Header Ads

বিলুপ্তপ্রায় হাড়গিলার অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই করে চলেছেন গ্রীন অস্কারজয়ী প্রকৃতিবিদ পূর্ণিমা দেবী বর্মন

 
দেবযানী পাটিকর, গুয়াহাটিঃ জীবনের প্রতিটি যুদ্ধ যে নারী জয় করে তাকেই বলা হয় জয়া। সমস্ত প্রতিকূলতাকে পেছনে ফেলে যিনি এগিয়ে যান তিনিই জয়ী, তিনি নারী। আন্তৰ্জাতিক সম্মান গ্রীন অস্কারজয়ী ও দেশের সর্বোচ্চ সম্মান নারী শক্তি সম্মানে সম্মানিত পূর্ণিমা দেবী বর্মনের ক্ষেত্রে একথা খুবই প্রযোজ্য। গত ১০ বছর ধরে বিলুপ্তপ্রায় হাড়গিলা সংরক্ষণের জন্য তিনি নিরলস কাজ করে চলেছেন। সম্প্রতি মহিলা সরলীকরণের উপর চার দিনের অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। এতে বিশ্বের ১২ টি দেশের মহিলারা অংশগ্রহণ করে। এর প্রথম দিনের অনুষ্ঠানটি শুরু হয় জালুকবাড়ির পাঁচতারা হোটেল রেডিসন ব্লুতে। সেখানে একটি আন্তৰ্জাতিক পর্যায়ের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এই আলোচনায় বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ ও হাড়গিলা সংরক্ষণের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করা হয়। গ্লোবাল ওইমেন ইন নেচার নেটওয়ার্ক উদ্যোগে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যপাল জগদীশ মুখী। তিনি উপস্থিত সমস্ত মহিলাদের উৎসাহ দেন। বিশ্বের ১২টি দেশের মহিলার সঙ্গে রাজ্যের গ্রামের মহিলারাও অংশগ্রহণ করেন। বাকী অনুষ্ঠানটি কাজিরাঙ্গাতে অনুষ্টিত হয়। সেখানে বিদেশের কয়েকজন পক্ষীবিদও অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানের সাথে সংগতি রেখে দদরা হাইস্কুল থেকে একটি শোভাযাত্রা বের করা হয় যেখানে মহিলারা হাড়গিলার মুখোশ পরে অংশগ্রহণ করেন। এই অনুষ্ঠানে মহিলা সবলীকরণের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করা হয়। এপ্রসঙ্গে পূর্ণিমা দেবী বলেন- একজন মহিলা অন্য মহিলাকে সহযোগিতা করলে সমাজ এগিয়ে যেতে পারবে। মহিলা সাবলীকরণের ওপর এই বিশেষ অনুষ্ঠানটি মহিলাদের বন্য প্রাণী সংরক্ষণের ক্ষেত্রে অনুপ্রাণিত করবে। পূর্ণিমা দেবী ২০০জন মহিলাকে নিয়ে হাড়গিলা আর্মি গড়ে তুলেছেন। সেখানে তাদের হাড়গিলা সংরক্ষণের প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। তিনি বলেন হাড়গিলাকে আমি সমাজ ও সংস্কৃতির সাথে যুক্ত করতে চাইছি। এটাও সমাজের একটা অংশ। মহিলারা বিভিন্ন পুজো, নাম, বিহু, শাড়ি ও গামোছাতে, গীতা, ভাগবত যাত্রায় এটি জুড়ে দিয়েছেন।এ সম্পর্কে তিনি বলেন যে সবাই মিলে বিলুপ্তপ্রায় এই পাখিটিকে বাঁচানো দরকার। মহিলারা খুব গুরুত্ব সহকারে  সমস্ত কাজ করে। তিনি মনে করেন- এই অনুষ্ঠান পরিবেশ সংরক্ষনের সাথে উত্তর-পূর্বাঞ্চলের মহিলা সরলীকরণ ও এর সাথে নতুন প্রজন্মকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ করবে।

No comments

Powered by Blogger.