Header Ads

চল্লিশ বারের বেশি ব্যর্থ হয়েছিল আমেরিকা ও রাশিয়া তারপর ছুঁয়েছিল চাঁদের মাটি

বিশ্বদেব চট্টোপাধ্যায় : পাঁচ মাস আগে এপ্রিলে ইজরায়েলের মহাকাশ যান চাঁদে অবতরণের চেষ্টা করতে গিয়ে ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়, আর পৃথিবী থেকে সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় এবং সেই যান দুর্ঘটনাগ্রস্তও হয়। চাঁদে অবতরণের একেবারে অন্তিম মুহূর্তে মহাকাশ যানের সাথে পৃথিবীর সম্পর্ক ছিন্ন হয়ে যায়। এরপর ইজরায়েল সেই মিশনকে অসফল ঘোষণা করে। ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ইজরায়েল তাঁদের চন্দ্র যান মহাকাশের উদ্দেশ্যে রওনা করেছিল।
এখনো পর্যন্ত চাঁদে মোট ১০৯টি অভিযান করা হয়েছিল। যার মধ্যে ৪১ টি সফল। এবার মিশনের সংখ্যা ১১০ হয়ে গেছে। আর তাঁর মধ্যে অসফলতার প্রয়াস ৪২ হল। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এখনো পর্যন্ত চাঁদের মাটিতে সফট ল্যান্ডিং করার ৩৮ বার চেষ্টা করা হয়েছে। যার মধ্যে ৫২ শতাংশ চেষ্টা সফল হয়েছে।
ভারতের আগে মাত্র ছয়টি দেশের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা চাঁদে তাঁদের যান পাঠিয়েছিল, তাদের মধ্যে কেবল মাত্র তিনটি দেশ সফলতা অর্জন করেছে। আর ওই তিন দেশ হল, আমেরিকা, চীন আর রাশিয়া। চাঁদে প্রথম মিশনের প্ল্যানিং ১৭ই আগস্ট ১৯৫৮ সালে আমেরিকা করেছিল। কিন্তু তাদের যান পাইওনিয়ার-০-এর প্রয়াস অসফল হয়েছিল। ছ’বার চেষ্টা করার পর আমেরিকা সফল হয়েছিল। এরপর আমেরিকা ২০ জুলাই ১৯৬৯ সালে অ্যাপেলো ১১ মিশনের মাধ্যমে চাঁদে প্রথমবার পা রাখে। আমেরিকার মহাকাশ যাত্রী নীল আর্মস্ট্রং আর বাজ আল্ড্রিন চাঁদে পা রাখা প্রথম আর দ্বিতীয় মহাকাশ যাত্রী ছিলেন।
১৭ই আগস্ট ১৯৫৮ থেকে ১৪ ডিসেম্বর ১৯৭০ পর্যন্ত আমেরিকা ৩১ বার অভিযান করে, এর মধ্যে ১৪ টি ব্যর্থ হয়। এর মানে এই যে, আমেরিকার ৪৫.১৭ শতাংশ মিশন সফল হয়েছিল। রাশিয়া প্রথম দেশ, যারা প্রথমবারেই চাঁদের অভিযানে সফল হয়েছিল। ১৯৫৯ সালে রাশিয়া প্রথম চাঁদে অভিযান করে। ১৯৫৮ থেকে ১৯৭৬ সাল পর্যন্ত চাঁদের মাটি ছোঁয়ার জন্য রাশিয়া মোট ৩৩ টি অভিযান করে। যার মধ্যে ২৬ টি অসফল হয়ে যায়। আমেরিকা আর রাশিয়া মিলে মোট ৬৪ টি অভিযান করে, আর তার মধ্যে ৪৩ বার অসফল হয় তারা। ২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাসে চীন তাদের প্রথম যান চাঁদে পাঠায়, আর সেটি ২০১৯ সালের জানুয়ারি মাসের তিন তারিখ চাঁদে অবতরণ করে।

No comments

Powered by Blogger.