Header Ads

শেষ পৰ্যন্ত চালানি মাছে বিষাক্ত ফরমালিন পাওয়া গেল


গুয়াহাটিঃ অন্ধ্ৰপ্ৰদেশ থেকে আসা কোটি কোটি টাকা মাছে বিষাক্ত ফরমালিন ব্যবহার করা হচ্ছে বলে অভিযোগের প্ৰেক্ষিতে অসম সরকার ১০ দিনের জন্য মাছ আমদানির উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল। আজ রঙিয়াতে অন্ধ্ৰপ্ৰদেশ থেকে আসা এক প্ৰতিনিধি দল এবং অসম সরকারের প্ৰতিনিধিদের উপস্থিতিতে অন্ধ্ৰপ্ৰদেশের মাছের উপর পরীক্ষা করার পর ধরা পড়ে আমদানিকৃত মাছে বিষাক্ত ফরমালিন ব্যবহার করা হয়েছে। মৰ্গে রাখা মানুষের মৃতদের সংরক্ষণ করার জন্য ব্যবহৃত ফরমালিন মাছকে সতেজ ও টাটকা রাখার জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে সেই বিষাক্ত ফরমালিন। অন্ধ্ৰপ্ৰদেশের অফিসারদের অভিযোগ অন্ধ্ৰ থেকে ট্ৰাকে করে মাছ অসমে পাঠানোর সময় মাঝ পথে কোথাও এই বিষাক্ত রাসায়নিক পদাৰ্থ মিলানো হচ্ছে। আঙুল তোলা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের বিশেষ করে হাওড়া অঞ্চলের দিকে। ফরমালিন মাখানো মাছ আমদানি বন্ধ হলেও ইউরিয়া ব্যবহারের মাছ বাজারে চলছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মাছের উপর দৃষ্টি দেওয়া হলেও খাঁসি ও ব্ৰইলার মুরগির দিকে প্ৰশাসনের দৃষ্টি নেই। নেফথোলিন জাতীয় রাসায়নিক খাইয়ে এবং হরমন ইনজেকশন দেওয়ার পর খাঁসিগুলি কাটা হয়। অপরদিকে ব্ৰইলারের সাইজ বাড়ানোর জন্য হরমন ইনজেকশন দেওয়ার অভিযোগ আছে। কিন্তু সরকার শুধু মাছের দিকেই দৃষ্টি দিচ্ছে বলে অভিযোগ। আজ স্বাস্থ্যপ্ৰতিমন্ত্ৰী পীযুষ হাজরিকা বলেছেন, মাছে ফরমালিন পাওয়া গেছে। তবে অন্ধ্ৰপ্ৰদেশ থেকে আমদানি করা মাছের উপর কোনও অভিযোগ আসে নি।

No comments

Powered by Blogger.