Header Ads

১২ ঘণ্টার বনধ-এ স্তব্ধ ডিমা হাসাও জেলার স্বাভাবিক জনজীবন

বিপ্লব দেব হাফলংঃ সোমবার ১২ ঘণ্টার বনধ-এ স্তব্ধ হয়ে পড়ে ডিমা হাসাও জেলার স্বাভাবিক জনজীবন। জেলার প্ৰতিটি প্ৰান্তে এদিন সকাল থেকে বন্ধ হয়ে পড়েছে যনবাহন চলাচল, দরজা খোলেনি ব্যবসায়িক প্ৰতিষ্ঠানগুলোর। পাহাড়ি জেলার সদর শহর হাফলং সহ মহকুমা সদর মাইবাং মাহুর লাংটিং হারাঙ্গাজাও উমরাংসো সহ জেলার বিভিন্ন অঞ্চলে বনধ ছিল সর্বাত্মক। বনধকে কেন্দ্র করে জেলার কোনও জায়গা থেকে অশান্তির খবর মেলেনি বনধ ছিল সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণ। এদিকে বনধে শৈল শহর হাফলঙে বাজার হাট দোকানপাট ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান স্কুল কলেজ ব্যাঙ্ক পোস্ট অফিস সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান পার্বত্য পরিষদ সচিবালয় সবই ছিল বন্ধ। শহরের রাস্তায় কোনও যানবাহন চলাচল করতে দেখা যায়নি।  এমনকি সোমবার দূর পাল্লার যানবাহন চলাচল ও সম্পূর্ণ বন্ধ ছিল। তবে পাহাড় লাইনে ট্রেন চলাচল ছিল সম্পূর্ণ স্বভাবিক।  নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ২০১৬ বাতিল, কার্বি-আংলং এবং ডিমা হাসাওয়ে বড়ো জনজাতিদের পাৰ্বত্য জনগোষ্ঠীর মৰ্যাদা দেওয়ার সরকারি সিদ্ধান্ত ও সংবিধানের ষষ্ঠ তফশিলির সংশোধনের বিরোধিতা এবং রাজ্যের ছয় জনগোষ্ঠীকে জনজাতি করার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার এর তীব্র বিরোধিতা করে আজ সোমবার ভোর পাঁচটা থেকে ১২ ঘণ্টা বনধ-এর ডাক দিয়েছিল ডিমাসা স্টুডেন্টস্ ইউনিয়ন, কার্বি স্টুডেন্টস্ অ্যাসোসিয়েশন, কুকি স্টুডেন্টস্  অর্গানাইজেশন, মার স্টুডেন্টস্ অ্যাসোয়িশেনের সম্মিলিত মঞ্চ হিলস ট্রাইবস্ স্টুডেন্টস্ অ্যাসোসিয়েশন। 

No comments

Powered by Blogger.