Header Ads

এনআরসি নবায়ন প্ৰক্ৰিয়ায় ঢিলেমি, কেন্দ্ৰ ও রাজ্যকে ভৰ্ৎসনা সুপ্ৰিম কোৰ্টের

নয়া ঠাহর প্ৰতিবেদন, দিল্লিঃ এনআরসি নবায়ন প্ৰক্ৰিয়া শেষ করার ব্যপারে কেন্দ্ৰ ও রাজ্যের কোনও সদিচ্ছা নেই। বিশেষ করে কেন্দ্ৰীয় স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰক এনআরসি নবায়ন প্ৰক্ৰিয়ায় প্ৰথম থেকেই প্ৰতিবন্ধকতা তৈরি করছে। মঙ্গলবার এই চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করেছে সুপ্ৰিম কোৰ্ট। মুখ্য বিচারপতি রঞ্জন গগৈ ও বিচারপতি রোহিন্টন ফলি নরিম্যানকে নিয়ে গঠিত ডিভিশন বেঞ্চ এদিন কেন্দ্ৰ ও রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে এই মন্তব্য করে। আসন্ন লোকসভা নিৰ্বাচনের প্ৰেক্ষিতে অ্যাটৰ্নি জেনারেল কে বেণুগোপাল সাময়িকভাবে এনআরসি (জাতীয় নাগরিকপঞ্জি) নবায়ন প্ৰক্ৰিয়া স্থগিত রাখার আবেদন জানান। কেন্দ্ৰীয় সরকারের আইনজীবী বেণুগোপাল সুপ্ৰিম কোৰ্টকে জানান, মনোনয়ন দাখিলের শেষ তারিখ থেকে ভোট গ্ৰহণের দিন অবধি অসমে এনআরসি নবায়ন প্ৰক্ৰিয়া স্থগিত রাখা দরকার। আধা সামরিক বাহিনী মোতায়েন নিয়ে কেন্দ্ৰীয় সরকারের তরফে এই আবেদন জানান বেণুগোপাল। তারপরই মুখ্য বিচারপতি রঞ্জন গগৈ কেন্দ্ৰ ও রাজ্যকে তীব্ৰ ভৰ্ৎসনা করে বলেন- ‘ কেন্দ্ৰীয় স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰক এনআরসি নবায়ন প্ৰক্ৰিয়া এগিয়ে নিয়ে যেতে চায় না। অ্যাটৰ্নি জেনারেল, আমি দুঃখিত কিন্তু বলতেই হবে সময়ে সময়ে বিভিন্ন অজুহাতে এনআরসির কাজকৰ্মে বাধার সৃষ্টি করা আপনাদের (স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰকের) অভ্যাসে পরিণত হয়েছে।’ তিনি আরও বলেন- কেন্দ্ৰীয় স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰক চাইলে এনআরসি নবায়ন প্ৰক্ৰিয়া এতদিনে শেষ হয়ে যেত। কিন্তু এক্ষেত্ৰে স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰক মোটেই সহযোগিতা করতে চাইছে না। কেন্দ্ৰীয় স্বরাষ্ট্ৰমন্ত্ৰকের তরফে এদিন আদালতকে জানানো হয়- দেশে বৰ্তমানে মোট তিন হাজার কোম্পানি আধা সামরিক বাহিনী রয়েছে। লোকসভা নিৰ্বাচনে দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্ৰণের জন্য প্ৰয়োজন ২৭০০ কোম্পানি। এছাড়া দেশের সীমান্ত এলাকায় আরও নিৰ্দিষ্ট সংখ্যক আধা সামরিক বাহিনী রয়েছে। ২০১৭ সালের নভেম্বর মাসে এনআরসি নবায়ন প্ৰক্ৰিয়াকে কেন্দ্ৰ করে অসমের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি জটিল হওয়ার প্ৰেক্ষিতে কেন্দ্ৰীয় সরকার অতিরিক্ত ১৬৭ কোম্পানি আধা সামরিক বাহিনী মোতায়েন করে। লোকসভা ভোট সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে অসমে মোতায়েন অতিরিক্ত আধা সামরিক বাহিনী প্ৰত্যাহার করতে চাইছে কেন্দ্ৰ। তাই সুপ্ৰিম কোৰ্টকে একথা অবগত করান আইনজীবী বেণুগোপাল। এতেই ক্ষব্ধ হয়ে ওঠেন মুখ্য বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। বলেন- শান্তিপূৰ্ণ সুষ্ঠু নিৰ্বাচন সবার কাম্য। সমান্তরালভাবে এনআরসি নবায়ন প্ৰক্ৰিয়াও সম্পন্ন হতে হবে। দুটি প্ৰক্ৰিয়াকে সমান গুরুত্ব দিতে হবে। ডিভিশন বেঞ্চ এদিন ফের একবার স্পষ্ট করে দেয়, পূৰ্ববৰ্তী নিৰ্দেশ অনুসারে আগামী ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে এনআরসি-র পূৰ্ণাঙ্গ তালিকা প্ৰকাশ করতেই হবে। এই নিৰ্দেশ মঙ্গলবারও বহাল রাখে সুপ্ৰিম কোৰ্ট।     


No comments

Powered by Blogger.