Header Ads

পিকনিকে গিয়ে ব্ৰহ্মপুত্ৰে সলিল সমাধি এক যুবতী ও দুই যুবকের

ছবি, সৌঃ জিপ্লাস
নয়া ঠাহর প্ৰতিবেদন, গুয়াহাটিঃ গুয়াহাটির উপকণ্ঠে চন্দ্রপুরের পিকনিক স্পট তপবনে সোমবার ঘুরতে গিয়েছিলেন দুই যুবতী এবং তিন যুবক। ব্রহ্মপুত্র নদে এক যুবতী ও দুই যুবকের সলিল সমাধি ঘটে। জাগিরোডের ভার্গভ ডেকা এবং রঞ্জন ডেকার মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সন্ধ্যা ৬ টা পৰ্যন্ত চন্দ্রপুরের ছাত্রী তৃষ্ণা কলিতার মৃতদেহ উদ্ধার করা যায় নি। প্রাগজ্যোতিষপুর পুলিশ ও এনডিআরএফ-এর জওয়ানরা উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে। ধ্রুবজ্যোতি হাজারিকা ও অচর্না ডেকা তাদের বন্ধু হলেও জলে ঝাঁপ দিয়ে উদ্ধারে নামেনি বলে স্হানীয় মানুষেরা জানান। তারা জানান দুই যুবকের সঙ্গে যুবতীর কাজিয়া হয়েছিল, প্রেমঘটিত কারণে এই ঝগড়া বলে তাদের ধারণা। পুলিশ দুই জনকে জিজ্ঞাসা বাদ করছে। এনডিআরএফ জওয়ানরা জানিয়েছে ভরা  ব্রহ্মপুত্রের গভীরতা ৪০, ৫০ ফুট, তলে পাথর আছে। তাই উদ্ধারে বিলম্ব হচ্ছে। এর আগেও তপবনে ব্রহ্মপুত্রে ঝাঁপ দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। অন্যদিকে, গত ৯ জুন পূৰ্ব ইউরোপের শহর ইউক্ৰেনে নদীতে জলে ডুবে মৃত্যু হয়েছে গুয়াহাটির এক যুবকের। নাম নিকুমনি কাকতি। নিকুমনি সেখানে মেডিক্যাল কলেজের দ্বিতীয় বৰ্ষের ছাত্ৰ ছিল। মহানগরের কাহিলিপাড়ার ভিআইপির বাসিন্দা ধীরেন কাকতি এবং দীপামনি কাকতির একমাত্ৰ সন্তান ছিল নিকুমনি। তার অকাল মৃত্যুতে পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। 

No comments

Powered by Blogger.