Header Ads

বদরপুর মালুয়া কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন নিয়ে সরকারি উদাসীনতা চরমে

নয়া ঠাহর প্রতিবেদন, বদরপুর : দিল্লী, দিসপুর ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকার থাকা সত্ত্বেও স্থানীয় দলীয় নেতারাও নীরব। বদরপুর মালুয়া কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য যথেষ্ট খাস জমি থাকা সত্ত্বেও চলছে টালবাহনা। এনিয়ে সন্দেহ বাধতে শুরু হয়েছে জনমনে। মালুয়া চৌমাথায় সাংবাদিক সম্মেলন করে মত ব্যক্ত করেন অটলবিহারী গণসচেতনা মঞ্চ। তারা অভিযোগ করে বলেন মালুয়ায় প্রস্তাবিত কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিষয়টি নিয়ে জেলা প্রশাসনিক স্তরে হেলদোল নেই। যদিও এখন পর্যন্ত প্রয়োজনীয় ১৫০০ বিঘা জায়গার ব্যবস্থা করে দিতে পারেনি জেলা প্রশাসন। 
স্থানীয় রাজনৈতিক দলের নেতা কর্মীদের বিষয়টি নিয়ে উৎসাহ নেই বললেই চলে তেমন গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন না অথচ গত বছর রাজ্য সরকার কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজের জন্য, ১ কোটি টাকার তহবিল মঞ্জুর করে যোরহাট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিভিন্ন সময়ে চিঠিপত্র জেলা প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের কাছে এসে থাকে। কিন্তু এসব চিঠির সঠিক কোনও গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। মালুয়ার খাস জমি প্রায় ২০০০ বিঘা জমি সরেজমিনে খতিয়ে দেখার জন্য কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে ৭-৮ সদস্যের এক কমিটি গঠন করে দেওয়া হয়েছিল। 
কাছাড় কৃষি বিজ্ঞান কেন্দ্রের মুখ্য বৈজ্ঞানিক সহ বাকি আরো পাঁচ সদস্য হতিমধ্যে মালুয়ায় গিয়ে জমি সরেজমিনে খতিয়ে দেখেছেন। বদরপুর সার্কেল অফিসার দীপ মালা গোয়ালা রাধাবল্লভ মহিলা পরিষদের কর্মকর্তারা সরেজমিনে জমি খতিয়ে দেখার পর এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। তবে স্থানীয় সচেতন মহল যে কোনওভাবে কৃষি বিজ্ঞান বিশ্ববিদ্যালয়ের সব কটি বিভাগ যাতে মালুয়ায় গড়ে তোলা হয় সেই দাবি জানান তাঁরা। তারা আরও বলেন গত কিছুদিন আগে চৈতন্যনগর মালুয়া শ্রীগৌরী এলাকার স্থানীয় মানুষ করিমগঞ্জ জেলা শাসকের সঙ্গে এক সভায় দেখা করে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেন । সবাই মালুয়ায় কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে উঠতে তৃণমূল পর্যায়ে কাজ করার অঙ্গীকার করেন। একটি স্মারকপত্রের প্রতিলিপি তুলে দেওয়া হয়েছে জেলা শাসকের কাছে।

No comments

Powered by Blogger.