Header Ads

অসমের জাতীয় জীবনকে কোনও বিদেশী বিপদাপন্ন করতে পারবে নাঃ মুখ্যমন্ত্ৰী


রাজ্য তথা উত্তর পূৰ্বাঞ্চল জুড়ে বিল বিরোধী আন্দোলন অব্যাহত 

গুয়াহাটিঃ নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল আজ রাজ্য সভায় পেশ হল না। আগামী কাল লোকসভার শেষ অধিবেশন। আগামী কাল বিলটি পেশের সম্ভাবনা কম। কংগ্ৰেস সাংসদ ভূবনেশ্বর কলিতা আজ জানান, রাষ্ট্ৰপতির ভাষণের উপর ধন্যবাদ সূচক প্ৰস্তাব এবং বাজেট পাশ ছাড়াও ৬টি উল্লেখযোগ্য বিল আছে। তা পাশ করাতেই হবে। সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা আছে। এদিকে বিলের বিরুদ্ধে প্ৰতিবেশী রাজ্য সহ অসমে আন্দোলন অব্যাহত আছে। বিলের বিরুদ্ধে আন্দোলনের ফলে যাতে কোনও হিংসাত্মক ঘটনা না ঘটে তার জন্য মণিপুর সরকার পূৰ্ব ইম্ফল এবং পশ্চিম ইম্ফল জেলায় কারফিউ জারি করেছে। টিভির প্ৰচারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে, ইণ্টারনেট পরিসেবা বন্ধ করে রাখা হয়েছে। মিজোরামের রাজধানী আইজল সিটি স্কোয়ার-য়ে আজ বিল বিরোধী প্ৰবল আন্দোলন হয়। মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্ৰী কৰ্ণাড সাংমার নেতৃত্বে দিল্লীতে বিল বিরোধী জোট তৈরি করা হয়েছে। আসুর সভাপতি দিপাংক নাথ এবং উপদেষ্টা সমুজ্জল ভট্টাচাৰ্যরা বিলটি সংসদে গৃহীত হলে সুপ্ৰীমকোৰ্টে দ্বারস্থ হওয়ার কথা জানিয়েছেন। আসুর সঙ্গে উত্তর পূৰ্ব ছাত্ৰ সংস্থা (নেসো)ও সুপ্ৰীমকোৰ্টে যাবে। সমুজ্জল বলেছেন, বিলটি পাশ হলে শুধু উত্তর পূৰ্বাঞ্চল নয় সমগ্ৰ দেশেই সমস্যা হবে। এদিকে মুখ্যমন্ত্ৰী সৰ্বনন্দ সনোয়াল আজ পুনরায় রাজ্যবাসীকে আশ্বস্ত করে বলেছেন, শংকিত হওয়ার কিছুই নেই, বিলটি পাশ হলে ‘জাতি-মাটি-ভেটি' সুরক্ষিত হবে। কোনও বিদেশী অসমকে দখল করতে পারবে না। অসমের জাতীয় জীবনকে কোনও বিদেশী বিপদাপন্নও করতে পারবে না। কোনও যুক্তিতেই অসম সরকার অসমের ‘মাটি-ভেটি, কৃষ্টি-সংস্কৃতি রীতি-নীতি এবং ভাষা সাহিত্যকে' ক্ষতিগ্ৰস্থ হতে দেবে না। আজ ডিব্ৰুগড়ে সনোয়াল কাছাড়ি স্বায়িত্ব শাসিত পরিষদের নব নিৰ্বাচিত সদস্যদের শপথ গ্ৰহণ অনুষ্ঠান এবং ‘মুখ্যমন্ত্ৰী কৃষি সাজ-সরঞ্জাম যোজনা' শুভারম্ভ করে মুখ্যমন্ত্ৰী অসমবাসীকে আশ্বস্ত করে বলেন, অসমের ৩ কোটি ৩০ লক্ষ মানুষ একতার বন্ধনে মিলন প্ৰীতির মাধ্যমে সম্পদ সম্ভাবনা বিকাশে আত্ম নিয়োগ করলে কোনও শক্তিই অসমকে পরাভূত করতে পারবে না। অসম সরকার কোনও কিছুই লুকোচ্ছে না, সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে মুক্ত মনে সরকার চালাচ্ছে। এই সরকারের কোনও দুষ্ট বুদ্ধি নেই। সদভাবে সরকার চালাচ্ছে।

No comments

Powered by Blogger.