Header Ads

বনধের ফলে ১০২৮ কোটি টাকা লোকসান, ৬ জনগোষ্ঠীর বনধ চলছে


গুয়াহাটিঃ কোচ রাজবংশী, মরাণ, মটক, টাই- আহোম, চাহ জনগোষ্ঠী এবং চুতীয়া এই ৬ জনগোষ্ঠী তপশিলভূক্ত উপজাতি হিসাবে স্বীকৃতির দাবিতে ৪৮ ঘণ্টার বনধর ফলে শদিয়া থেকে ধুবড়ি বনধের ফলে স্বাভাবিক জনজীবন বিপযস্ত হয়ে পড়েছে, বরাক উপত্যকার কোনও প্ৰভাব পড়ে নি। জনগণরে দুৰ্ভোগের কথা চিন্তা করে জনজাতি ঐক্যমঞ্চ ১২ ঘণ্টা বনধ হ্ৰাস করে। আজ প্ৰাথমিক শিক্ষা সংস্থাও লখিমপুর জেলা বনধের ডাক দেয়। ১৯৯১ সাল থেকে ২০০১ সাল পৰ্যন্ত প্ৰাথমিক শিক্ষক নিয়োগ বৈধ ভাবে হয় নি এই অভিযোগে রাজ্যের প্ৰায় ১০,০০০ শিক্ষকের বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার তারই প্ৰতিবাদে এই বনধ। শিবসাগর জেলায় ১৫০০ শিক্ষক পরিবার পরিজনকে সঙ্গে নিয়ে আগামী ২৬ জুলাই গণ আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেবে বলে শিবসাগর শিক্ষক সংস্থা জানিয়েছে। সারা রাজ্য মটর শ্ৰমিক সংস্থার বনধ শেষ হয়েছে। আক্ৰাসুর বনধ শেষ হয়েছে আবার ডাকা হবে। বিধানসভার আইন রূপায়ন কমিটির চেয়ারম্যান মৃণাল শইকিয়া আজ মুখ্যমন্ত্ৰী সৰ্বানন্দ সনোয়াল এবং বিধানসভার অধ্যক্ষ হীতেন্দ্ৰ নাথ গোস্বামীকে এক চিঠি দিয়ে অবিলম্বে আইন করে বনধের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের দাবি জানিয়েছেন। বিধায়ক শইকিয়া তথ্য সহকারে বলেছেন, বনধের ফলে ২০১৭ সালে সরকারীভাবে ১০২৮ কোটি টাকা লোকসান হয়েছে। সমাজকল্যান মন্ত্ৰী প্ৰমীলা রাণী ব্ৰহ্ম কথায় কথায় বনধ ডাকার বিরোধিতা করেছে। অসম বিধানসভায় বনধের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে এক বিল পেশ হয়েছিল তা আজও আইনে পরিণত হয় নি।

No comments

Powered by Blogger.