Header Ads

২০০৪, ২০০৬ ভোটার তালিকাকে গ্ৰাহ্য করে কংগ্ৰেসের নীতিগত সিদ্ধান্ত গ্ৰহণ দিল্লিতে

নয়া ঠাহর প্ৰতিবেদন, হোজাইঃ  লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হওয়ার দিনই অসমের পৰ্যবেক্ষক হরিশ রাওয়াতের পৌরহিত্যে দিল্লিতে কংগ্ৰেসের এক জরুরি রুদ্ধদ্বার বৈঠক হয়। লামডিঙের কংগ্ৰেস নেতা স্বপন কর এবং অন্যান্যরাও এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে অসম প্ৰদেশ কংগ্ৰেসের পরামৰ্শে কেন্দ্ৰীয় কংগ্ৰেস একটি গুরুত্বপূৰ্ণ সিদ্ধান্ত গ্ৰহণ করে। এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন অসম কংগ্ৰেসের প্ৰাক্তন মন্ত্ৰী তথা অন্যতম সহ সভাপতি ড০ অৰ্ধেন্দু কুমার দে। তিনি বৈঠকে এই সিদ্ধান্তের কথা এই প্ৰতিবেদনককে জানান। কংগ্ৰেসের এই বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে প্ৰথমত, অসমের শান্তি যাতে বিঘ্নিত না হয় আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি রক্ষার ক্ষেত্ৰে কংগ্ৰেসকে ভূমিক গ্ৰহণ করতে হবে। দ্বিতীয়ত, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে বিজেপির ভূমিকায় ক্ষোভ প্ৰকাশ করে বলেছেন এই বিল কোনওদিন পাস হবে না কেবল মাত্ৰ বাঙালি হিন্দু ভোটের লক্ষ্যে তা করা হচ্ছে। তারা বলেছেন রাজ্যসভায় বিলটি পাস হবে না তারা আগেই জানত কারণ এনআরসির কাজ চলছে অসমে এবং সুপ্ৰিম কোৰ্টের নিৰ্দেশে চলছে। বৈধ অবৈধ নাগরিকদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে এনআরসি কৰ্তৃপক্ষ নেবেন, এইক্ষেত্ৰে নতুন করে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের কোনও প্ৰাসঙ্গিকতা নেই। তাই কংগ্ৰেস সিদ্ধান্ত নিয়েছে ২০০৪ এবং ২০০৬এর অসমের ভোটার তালিকায় হিন্দু মুসলিম সব ধৰ্মাবলম্বির মানুষকে যাদের নাম ভোটার তালিকায় রয়েছে তাদেরকে সংবিধান স্বীকৃত অধিকার দেওয়ার লক্ষ্যে নীতিগতভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছে কংগ্ৰেসের কেন্দ্ৰীয় নেতৃত্ব। সেই তালিকার ওপর ভিত্তি করে ওই সময় পৰ্যন্ত যারা ভোটাধিকারে ছিলেন তাদেরকে ভারতীয় নাগরিক হিসেবে গণ্য করতে হবে। সংবিধান প্ৰদত্ত এই অধিকারের কথা পৰ্যবেক্ষক হরিশ রাওয়াত নীতিগতভাবে মেনে নিয়েছেন। সেই সিদ্ধান্তের আধারে কংগ্ৰেস সাংসদ সুস্মিতা দেব, ভূবনেশ্বর কলিতা প্ৰমুখ অসম কংগ্ৰেস নেতারা সহমত পোষণ করেছেন। তাঁরা অসমে শিঘ্ৰই এই সিদ্ধান্তের কথা সরকারিভাবে জানাবেন। বৈঠকে অভিমত পোষণ করা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের বাঙালি হিন্দুদের ভোটের দিকে লক্ষ্য রেখে এই বিল পাস করার নামে বাঙালি হিন্দুদের লোভ দেখানো হচ্ছে। আর অসমের বাঙালি হিন্দুদের ক্ষমতা নেই ১৪ টি লোকসভা আসনে বিজেপিকে জেতানোর। অথচ অসমের বাঙালি হিন্দুদের কথাও প্ৰকাশ্যে বলছে তারা। এবং ৬ জনগোষ্ঠীকে তফশিল ভুক্ত করার ব্যপারেও অভিমত পোষণ করে বলা হয়েছে এটি একটি ললিপপ, বাস্তবে কোনও দিনও এটি কাৰ্যকর হবে না। এদিকে স্বাভাবিকভাবেই অসমের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি খারাপ হয়ে গেল।কেন্দ্ৰে কংগ্ৰেসের এই নীতিগত সিদ্ধান্তের কথা মেনে নিয়েছেন কংগ্ৰেস সাংসদ সুস্মিতা দেব এবং বিধায়ক কমলাক্ষ্য দে পুরকায়স্থ। তিনি এই প্ৰতিবেদককে ফোনে জানিয়েছেন-  ২০০৪, ২০০৬ সংবিধান স্বীকৃত ভোটার তালিকা কংগ্ৰেস গ্ৰাহ্য করবে। ধৰ্মের ভিত্তিতে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলকে কংগ্ৰেস মানবে না।

No comments

Powered by Blogger.