিল্লী হিংসাতে বাংলাদেশিদের যুক্ত থাকার খবর সামনে এসেছে। SIT (Special investigation team) জানিয়েছে দিল্লীতে CAA এর প্রতিবাদের নামে যে হিংসার ঘটনা ঘটেছিল তাতে ১৫ জন বাংলাদেশি যুক্ত ছিল। রিপোর্ট অনুযায়ী, দিল্লীর হিংসায় যুক্ত থাকা সব অবৈধ বাংলাদেশি দিল্লীর সিমাপুরী এলাকায় থাকে। পুলিশ সূত্রে দাবি করা হয়েছে ২০ ডিসেম্বর শুক্রবার দিন জুম্মার নামাজ পড়ার পর অবৈধ বাংলাদেশিরা CAA বিরোধী আন্দোলনে সামিল হয়েছিল। আর কিছুক্ষণের মধ্যে তারা ব্যাপক হিংসায় লিপ্ত হয়। পুলিশের দিকে পাথর ছোঁড়া থেকে শুরু করে সরকারি সম্পত্তিতে আগুন লাগনোর মতো ধ্বংসাত্মক কাণ্ড ঘটায়। দিল্লী পুলিশ বেশকিছু অবৈধ বাংলাদেশি মুসলিমকে গ্রেফতার করেছে। SIT এখনও অবধি ১৫ জন অবৈধ বাংলাদেশিকে চিহ্নিত করেছে। যারা দিল্লীতে সরকারি সম্পত্তি নষ্ট করে তাণ্ডব চালিয়েছিল। মঙ্গলবার তিহাড় জেলে গিয়ে SIT এর সদস্যরা আরো কিছু অভিযুক্তকে জিজ্ঞাসাবাদ চালাবে বলেও সূত্রের খবর। দিল্লী ছাড়াও পশ্চিমবঙ্গে যে হিংসা হয়েছিল তাতেও বেশিরভাগ দায় সংখ্যালঘু বাহিনীর উপর পড়েছিল। যদিও পশ্চিমবঙ্গ নিয়ে কোনো রিপোর্ট এখনও অবধি সামনে আসেনি। বাংলায় এই হিংসাত্মক বিক্ষোভের ফলে রেলওয়ের প্রায় ৮০ কোটি টাকা নষ্ট হয়েছে। কে বা কারা রেলের সম্পত্তি নষ্ট করেছে তা স্পষ্ট না হলেও যে সমস্ত ভিডিওগ্রাফি সামনে এসেছে তা থেকে দুষ্কৃতিকারীদের চিহ্নিত করা গেছে বলে জানা গেছে।

No comments

Powered by Blogger.