Header Ads

পার্টি অফিসে নিজের দলের নেতাদের হাতে মার খেয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলেন প্রাক্তন সিপিএম কাউন্সিলর

দুর্গাপুর : ক্ষমতা চলে গেছে রাজ্য থেকে। এমনকি প্রধান বিরোধী দলের তকমাও চলে গেছে। এরপর ২০১৯-এর লোকসভা ভোটে ধরাশায়ী প্রাক্তন শাসক দল সিপিএম। তারপরেও হাল ছাড়েন নি দলের নেতারা। একের পর এক ব্যর্থ প্রতিবাদ আন্দোলন করে বরাবর শিরোনামে আসার মরিয়া চেষ্টা চালানো হচ্ছে। এবার এমন এক ঘটনা ঘটল যার ফলে ফের শিরোনামে সিপিএম। এবার দলের কাউন্সিলরকে সিপিএম পার্টি অফিসে প্রায় আধঘণ্টা ধরে বেধড়ক মারধর করলেন সিপিএম নেতারা। এই ঘটনার পর প্রশ্ন উঠছে, যেখানে দলের ক্ষমতাই নেই, দিনদিন বিলুপ্ত হচ্ছে ভোট ব্যাঙ্ক, সেখানে অন্তর্দ্বন্দ্ব কি করে হয়?
নিজেদের দলের নেতাদের হাতে নিগৃহীত হওয়া প্রাক্তন সিপিএম কাউন্সিলরের নাম অনুপ দাস। উনি এলাকায় স্পষ্ট বক্তা অথবা স্পষ্টবাদী নেতা হিসেবেই পরিচিত। কেউ কোন দোষ করলে উনি কখনো মুখ বন্ধ করে থাকেন না। এমনকি নিজের দলের লোকেদের বিরুদ্ধে কথা বলতেও সময় নেননা। আর ওঁর এই স্পষ্টবাদীত্বর জন্য পার্টি অফিসে নিজের দলের নেতাদের হাতেই বেধড়ক মার খেতে হল।
চার দশক ধরে সিপিএম এর কর্মী হিসেবে কাজ করে চলেছেন অনুপ দাস, দলীয় নেতৃত্ব নিয়ে বারবার মুখ খুলেছেন তিনি। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দুর্গাপুরের বেনাচিতিতে জল খাবার গলিতে সিপিএম এর পার্টি অফিসে নিজের সদস্যপদ নবীকরণ নিয়ে কথা বলতে যান, আর সেখানে উপস্থিত থাকা নেতারা ওঁর ওপর চড়াও হন।
দলীয় অফিসে নন্দ পাল নামে এক দলীয় স্থানীয় নেতা সহ কয়েকজন অনুপ বাবুকে মারধর শুরু করে দেন। পরে স্থানীয়রা এসে ওঁকে উদ্ধার করে। ওঁকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। উনি জানিয়েছেন হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর দলের জেলা সম্পাদককে সমস্ত ঘটনা জানাবেন এবং অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কড়া শাস্তির আবেদন করবেন।

No comments

Powered by Blogger.