Header Ads

পাণ্ডু কলেজের বাংলা বিভাগের অন্তরঙ্গ আলাপন সম্পন্ন


দেবযানী পাটিকরঃ গুয়াহাটি, 
বর্তমান সময়ে মানবিকতার মূল্যবোধ দিয়ে কাজ করার প্রয়োজন রয়েছে- এই মন্তব্য বাংলাদেশের প্ৰাক্তন উপাচাৰ্য এবং বিজ্ঞানী অধ্যাপক লিয়াকৎ আলির। পাণ্ডু কলেজে এক অন্তরঙ্গ আলাপনে একথা বলেন তিনি। শুক্রবারে পাণ্ডু কলেজ প্রেক্ষাগৃহে এক অন্তরঙ্গ আলাপের অনুষ্ঠান হয়। কলেজের বাংলা  বিভাগ এবং ব্যতিক্রম মাসডোর সহযোগিতায় এই অনুষ্ঠানের আয়োজন হয়। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের হাই কমিশনারের অ্যাসিস্টেন্ট  হাই কমিশনার ড০ তনভীর মনসুর, প্রাক্তন উপাচার্য এবং বিজ্ঞানী প্রফেসর লিয়াকত আলি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রফেসর ড০ সৌমিত্র শেখর, বিখ্যাত সঙ্গীত শিল্পী মনোরঞ্জন ঘোষাল, ব্যতিক্রম গ্রুপের কর্ণধার সৌমেন ভারতীযা, কলেজের বাংলা বিভাগের অধ্যক্ষ তিমির দে, কলেজের অধ্যক্ষ যোগেশ কাকতি, রবীন্দ্র বিশেষজ্ঞ ড০ ঊষা রঞ্জন ভট্টাচার্য, অধ্যাপক শান্তনু রায় চৌধুরী সহ কলেজের অন্যান্য অধ্যাপকরা উপস্থিত ছিলেন। কলেজের ছাত্ৰছাত্রীরাও এদিনের আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিল।
এপ্রসঙ্গে কলেজের অধ্যক্ষ যোগেশ কাকতি মত বিনিময় ও সমস্যার সমাধান সম্পর্কে বলেন- যত মত বিনিময় করা হবে ততই সমস্যার সমাধান হবে। এ প্রসঙ্গে অধ্যাপক ড০ তিমির দে কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ছাত্রীরা এই কলেজে শিক্ষা নেবার কথা উল্লেখ করেন। তিনি মনে করেন এর ফলে একটি বড় মাপের শিক্ষা-সংস্কৃতির আদান-প্রদান হবে, যা নবীন প্রজন্মের শিক্ষার ক্ষেত্রকে আরও অনেক প্রসারিত করবে।
এদিনের আলোচনাসভায় ড০ শাহ মহম্মদ তানভীর মনসুর বলেন- অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়ালয়ের উদ্যোগে অসম দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার কমিউনিকেশন হাবে পরিণত হবে। রেলপথ বিমানপথ এবং সড়কপথের দ্বারা বাংলাদেশ এর সাথে অসমের যোগাযোগ আরো সুদৃঢ় হবে বলেই তিনি আশাবাদী। এছাড়াও বাংলাদেশ থেকে  একটি দল এসেছে তারা সাংস্কৃতিক কার্যক্রম করবেন। এরা সবাই অসম সাহিত্য সভার অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন। লিয়াকত আলী বলেন- শংকর দেব ও রবীন্দ্রনাথের রচনা নিয়ে একটি পাঠচক্রের আয়োজন করা হবে যার ফলে দুদেশের মানুষই তাদের রচনা ও সম্পর্কে জানতে পারবে। এর সাথে আর্থিক যোগাযোগও অনেক উন্নতি হবে। কারণ সাংস্কৃতিক মেলবন্ধন এবং আত্মিক সম্পর্কই হল বড় কথা। তিনি দর্শনভিত্তিক  সমাজ গড়ে তোলার কথা উল্লেখ করেন।

No comments

Powered by Blogger.