Header Ads

জেরার মুখে কলকাতা পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার, রায় সুপ্রিমকোর্টের, আদালতের রায়কে স্বাগত মমতার

নয়া ঠাহর প্ৰতিবেদন, কলকাতাঃ সুপ্রিম কোর্টে সিবিআইয়ের করা মামলার মঙ্গলবার রায় দিলেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। রাজীব কুমারকে আপাতত গ্রেফতার করা যাবে না। সিবিআই বনাম কলকাতা পুলিশ মামলার শুনানিতে এদিন এই নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। একই সঙ্গে রাজীব কুমারকে সিবিআই জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হতে হবে বলেও জানিয়েছে শীর্ষ আদালত। রাজীব কুমারকে শিলং-এ সিবিআইয়ের মুখোমুখি হতে হবে। অন্যদিকে, সিবিআই-এর দায়ের করা আদালত অবমাননার মামলায় আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে জবাব দিতে হবে বলে কলকাতা পুলিশের কমিশনার রাজীব কুমার, রাজ্যের মুখ্য সচিব মলয় দে এবং রাজ্যের ডিজিপি বীরেন্দ্রকে নোটিস পাঠিয়েছে শীর্ষ আদালত। এই জবাব পাওয়ার পরই শীর্ষ আদালত ঠিক করবে, তাঁদের আদালতে হাজিরা দিতে বলা হবে কি না। আগামী ২০ ফেব্রুয়ারি এই মামলার পরবর্তী শুনানি। মেট্রো চ্যানেলের ধরনা মঞ্চ থেকে সুপ্রিম কোর্টের রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেছেন- ‘এটা আমাদের নৈতিক জয়।’ কলকাতার পুলিশ কমিশনারের বাড়িতে সিবিআই আধিকারিকদের যাওয়া নিয়ে এদিন শুনানি হয় সুপ্রিম কোর্টে। প্রধান বিচারপতি গগৈ, বিচারপতি দীপক গুপ্ত ও বিচারপতি সঞ্জীব খন্নার বেঞ্চে এই  মামলার শুনানি হয়। সিবিআই-এর তরফে একটি হলফনামা এদিন জমা দেওয়া হয় শীর্ষ আদালতে। সোমবারই বিষয়টি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিল সিবিআই। শীর্ষ আদালতে সিবিআইয়ের হয়ে সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা দাবি করেছিলেন, সিবিআই বনাম পশ্চিমবঙ্গ সরকারের দ্বৈরথে সংবিধান ভেঙে পড়ার মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। রাজীবকে ‘সম্ভাব্য অভিযুক্ত’ আখ্যা দিয়ে তাঁর বিরুদ্ধে প্রমাণ লোপাটের অভিযোগও তোলে সিবিআই। একই সঙ্গে সিবিআইয়ের আর্জি ছিল, সুপ্রিম কোর্ট রাজীব কুমারকে আত্মসমর্পণ করতে বা সিবিআইয়ের সামনে হাজির হতে নির্দেশ দিক। অন্য দিকে, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে যে তদন্ত হচ্ছে, তাতে রাজ্য প্রশাসন বাধা দিচ্ছে বলে আদালত অবমাননার মামলা হোক। এরপরই প্ৰধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ সিবিআইয়ের কাছে কলকাতা পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার যে নথি লোপাটের চেষ্টা করেছেন তার প্ৰমাণ চান। অন্যদিকে, রাজীবের আইনজীবী অভিষেক মনু সিংভি রাজীবের বিরুদ্ধে সব অভিযোগকে উড়িয়ে দিয়ে বলেন- সাক্ষী হিসেবে রাজীবের কাছে সিবিআইয়ের যা প্রশ্ন ছিল, তার লিখিত জবাব দেওয়া হয়েছে। রাজ্য সরকারি সিট-এর প্রধান হিসেবে সারদার নথিও তিনি সিবিআইকে দিয়েছেন। এদিন শীৰ্ষ আলাদতের রায়ের পর তৃণমূল নেত্ৰী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আলাদতের রায়কে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন- আদালতের রায়ের ওপর আমাদের ভরসা আছে। ধরনা মঞ্চ থেকে একইসঙ্গে মোদীকে কটাক্ষ করে বলেন রাজনৈতিক কারণে সিবিআইকে ব্যবহার করা হচ্ছে।

No comments

Powered by Blogger.